বিজ্ঞাপন

শিক্ষককে ডেকে নিয়ে কান ধরে ওঠবস, ভিডিও ভাইরাল

September 14, 2020 | 4:55 pm

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: বরিশালে এক শিক্ষককে কান ধরে ওঠবস করানোর ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। ৯ সেপ্টেম্বর ওই ভিডিওটি প্রকাশ করা হয়। ভিডিওতে মারধরের শিকার ওই শিক্ষক বরিশালে নার্সিং ইনস্টিটিউটে পড়াতেন। তার গ্রামের বাড়ি পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলায়।

বিজ্ঞাপন

খোঁজ নিয়ে জানা, হেনস্থার শিকার ওই ব্যক্তি ২০১৮ সাল পর্যন্ত বরিশাল শহরের একটি বেসরকারি নার্সিং কলেজের শিক্ষক ছিলেন। তবে করোনাকালে ওই প্রতিষ্ঠানের হয়ে অনলাইনে ক্লাস নিচ্ছিলেন তিনি। এখানেই কয়েকজন শিক্ষার্থীকে বেশি নম্বর দেওয়ার প্রলোভনে অনৈতিক প্রস্তাব দেওয়ার অভিযোগ উঠে তার বিরুদ্ধে। এ জন্য ভিডিওতে শিক্ষার্থীরাও তাকে মারধরের পাশাপাশি অনৈতিক প্রস্তাব না দেওয়ার স্বীকারোক্তি আদায় করেছে।

বিষয়টি নিয়ে ওই শিক্ষকের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘কয়েকজন শিক্ষার্থীর সঙ্গে আমার বিরোধ ছিল। তাদের দুজন হলো ইমতিয়াজ ও তার স্ত্রী মনিরা আক্তার। তারা সবসময় আমার কাছে বেশি নম্বর দাবি করে আসছিল। আমি তাদের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় তারা আমাকে মিথ্যা অভিযোগে ৬/৭ জন বন্ধুবান্ধব নিয়ে মারধর করে ও ভিডিও ছড়িয়ে দেয়।’

মারধর প্রসঙ্গে ওই শিক্ষক বলেন, ‘তারা আমাকে প্রথমে বিভিন্ন অশ্লীল কথা বলে অপমান করতে থাকে। পরে আমাকে চড় মারে। এরপর গোরস্থান রোডে নিয়ে ইমতিয়াজ আমাকে কান ধরে ওঠ-বস করায়। সে আমাকে বিবস্ত্র করারও চেষ্টা করে। পরে বাধ্য হয়ে ইমতিয়াজের কথামতো আমাকে ক্ষমা চাইতে হয়েছে।’

বিজ্ঞাপন

এ ব্যাপারে ইমতিয়াজ বলেন, ‘ওই শিক্ষকের সমস্যা আছে। তিনি শিক্ষার্থীদের অনৈতিক প্রস্তাব দেন এবং সে এসব কারণে আমার স্ত্রীকেও পরীক্ষায় ফেল করিয়েছেন।’

নার্সিং কলেজের পরিচালক সাজ্জাদুল হক বলেন, ‘ফেসবুকে আমরা ভিডিওটি দেখেছি। এ ব্যাপারে আমরা লিখিত কোনো অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেব।’

উল্লেখ্য, এর আগে ২০১৯ সালে রাজশাহী পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটের অধ্যক্ষকে পানিতে ফেলে দেয় শিক্ষার্থীরা। সেই ঘটনাটিও ফেসুবকে ছড়িয়ে পড়েছিল।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/টিএস/পিটিএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন