বিজ্ঞাপন

‘শতায়ু হোক শেখ হাসিনা, ক্ষমতায় আসুক আরেকবার’

September 29, 2020 | 1:11 am

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার শতায়ু কামনা করেছেন প্রখ্যাত সাংবাদিক, সাহিত্যিক, অমর একুশের গানের রচয়িতা আবদুল গাফফার চৌধুরী। একইসঙ্গে শেখ হাসিনা যেন নির্বাচনে জয়ী হয়ে আরও একবার ক্ষমতায় আসতে পারেন, সেই প্রার্থনাও করেছেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

সোমবার (২৮ সেপ্টেম্বর) যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগ আয়োজিত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন উদযাপনে বিশেষ ওয়েবিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ আশাবাদ করেন। ওয়েবিনারে প্রধান বক্তা ছিলেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সভাপতি সুলতান মাহমুদ শরীফের সভাপতিত্বে ওয়েবিনার পরিচালনা করেন সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাজিদুর রহমান ফারুক।

ওয়েবিনারে বিশেষ অতিথি ছিলেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান বিষয়ক মন্ত্রী ইমরান আহমদ, আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ এবং বাংলাদেশ উইমেন চেম্বার অ্যান্ড কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের সিনিয়র সহসভাপতি সঙ্গীতা আহমেদ।

বিজ্ঞাপন

প্রধান অতিথির বক্তব্যে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার লড়াই সংগ্রামের বিভিন্ন দিক তুলে ধরে আবদুল গাফফার চৌধুরী বলেন, বাংলাদেশে তো বহু নেতা ছিল— বিলেত ফেরত নেতা, অক্সফোর্ড ফেরত নেতা, হাভার্ড ফেরত নেতা— কিন্তু বঙ্গবন্ধু হত্যার পরে তারা কেউ এগিয়ে এসে না আওয়ামী লীগ, না দেশটাকে উদ্ধারের চেষ্টা করতে পেরেছে। শেখ হাসিনা সাহসের সঙ্গে বুক পেতে দাঁড়িয়েছিলেন। সব ধরনের জীবনহানির চেষ্টার বিরুদ্ধে দাঁড়িয়ে তিনি আওয়ামী লীগকে সংগঠিত করেছেন। আওয়ামী লীগ একটাই আছে, একটাই ছিল এবং ভবিষ্যতেও থাকবে বলে আমি আশা করি এবং শেখ হাসিনাই সেই আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে দেবেন।

তিনি বলেন, শুধু গণতন্ত্র ফিরে এলেই দেশটা উন্নত হতো না। তলাবিহীন ঝুড়ি যে দেশটাকে বলা হতো, সে দেশটার অর্থনৈতিক ভিত্তি তিনি এতটাই শক্ত করেছেন যে বাংলাদেশ এখন অর্থনৈতিক উন্নতির দিক থেকে রোল মডেল। শুধু তাই নয়, বাঙালি জাতির আজীবনের কলঙ্ক বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার তিনি করেছেন, দোষীদের শাস্তি দিয়েছেন। বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর থেকে নানা ধরনের ষড়যন্ত্র-সন্ত্রাস একের পর চলেইছে। সব তিনি কঠোর হাতে সামলেছেন। আজ তিনি শুদ্ধি অভিযান চালাচ্ছেন দুর্নীতির বিরুদ্ধে। বঙ্গবন্ধু দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে যে লাল ঘোড়া দাবড়াতে চেয়েছিলেন, সেই লাল ঘোড়া ছুটিয়ে দিয়েছেন শেখ হাসিনা।

বিজ্ঞাপন

প্রবীণ এই সাংবাদিক বলেন, রাতারাতি দুর্নীতি দূর করা যায় না। কারণ এই দুর্নীতির বীজ করোনার মতো সর্বত্র ছড়িয়েছে, এমনকি আওয়ামী লীগের ভেতরেরও ছড়িয়েছে। তারপরও তিনি (শেখ হাসিনা) কারও প্রতি কোনো দুর্বলতা দেখাননি। সময় পেলে তাই তিনিই আওয়ামী লীগকে ফের বঙ্গবন্ধুর আদর্শের ভিত্তিতে একটি খাঁটি দলে পরিণত করতে পারবেন— তা নিয়ে সন্দেহ নেই। আমি তো তাকে বলি, তিনি একটি যুগ তৈরি করে যাবেন। আমরা এখনো শায়েস্তা খান, শের শাহ’র নাম শুনি। আমার বিশ্বাস— ইতিহাস একদিন বর্তমান সময়কে হাসিনার যুগ বলবে।

নারীর ক্ষমতায়ন, সংখ্যালঘু নির্যাতন বন্ধ করে তাদের ক্ষমতায়নের পথ সুগম করে দেওয়া— এসব বিষয়ে ভূমিকা রাখার জন্য শেখ হাসিনাকে রাজনৈতিক নেতার পাশপাশি সামাজিক নেতা হিসেবে অভিহিত করে গাফফার চৌধুরী। একইসঙ্গে বঙ্গবন্ধুর ছোট মেয়ে শেখ রেহানারও প্রশংসাও করেন তিনি। বলেন, তাকে (শেখ রেহানা) আমি বলি ইতিহাসের নেপথ্যের নায়িকা। বঙ্গবন্ধুর দুই কন্যার মধ্যে শেখ হাসিনা পেয়েছেন বঙ্গবন্ধুর সাহস, ত্যাগ ও দেশপ্রেম। শেখ রেহানা পেয়েছেন তার মায়ের ধৈর্য, দূরদর্শিতা, সহনশীলতা এবং সংগ্রামী চরিত্র। বঙ্গবন্ধুর পত্মী যেমন বঙ্গবন্ধুর রাজনীতির নেপথ্যে ছিলেন, শেখ রেহানাও তেমনি শেখ হাসিনার রাজনীতির নেপথ্যে আছেন। শেখ হাসিনার প্রতিটি বিপদে, গ্রেনেড হামলার সময়ও শেখ রেহানা তার পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন। তাকে সাহস জুগিয়েছেন। তাকে রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত নিতে সাহায্য করেন। এই দুই বোনের জন্য ইতিহাস স্থায়ী আসন করে দেবে।

বিজ্ঞাপন

‘আজ জন্মদিনে তার শতায়ু কামনা করি। তিনি আরেকবার বাংলাদেশের নির্বাচনে জয়ী হয়ে ক্ষমতায় আসুন— এই প্রার্থনা জানিয়ে শেখ হাসিনার দীর্ঘায়ু কামনা করি,’— বলেন আবদুল গাফফার চৌধুরী।

সারাবাংলা/এনআর/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন