বিজ্ঞাপন

অনলাইন উদ্যোক্তাদের পণ্য সারাদেশে সরবরাহ করবে ‘সেলার ওয়ান’

September 6, 2020 | 10:47 pm

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: সারাদেশে অনলাইন বিক্রেতাদের ক্ষমতায়নের লক্ষ্যে চালু হয়েছে ‘সেলার ওয়ান’ প্রোগ্রাম। ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ই-ক্যাব), এটুআই ও আইসিটি ডিভিশনের সহায়তায় এই প্রোগ্রাম চালু করেছে পেপারফ্লাই।

বিজ্ঞাপন

প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে, দেশের অর্থনীতি ও বাণিজ্য রাজধানী কেন্দ্রিক হওয়ায় ঢাকার বাইরের ব্যবসায়ীরা যথেষ্ট সুযোগ-সুবিধা পান না। ঢাকার বাইরে পণ্য পরিবহন, দক্ষ জনবল এবং দ্রুত ও বিস্তৃত আর্থিক পরিসেবাগুলোর সুবিধাও পাওয়া যায় না। এ অবস্থায় ঢাকার বাইরে থেকে যারা অনলাইনে ব্যবসা পরিচালনা করছেন, তাদের জন্যই এই সেবাটি চালু করেছে পেপারফ্লাই। এর ফলে দেশজুড়ে যে কেউ অনলাইন মার্চেন্ট হতে পারবেন। গ্রামীণ ব্যবসায়ীরাও তাদের উৎপাদিত পণ্য সরাসরি সারাদেশের ক্রেতাদের কাছে পৌঁছে দিতে পারবেন।

রোববার (৬ সেপ্টেম্বর) এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে আনুষ্ঠানিকভাবে সেবাটি চালু করা হয়। এসময় জানানো হয়, সারাদেশে এই সেবাটি ছড়িয়ে দিতে দেশের সবক’টি জেলায় থাকছে পেপারফ্লাইয়ের ৬৪টি নিজস্ব পয়েন্ট, যেখান থেকে মার্চেন্টের পণ্য পিকআপ করে সংশ্লিষ্ট এলাকায় গ্রাহকদের ঠিকানায় পৌঁছে দেওয়া হবে।

বিজ্ঞাপন

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, ‘সেলার ওয়ান’ দেশের অনলাইন উদ্যোক্তাদের সম্ভাবনা বিকাশে ভূমিকা রাখার মাধ্যমে ডিজিটাল উদ্যোক্তা তৈরি এবং ডিজিটাল বাংলাদেশের সঙ্গে সঙ্গতি রেখে আরও বেশি ব্যবসায়িক প্রবৃদ্ধি এবং স্থানীয় কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি করবে। তাছাড়া করোনাভাইরাসের প্রভাবে যেহেতু অনেক দোকান বন্ধ বা অচল রয়েছে, তাই এই ছোট ব্যবসাগুলোর বেঁচে থাকা ও বেড়ে ওঠার জন্য এই মুহূর্তে যে বিকল্প বিক্রি পদ্ধতি প্রয়োজন, যেখানে ‘সেলার ওয়ান’ তাদের প্রয়োজনের বন্ধু হিসেবে পাশে দাঁড়াবে।

সংবাদ সম্মেলনে পেপারফ্লাইয়ের চিফ মার্কেটিং অফিসার রাহাত আহমেদ বলেন, ‘আমরা সবসময় ই-কমার্স কেন্দ্রিক লজিস্টিক ইন্ডাস্ট্রির পথপ্রদর্শক হিসেবে নতুন নতুন পরিসেবা এবং সমাধান নিয়ে আসার চেষ্টা করেছি। সেলার ওয়ান প্রোগ্রামটি আমাদের একটি নতুন প্রয়াস, যা সারাদেশে অনলাইন বিক্রেতার সংখ্যা বৃদ্ধি করার মাধ্যমে ই-কমার্স ইকোসিস্টেমকে সমৃদ্ধ করতে সহায়তা করবে। এছাড়াও, এই সেবাটি ঢাকার বাইরের বা গ্রামীণ ব্যবসায়ীদের অনলাইনের মাধ্যমে দেশব্যাপী সরাসরি গ্রাহকদের কাছে তাদের পণ্য বিক্রির সুবিধা দিয়ে সমৃদ্ধ করবে।’

বিজ্ঞাপন

ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ই-ক্যাব) প্রেসিডেন্ট শমী কায়সার বলেন, ‘গ্রামীণ বা প্রান্তিক বিক্রেতাদের বাধা নিরসন করতেই ই-ক্যাব ও পেপারফ্লাই এই উদ্যোগ নিয়েছে, যেন আরও ব্যবসায়ীরা ঢাকার বাইরে থেকে তাদের অনলাইন ব্যবসা শুরু করতে পারে। অবশ্যই এই পরিবর্তন রাতারাতি ঘটবে না। তবে এই প্রবর্তনের মাধ্যমে আমরা গর্বের সঙ্গে বলতে পারি— আমরা আমাদের লক্ষ্য অর্জনে আরও একধাপ এগিয়ে গেলাম।’

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে আরও উপস্থিত ছিলেন এটুআইয়ের হেড অব ই-কমার্স রেজওয়ানুল হক জামি, ই-ক্যাবের ভাইস প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ সাহাব উদ্দিন, আইএফসি বাংলাদেশের প্রাইভেট সেক্টর স্পেশালিস্ট হোসনে ফেরদৌস সুমি এবং প্রাইম ব্যাংকের এসইভিপি ও হেড অব এমএসএমই ব্যাংকিং সৈয়দ এম ওমর তৈয়ব। অনুষ্ঠানে লাইটক্যাসল পার্টনার্সের সিইও বিজন ইসলাম মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/ইএইচটি/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন