বিজ্ঞাপন

নিয়মিত নয়, সৌদিতে চার্টার্ড ফ্লাইট পরিচালনার অনুমতি পেয়েছে বিমান

September 23, 2020 | 11:15 pm

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: অবশেষে সৌদি কর্তৃপক্ষ বাংলাদেশ বিমানকে চার্টার্ড ফ্লাইট পরিচালনার অনুমতি দিয়েছে। ফলে এখন থেকে রাষ্ট্রায়ত্ত এয়ারলাইন্স বিমান সৌদি আরবে চার্টার্ড ফ্লাইট নিয়ে যেতে পারবে। তবে বিমানের নিয়মিত ফ্লাইটগুলো এখনো দেশটিতে অবতরণের অনুমতি (ল্যান্ডিং পারমিশন) পায়নি।

বিজ্ঞাপন

বেসরকারি বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের (বেবিচক) চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মাশা‍র্ল মো. মফিদুর রহমান বুধবার (২৩ সেপ্টেম্বর) রাতে সারাবাংলাকে এ তথ্য জানিয়েছেন।

মফিদুর রহমান বলেন, নিয়মিত ফ্লাইট নয়, বরং চাটার্ড ফ্লাইট পরিচালনার অনুমতি দিয়েছে সৌদি কর্তৃপক্ষ। বাংলাদেশ বিমান সেই অনুযায়ী ফ্লাইট পরিচালনা করবে।

বিজ্ঞাপন

এদিকে, বাংলাদেশ বিমানের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. মোকাব্বির হোসেন সারাবাংলাকে জানান, ছুটিতে যেসব প্রবাসী বাংলাদেশি দেশে এসে করোনাভাইরাস সংক্রমণের কারণে আর যেতে পারেননি, তাদের জন্য বিশেষ দুইটি ফ্লাইট ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ বিমান।

মোকাব্বির হোসেন জানান, বাংলাদেশ বিমানের যেসব যাত্রী ১৬ ও ১৭ মার্চের জেদ্দা ও রিয়াদের বিমানের রিটার্ন কেটেছিলেন, তাদের আগামী ২৬ সেপ্টেম্বর (ঢাকা-জেদ্দা) ও ২৭ সেপ্টেম্বর (ঢাকা -রিয়াদে) যাত্রীবাহী ফ্লাইটে সৌদি আরব নিয়ে যাওয়া হবে।

বিজ্ঞাপন

১৬ ও ১৭ মার্চের ফিরতি টিকেটধারী যাত্রীদের এই ফ্লাইটে বুকিংয়ের জন্য বিমান সেলস অফিসে টিকিট, পাসপোর্ট, সৌদি আরব নির্ধারিত অ্যাপস/লিংক থেকে অনুমোদন ইত্যাদিসহ আগামীকাল ২৪ সেপ্টেম্বর যোগাযোগ করার জন্য অনুরোধ করেছে বিমান। নতুন ফ্লাইট অনুমোদনসাপেক্ষে পর্যায়ক্রমে অন্য যাত্রীদেরও বুকিংয়ের জন্য অবহিত করা হবে জানিয়ে বিমান অন্য তারিখের যাত্রীদের এখনই কাউন্টারে ভিড় না করতে অনুরোধ জানিয়েছে।

এর আগে, করোনাভাইরানের সংক্রমণসহ বিভিন্ন কারণে যারা সৌদি আরব থেকে দেশে এসেছিলেন, ফ্লাইট না থাকার কারণে তারা দেশটিতে ফিরতে পারছিলেন না। এসব প্রবাসীরা জানিয়েছেন, তাদের বেশিরভাগেরই ভিসার মেয়াদ শেষ হবে ৩০ সেপ্টেম্বর। এর মধ্যে তারা ফিরে যেতে না পারলে আর সৌদি আরবে যেতেই পারবেন না। এ পরিস্থিতিতে তারা বিমান বাংলাদেশ ও সৌদি অ্যারাবিয়ান এয়ারলাইন্সের অফিসের সামনে বিক্ষোভ করেছেন।

বিজ্ঞাপন

বিমান জানায়, তারা সৌদি আরবে ফ্লাইট পরিচালনার অনুমতি পেলেও সৌদি আরবের কোনো বিমানবন্দরে অবতরণের অনুমতি পায়নি। ফলে তারা ফ্লাইট পরিচালনা করতে পারছে না। এ পরিস্থিতিতে পররাষ্ট্র এবং প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রণালয় থেকে প্রবাসীদের ধৈর্য ধরার আহ্বান জানানো হয়। শেষ পর্যন্ত বুধবার রাতে এক বার্তায় পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম জানান, সৌদি আরব সরকার বাংলাদেশি প্রবাসী কর্মীদের জন্য আকামার মেয়াদ আরও ২৪ দিন বাড়িয়েছে

সারাবাংলা/এসজে/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন