বিজ্ঞাপন

তুরস্ক ও গ্রিসের পাল্টাপাল্টি সামরিক মহড়ার ঘোষণা

August 25, 2020 | 3:06 pm

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ভূমধ্যসাগরের পূর্বাঞ্চলে তেল-গ্যাস মজুতের মালিকানা নিয়ে বাড়তে থাকা উত্তেজনার মধ্যেই পাল্টাপাল্টি সামরিক মহড়ার ঘোষণা দিয়েছে তুরস্ক ও গ্রিস। খবর বিবিসি।

বিজ্ঞাপন

মঙ্গলবার (২৫ আগস্ট) উভয় দেশই গ্রিসের ক্রিট দ্বীপের অদূরবর্তী সাগরে নৌ-মহড়া চালাবে বলে জানিয়েছে।

এদিকে বিবিসি জানিয়েছে, তুরস্কের পক্ষ থেকে এক সরকারি সতর্কবার্তায় অন্যান্য জলযানকে মহড়াভুক্ত জলসীমা এড়িয়ে চলতে বলা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

অন্যদিকে, তেল-গ্যাস অনুসন্ধানেরত গবেষণা জাহাজের অভিযানক্ষেত্র আরও বিস্তৃত করা হবে - তুরস্ক এমন ঘোষণা দেওয়ার পর ওই অনুসন্ধানকে বেআইনি বলে বিবেচনা করা গ্রিস এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ওই অঞ্চলে নৌ মহড়া চালানো হবে বলে ইঙ্গিত দেয়।

এক বিবৃতিতে গ্রিস সরকারের মুখপাত্র স্টেলিওস পেটসাস বলেন, কূটনৈতিকভাবে ও অভিযান পর্যায়ে গ্রিস এখনো শান্তভাবে সাড়া দিচ্ছে। তবে, নিজেদের সার্বভৌমত্ব রক্ষায় প্রয়োজনীয় সবকিছু করতে পারবে এমন আত্মবিশ্বাসও গ্রিসের আছে।

বিজ্ঞাপন

পাশাপাশি, দুই দেশের মধ্যে সৃষ্ট উত্তেজনা হ্রাসের চেষ্টায় জার্মানি মঙ্গলবার (২৫ আগস্ট) তাদের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হেইকো মাসকে এথেন্স ও আঙ্কারা সফরের উদ্দেশে পাঠিয়েছে। তিনি এথেন্সে গ্রিসের প্রধানমন্ত্রী কিরিয়াকোস মিতসোতাকিশের সঙ্গে সাক্ষাৎ করার পর আঙ্কারায় তুরস্কের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করবেন।

ওদিকে, উত্তর আটলান্টিক নিরাপত্তা জোট - ন্যাটোর সদস্য তুরস্ক ও গ্রিস, ক্রিট ও সাইপ্রাস দ্বীপের মধ্যবর্তী জলসীমায় তেল-গ্যাসের মজুত আবিষ্কার নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে বিরোধে জড়িয়ে পড়েছে। গ্রিস আবার ইউরোপীয় ইউনিয়নেরও (ইইউ) সদস্য। বিরোধ নিরসনে ইইউ দেশ দুটিকে সংলাপে বসার আহ্বান জানিয়েছে।

বিজ্ঞাপন

কিন্তু, ইইউয়ের প্রভাবশালী সদস্য ফ্রান্স গ্রিসের পাশে রয়েছে। সম্প্রতি দেশটি গ্রিসের সঙ্গে একটি নৌ-মহড়ায়ও অংশ নিয়েছে।

এ ব্যাপারে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান বলেছেন, গ্রিস নিজেকে একটি বিশৃঙ্খলার মধ্যে ছুড়ে দিচ্ছে যেখান থেকে তারা বের হওয়ার কোনো পথ পাবে না।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/একেএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন