বিজ্ঞাপন

সৌদিতে আরও ২ ফ্লাইটের অনুমতি পেলো বিমান

September 24, 2020 | 6:52 pm

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: ছুটিতে দেশে আসা প্রবাসী বাংলাদেশিদের সৌদি আরব পৌঁছাতে আরও দু’টি বিশেষ ফ্লাইটের অনুমতি দিয়েছে সৌদি কর্তৃপক্ষ।

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) বাংলাদেশ বিমানের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মো. মোকাব্বির হোসেন সারাবাংলাকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

মোকাব্বির হোসেন জানান, ১৮-২০ মার্চের জেদ্দা এবং ১৮ ও ১৯ মার্চে রিয়াদগামী বিমানের রিটার্ন টিকিটধারী যাত্রীদের জন্য বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স আগামী ২৯ ও ৩০ সেপ্টেম্বর বিশেষ ফ্লাইট পরিচালনা করবে। ২৯ সেপ্টেম্বর রিয়াম ও ৩০ সেপ্টেম্বর জেদ্দায় যাবে ফ্লাইট। মার্চের রিটার্ন টিকিটধারী প্রবাসীরা নিজ নিজ গন্তব্য অনুযায়ী এসব ফ্লাইটের টিকিট বুকিং দিতে পারবেন। আগের টিকিট, পাসপোর্ট, সৌদি আরব নির্ধারিত অ্যাপস বা লিংক থেকে অনুমোদন ইত্যাদিসহ আগামী ২৫ ও ২৬ সেপ্টেম্বর বিমান সেলস অফিসে যোগাযোগ করতে হবে প্রবাসীদের।

বিজ্ঞাপন

বিমানের এমডি জানান, ‘আগে এলে আগে পাবেন’ ভিত্তিতে টিকিট দেওয়া হবে। নতুন ফ্লাইট অনুমোদন সাপেক্ষে পর্যায়ক্রমে অন্য যাত্রীদেরও বুকিংয়ের জন্য অবহিত করা হবে। তাই অন্য  যাত্রীদের এখনই অযথা কাউন্টারে ভিড় না করতে অনুরোধ করেন তিনি।

মোকাব্বির আরও জানান, করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেট বাধ্যতামূলক এবং নমুনা সংগ্রহের ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে সৌদি আরব পৌঁছাতে হবে বলে সব যাত্রীকে ঢাকা থেকে কোভিড পরীক্ষা করিয়ে নিতে হবে। বিস্তারিত তথ্য বিমানের ওয়েবসাইটে পাওয়া যাবে।

বিজ্ঞাপন

এর আগে, বাংলাদেশ বিমানের যেসব যাত্রী ১৬ ও ১৭ মার্চের জেদ্দা ও রিয়াদের বিমানের রিটার্ন কেটেছিলেন, তাদের আগামী ২৬ সেপ্টেম্বর (ঢাকা-জেদ্দা) ও ২৭ সেপ্টেম্বর (ঢাকা -রিয়াদে) যাত্রীবাহী ফ্লাইটে সৌদি আরব নিয়ে যাওয়া হবে গতকাল জানিয়েছিল বিমান।

সৌদি আরব প্রবাসীরা ছুটি ও করোনাভাইরাসের কারণে দেশে ফেরার পর বিমান চলাচল বন্ধ হওয়ায় আটকা পড়েছিলেন। তারা বলছেন, তাদের অনেকেরই ভিসার মেয়াদ ৩০ সেপ্টেম্বর শেষ হয়ে যাবে। এর মধ্যে ফিরতে না পারলে আর বৈধভাবে তাদের সৌদি আরবে যাওয়ার উপায় থাকবে না। এর মধ্যে তারা বিমান বাংলাদেশ ও সৌদি অ্যারাবিয়ান এয়ারলাইন্সের অফিসে বিক্ষোভ করেছেন। পরে প্রবাসীকল্যাণ ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সামনেও তারা বিক্ষোভ করেন।

বিজ্ঞাপন

এ পরিস্থিতিতে বিমান জানায়, সৌদি আরব তাদের ফ্লাইট পরিচালনার অনুমতি দিলেও তাদের কোনো বিমানবন্দরে ফ্লাইট অবতরণের অনুমতি (ল্যান্ডিং পারমিশন) দেয়নি। পরে বুধবার (২৩ সেপ্টেম্বর) রাতে বিমান জানায়, তারা সৌদি আরবে নিয়মিত ফ্লাইট পরিচালনার অনুমতি না পেলেও চার্টার্ড ফ্লাইট পরিচালনার অনুমতি পেয়েছে।

এর মধ্যে বুধবার পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম জানান, যেসব সৌদি প্রবাসী আটকা পড়েছেন, তাদের কাজের বৈধ অনুমতি তথা ইকামার মেয়াদ ২৪ দিন বাড়ানো হয়েছে। পরে রাতে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, রোববার (২৭ সেপ্টেম্বর) থেকে ঢাকায় সৌদি দূতাবাসের কার্যক্রম শুরু হবে। সেখানে প্রবাসীদের সব সমস্যার সমাধান করা হবে। তাদের ধৈর্য ধরার আহ্বান জানায় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এসজে/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন