বিজ্ঞাপন

চবিতে অনলাইন ক্লাসের নীতিমালা প্রণয়নের দাবি ছাত্র ইউনিয়নের

August 29, 2020 | 10:05 pm

চবি করেসপন্ডেন্ট

চট্টগ্রাম ব্যুরো: চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) অনলাইন ক্লাসের নীতিমালা প্রণয়ন ও ক্লাস শুরুর আগে শিক্ষার্থীদের সমস্যা ও সীমাবদ্ধতার কথা মাথায় রাখতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন চবি সংসদ। একইসঙ্গে ছয় দফা দাবিতে স্মারকলিপিও জমা দিয়েছে তারা।

বিজ্ঞাপন

শনিবার (২৯ আগস্ট) সকালে দফতর সম্পাদক সাজাং চাকমার সই করা এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়।

ছয় দাফা দাবির মধ্যে আছে— অনলাইন ক্লাসের বিস্তারিত নীতিমালা ক্লাস শুরুর কমপক্ষে দুই সপ্তাহ আগে বিশদে প্রকাশ করতে হবে; বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে প্রত্যেক শিক্ষার্থীর সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগ করে একটি পূর্ণাঙ্গ জরিপ পরিচালনার মাধ্যমে ডেটাবেজ তৈরি করতে হব; জরিপে অনলাইন ক্লাসের ক্ষেত্রে কার কী ধরনের সমস্যা ও সীমাবদ্ধতা আছে, তার খোঁজ নিতে হবে; জরিপের মাধ্যমে উঠে আসা তথ্য সবার কাছে প্রকাশ করতে হবে।

বিজ্ঞাপন

এছাড়া জরিপের ফল অনুযায়ী অস্বচ্ছল শিক্ষার্থীদের অনলাইন ক্লাসের যাবতীয় ডেটা খরচ বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে বহন করতে হবে বলে দাবি জানানো হয়। বলা হয়, প্রতিটি ক্লাস যেকোনো সময় যেন যেকোনো শিক্ষার্থী ডাউনলোড করতে পারে, সে সুবিধা দিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটসহ, ডিপার্টমেন্টের ফেসবুক গ্রুপ, ইউটিউব ও গুগল ড্রাইভে আপলোড করে মুক্ত অবস্থায় রাখতে হবে।

ডিভাইস ও ডাটা সমস্যা ছাড়াও দ্রুতগতিসম্পন্ন ইন্টারনেট সংযোগ অনলাইন ক্লাসের একটি অন্যতম প্রধান উপকরণ উল্লেখ করে চবি ছাত্র ইউনিয়ন বলছে, দ্রুতগতির ইন্টারনেট দেশের সব অঞ্চলে বসবাসকারী শিক্ষার্থীদের পক্ষে পাওয়া সম্ভব নয়। তাই ক্লাসে উপস্থিতির ক্ষেত্রে কোনো বাধ্যবাধকতা বা মার্কস রাখা যাবে না। এসব ক্লাসকে অফিশিয়াল ক্লাস হিসেবে বিবেচনা করা যাবে না।

বিজ্ঞাপন

এ ছাড়া শিক্ষার্থীদের মানসিক স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে কাউন্সেলিং কার্যক্রম অব্যাহত রাখা এবং অনলাইন ক্লাসের ব্যাপারে শিক্ষকদের যথাযথ প্রশিক্ষণ দেওয়ার দাবি জানায় ছাত্র ইউনিয়ন।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, যথাযথ জরিপ ও পূর্বপ্রস্তুতি না নিয়ে হুট করে অনলাইন ক্লাস শুরু করার সিদ্ধান্ত হবে নিম্ন মধ্যবিত্ত ও অপারগ শিক্ষার্থীদের প্রতি বিশ্ববিদ্যালয়ের বৈষম্যমূলক আচরণের সামিল। এটি ছাত্রদের মধ্যে শ্রেণি বৈষম্য তৈরি করবে। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় পরিচয়ের জন্য এটি হবে একটি আত্মঘাতী তৎপরতা। করোনাকালীন এই পরিস্থিতিতে অনলাইন ক্লাসের সিদ্ধান্ত যথেষ্ট যুগোপযোগী হলেও এই উদ্যোগ বাস্তবায়নের আগে শতভাগ শিক্ষার্থীর অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে না পারলে এর উদ্দেশ্য ফলপ্রসূ হবে না বলেও বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

এর আগে, গত ২০ আগস্ট করোনাভাইরাসের কারণে বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকায় শিক্ষার্থীদের ক্ষতি ‘পুষিয়ে নিতে’ আগামী ৬ সেপ্টেম্বর থেকে অনলাইন ক্লাস শুরুর সিদ্ধান্ত নেয় চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি)।

সারাবাংলা/সিসি/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন