বিজ্ঞাপন

লন্ডনে লকডাউনবিরোধী বিক্ষোভে সংঘর্ষ, আটক ৩২

September 21, 2020 | 12:00 am

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

লন্ডনে ব্রিটিশ সরকারের লকডাউন পরিকল্পনার বিরুদ্ধে ডাকা বিক্ষোভে পুলিশের সঙ্গে আন্দোলনকারীদের সংঘর্ষ হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে মেট্রোপলিটন পুলিশ ৩২ জনকে আটক করেছে। খবর‍ দ্য এক্সপ্রেস।

বিজ্ঞাপন

যুক্তরাজ্যে সম্প্রতি করোনা সংক্রমণ বাড়তে শুরু করায় সরকার ফের লকডাউনে যাওয়ার পরিকল্পনা করছে। ওই পরিকল্পনার বিরুদ্ধে 'রেজিস্ট অ্যান্ড অ্যাক্ট ফর ফ্রিডম' এর ব্যানারে শনিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) লন্ডনে হাজারো মানুষ বিক্ষোভ দেখিয়েছেন।

দ্য এক্সপ্রেস জানাচ্ছে, লন্ডনের ওই আন্দোলন থেকে বৈশ্বিক মহামারি কোভিড-১৯ কে পরিকল্পিত; লকডাউনকে অবৈধ এবং গণহারে ভ্যাকসিন প্রয়োগের সিদ্ধান্তকে ব্যক্তি স্বাধীনতার পরিপন্থি বলে উল্লেখ করা হয়।

বিজ্ঞাপন

পরে, ট্রাফালগার স্কয়ার থেকে হাজারখানেক মানুষের উপস্থিতিতে মিছিল শুরু হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাওয়ায় পুলিশ তাদের হটিয়ে দিতে যায়। সে সময় পুলিশের সঙ্গে বিক্ষোভকারীদের সংঘর্ষ বেধে যায়। পুলিশ ৩২ জনকে আটক করে। বিবিসি জানিয়েছে, ওই ৩২ জনের মধ্যে লেবার পার্টির সাবেক প্রধান জেরমি করবিনের ছোট ভাইও রয়েছেন।

এ ব্যাপারে মেট্রোপলিটন পুলিশের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, কোভিড-১৯ এর সংক্রমণ ঠেকাতে একসঙ্গে ছয়জনের বেশি জমায়েত হওয়ার ওপর সরকারি নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। ওই নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে বিক্ষোভকারীরা অবৈধ উপায়ে সহ-নাগরিকদের জন্য স্বাস্থ্যগত হুমকি তৈরি করেছেন। তাছাড়া, বিক্ষোভে তাদের আচরণও আইন শৃঙ্খলা পরিপন্থি। তাই তাদেরকে ছত্রভঙ্গ করে দিতে পদক্ষেপ নিয়েছে পুলিশ।

বিজ্ঞাপন

অন্যদিকে, লকডাউনবিরোধী গণজমায়েত থেকে ফের লকডাউন আরোপের সিদ্ধান্ত যুক্তরাজ্যের অর্থনীতির জন্য আত্মঘাতী হবে বলে দাবি করা হয়। পাশাপাশি, কোভিড-১৯ কে গুজব হিসেবে আখ্যা দেন আন্দোলনকারীরা।

পরিসংখ্যান বলছে, শুধু যুক্তরাজ্য নয় বরং ইউরোপজুড়েই আবারও কোভিড-১৯ আক্রান্তের সংখ্যা উদ্বেগজনক হারে বাড়তে শুরু করেছে। তার ভিত্তিতেই, করোনাভাইরাসের গণসংক্রমণ ঠেকাতে প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন লকডাউনে যাওয়ার কথা ভাবছেন - বলে সূত্রগুলো নিশ্চিত করেছে।

বিজ্ঞাপন

প্রসঙ্গত, ইউরোপের দেশগুলোর মধ্যে যুক্তরাজ্যই কোভিড-১৯ এ সবচেয়ে বেশি মৃত্যু দেখেছে। সেখানে করোনা আক্রান্ত হয়ে ৪১ হাজারের বেশি মানুষ মারা গেছেন। এমনকি, প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনও করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে এসেছেন।

সারাবাংলা/একেএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন