বিজ্ঞাপন

পূর্বধলায় জোরপূর্বক শিক্ষকের বাড়ি দখল, থানায় মামলা

September 10, 2020 | 1:59 am

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট

নেত্রকোনা: নেত্রকোনার পূর্বধলা উপজেলার জারিয়া ইউনিয়নের চাকুয়ারপাড়া গ্রামের বাড়ির মালিক অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক হাজী মো. গিয়াস উদ্দিন ও তার পরিবারের বাড়ি দখল করে হত্যার হুমকি ও ভয়ভীতি দেখানো হচ্ছে। দেশীয় ধারালো অস্ত্র, মাদকদ্রব্য, অবৈধ মালামাল দিয়ে ফাঁসিয়ে এবং নারী নির্যাতনের মিথ্যা মামলাসহ হয়রানি করা হবে বলে হুমকি দিচ্ছে।

বিজ্ঞাপন

এ নিয়ে নেত্রকোনা আদালতে গিয়াস উদ্দিনের ছেলে একটি মামলা দায়ের করেছে। মামলার একটি তদন্ত নির্দেশ পূর্বধলা থানায় প্রেরণ করা হয়েছে।

ভুক্তভোগীর পরিবার সূত্রে জানা যায়, বাড়ির আঙ্গিনায় ঘর তৈরি করে জমি দখল করেছে একই গ্রামের বাসিন্দা মো. আনোয়ার বিশ্বাস নামে এক ব্যক্তি ও তার নিজস্ব লোকজন। তিনি এলাকার ক্ষমতাধর, প্রভাবশালী বলে জানা যায়। যিনি বাড়ি দখল করেছেন তিনি হচ্ছেন হাজী মো. গিয়াস উদ্দিনের ভাতিজা। ভাতিজা আনোয়ার বিশ্বাসের পরিবার চাচা মো. গিয়াস উদ্দিনের কাছে বর্তমান বাড়ির জমি বিক্রি করেছিলেন। কিন্তু (বি.আর.এস) এর রেকর্ড টি এখনো ভাতিজা আনোয়ার বিশ্বাসের পরিবারের নামেই রয়েছে। সেই প্রেক্ষিতে জোরপূর্বক বাড়ির জমি দখল করেছে।

বিজ্ঞাপন

এ বিষয়ে মো. গিয়াস উদ্দিনের ছেলে মতিউর রহমান জানান, ‘আমরা প্রত্যেকের দ্বারে দ্বারে ঘুরে বেড়াচ্ছি সঠিক বিচারের দাবি নিয়ে। আমাদের কাছে তারা জমি বিক্রি করেছিলেন এবং আমাদের কাছে তার প্রমাণ ও জমির প্রকৃত দলিল রয়েছে। কিন্তু (বি.আর.এস) এর রেকর্ড তাদের নামে রয়ে যাওয়ায় বাড়ির উঠানে ঘর তৈরি করে জমি দখল করে রেখেছে। আমাদের উপর নির্যাতন চালাচ্ছে, এমনকি হত্যার হুমকি দিচ্ছে। কিছুদিন পূর্বে আমাদের উপর তারা ধারালো অস্ত্র নিয়ে হামলা করে এবং আমরা দ্রুত ৯৯৯ কল দেই। পরে পুলিশ এসে তাদের হাতের অস্ত্রগুলো জব্দ করে থানায় নিয়ে যায়।’

মতিউর রহমান আরও জানান, এ বিষয়টি জারিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোছা. মাজেদা খাতুনকে জানানো হলে তিনি এই ব্যাপারে কোন পদক্ষেপ নেননি। পরিশেষে আমরা তাদের অত্যাচারে বাধ্য হয়ে পূর্বধলা প্রেসক্লাবে সাংবাদিক সম্মেলন করি এবং থানায় একটি মামলা দায়ের করি। মামলা করার কারণে ১ নং আসামি মো. আনোয়ার বিশ্বাস ও তার সাথীরা আমার সাক্ষীগণকে হত্যা ও বাড়ি ঘরে আগুন দিয়ে জ্বালিয়ে দেওয়াসহ নানা ভয়ভীতি প্রদর্শন করছে। পরবর্তীতে আমার সাক্ষীগণ তাদের বিরুদ্ধে ইতোমধ্যে থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছে।

বিজ্ঞাপন

এ ব্যাপারে পূর্বধলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. তাওহীদুর রহমান জানান, হাজী মো. গিয়াস উদ্দিন স্যারের বাড়িটি নিয়ে যে ঘটনাটি ঘটেছে সে বিষয়টি পরিবারের পক্ষে দখলকারীর বিরুদ্ধে একটি আদালতে মামলা দায়ের করা হয়েছে। আদালত থেকে একটি তদন্ত নির্দেশ পেয়েছি।

মামলার বিষয়টি তদন্ত করে দ্রুত আইনের আওতায় আনা হবে বলে জানান তিনি।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/জেএইচ

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন