বিজ্ঞাপন

এমসি কলেজে গণধর্ষণ: সাইফুর-লস্কর গ্রেফতার

September 27, 2020 | 12:23 pm

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট

সিলেট: সিলেটের মুরারিচাঁদ (এমসি) কলেজ ক্যাম্পাসে স্বামীকে বেঁধে রেখে স্ত্রীকে ছাত্রাবাসে নিয়ে দলবদ্ধভাবে ধর্ষণের ঘটনায় মূল আসামি সাইফুর রহমানকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মামলার ৪ নম্বর আসামি অর্জুন লস্করও গোয়েন্দা পুলিশের হাতে গ্রেফতার হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

রোববার (২৭ সেপ্টেম্বর) সকালে সুনামগঞ্জের ছাতক উপজেলা থেকে সাইফুর এবং হবিগঞ্জের মাধবপুরের মনতলা থেকে অর্জুনকে গ্রেফতার করা হয়। সিলেটের সহকারী পুলিশ সুপার সার্কেল (অতিরিক্ত) বিল্লাল হোসেন সারাবাংলাকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

বিল্লাল হোসেন বলেন, শুক্রবার রাতে এমসি কলেজের ছাত্রাবাসে গৃহবধূকে দলবদ্ধভাবে ধর্ষণের ঘটনার পর আসামিরা পালিয়ে গিয়েছি। তাদের গ্রেফতারে পুলিশ সিলেট নগরীসহ বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালাতে শুরু করে। এর মধ্যে সকালে ছাতক থেকে আসামি সাইফুরকে এবং মনতলা থেকে অর্জুন লস্করকে গ্রেফতার করা হয়।

বিজ্ঞাপন

আলোচিত এ ঘটনায় শনিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) সকালে ধর্ষণের শিকার ওই নারীর স্বামী বাদী হয়ে ছয় জনের নাম উল্লেখ করে শাহপরান থানায় মামলা করেন। মামলায় ছাত্রলীগকর্মী সাইফুর রহমান, মাহফুজুর রহমান, তারেক আহমদ, শাহ মাহবুবুর রহমান রনী, রবিউল ইসলাম ও অর্জুন লস্করকে আসামি করা হয়। এর মধ্যে সাইফুর ও অর্জুন গ্রেফতার হলেন। পুলিশ বলছে, বাকিদেরও শিগগিরই গ্রেফতার করতে পারবেন তারা।

মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, শুক্রবার সন্ধ্যায় এমসি কলেজ ক্যাম্পাসে এক দম্পতি বেড়াতে যান। রাত ৯টার দিকে ছাত্রলীগের কয়েকজন কর্মী স্বামীকে মারধর করে স্ত্রীকে ছিনিয়ে ছাত্রাবাসে চলে যায়। পরে স্বামী পিছু পিছু গেলে তাকে বেঁধে রেখে স্ত্রীকে ৫-৬ জন মিলে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। পরে ওই গৃহবধূকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

আরও পড়ুন-

এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে স্বামীকে বেঁধে রেখে স্ত্রীকে ‘গণধর্ষণ’
এমসি কলেজে গণধর্ষণের ঘটনা তদন্তে কমিটি, মামলা হলেও গ্রেফতার নেই

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন