বিজ্ঞাপন

অ্যানফিল্ডে আর্সেনালকে হারিয়ে অপরাজিত রইল লিভারপুল

September 29, 2020 | 2:58 am

স্পোর্টস ডেস্ক

প্রিমিয়ার লিগে ২০২০/২১ মৌসুম দুর্দান্ত শুরু করে আর্সেনাল, প্রথম দুই ম্যাচের দুটিতেই জিতে বেশ শক্ত অবস্থানে ছিল গানাররা। তবে অ্যানফিল্ডে প্রিমিয়ার লিগ চ্যাম্পিয়ন লিভারপুলের কাছে ৩-১ গোলের হেরে জয়রথ থামল আর্সেনালের। আর বিগ সিক্সের একমাত্র দল হিসেবে চলতি মৌসুমে এখন পর্যন্ত অপরাজিত রইল লিভারপুল। ম্যাচে প্রথমে পিছিয়ে পড়েও শেষ পর্যন্ত সাদিও মানে, রবার্টসন এবং জোটার গোলে ৩-১ ব্যবধানের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে অলরেডরা। এই জয়ে লেস্টারের সঙ্গে পয়েন্ট সমান নিয়েও গোল ব্যবধানে পিছিয়ে থাকায় লিগ টেবিলের দ্বিতীয়স্থানে অবস্থান করতে হচ্ছে ইয়্যুর্গেন ক্লপের দলকে।

বিজ্ঞাপন

অ্যানফিল্ডে ম্যাচের শুরুটা দুই পক্ষই দুর্দান্ত করে, ১৫ মিনিট অতিবাহিত হতে না হতেই গোলের সুযোগও তৈরি করে ফেলে দুদল। তবে গোলের সবচেয়ে বড় সুযোগ পেয়েছিলেন সাদিও মানে, ম্যাচের ১৫ মিনিটের সময় মানের জোরালো শট ঠেকিয়ে দেন আর্সেনাল গোলরক্ষক বার্নাড লেনো। এর ঠিক মিনিট ছয়েক পর গোলের আরও কাছে পৌঁছে যায় আর্নল্ড, তার দুর্দান্ত শট লেনোকে পরাস্থ করলেও ক্রসবারে লেগে ফিরে আসলে গোলবঞ্চিত হয় অলরেডরা।

তবে ম্যাচে সবার প্রথম বড় সুযোগ কাজে লাগান আর্সেনাল স্ট্রাইকার আলেক্সান্ডার লাকাজেথ। ম্যাচের ২৫ মিনিটে লিভারপুল ফুলব্যাক অ্যান্ড্রিউ রবার্টসনের ভুলে ডি বক্সে বল পেয়ে যান লাকাজেথ আর সেখান থেকে দুর্দান্ত ফিনিশে বল জালে আর আর্সেনাল এগিয়ে যায় ১-০ গোলের ব্যবধানে। তবে খুব বেশি সময় এই আনন্দ ধরে রাখতে পারেনি গানাররা। গোল হজমের মাত্র তিন মিনিট পরেই তা শোধ করেন সাদিও মানে। লিভারপুলের ডান প্রান্ত থেকে মোহাম্মদ সালাহর ক্রস থেকে ডি বক্সে বল পেয়ে যান মানে আর সঙ্গে সঙ্গে জোরালো শটও নেন। তবে তা রুখে দেন লেনো, কিন্তু ফিরতি বল আবারও মানের পায়ে এবার আর ভুল করেননি সজোরে বল পাঠিয়ে দেন জালে। আর তাতেই ১-১ গোলে সমতায় ফেরে চ্যাম্পিয়নরা।

বিজ্ঞাপন

অ্যানফিল্ডে আর্সেনালকে হারিয়ে অপরাজিত রইল লিভারপুল

অলরেড ফুলব্যাক রবার্টসনের ভুলে প্রথমে গোল হজম করতে হয়েছে দলকে। আর তাই তো ম্যাচের ৩৪ মিনিটে তারই যেন প্রতিদান দিলেন এই ইংলিশ ডিফেন্ডার। আরেক ইংলিশ ফুলব্যাক ট্রেন্ট আলেক্সান্ডার আর্নল্ডের ক্রস এসে পড়ে রবার্টসনের পায়ে। সেখান থেকে গানার গোলরক্ষক লেনোর ওপর দিয়ে বল পাঠিয়ে দেন জালে। আর দলকে ম্যাচে প্রথমবারের মতো এগিয়ে নেন রবার্টসন। যার ভুলে দল পিছিয়ে পড়েছিলে ১-০'তে আর সেই রবার্টসনই গোল করে দলকে এগিয়ে নিলেন ২-১ গোলের ব্যবধানে।

বিজ্ঞাপন

প্রথমার্ধের বাকি সময়টাতে গোলের তেমন আর সুযোগ তৈরি হয়নি। আর তাই তো ম্যাচে প্রথমে এগিয়ে গিয়েও চ্যাম্পিয়নদের মাঠে ২-১ গোলে পিঁছিয়ে পড়ে বিরতিতে যেতে হয় গানারদের।

তিন বছর আগে লিভারপুলের হয়ে অভিষেকের পর রবার্টসন চারটি গোল এবং ২৯টি অ্যাসিস্টে মোট ৩৩ গোলে অবদান রেখেছেন। অ্যানফিল্ডে দ্বিতীয়ার্ধে আরও আক্রমণাত্মক অলরেডরা। মানে-সালাহ-ফিরমিনোদের প্রেসিংয়ের সামনে যেন খেই হারিয়ে ফেলে আর্সেনালের খেলোয়াড়রা। তাই তো একের পর এক আক্রমণ করতে থাকে রেডরা। এদিকে কিছু সুযোগ আসে গানারদেরও তবে অ্যালিসন বেকারের দৃঢ় এবং বিশ্বস্ত হাতে রক্ষা পায় লিভারপুল।

বিজ্ঞাপন

ম্যাচের অন্তিম মুহূর্তে এসে গানারদের কফিনে শেষ পেরেকটি ঠুকে দেন লিভারপুলের নতুন সংযোজন ডিয়োগো জোটা। আর্নল্ডের ক্রস ডি বক্স থেকে ক্লিয়ার করেন গানার ডিফেন্ডার ডেভিড লুইজ, তবে তা গিয়ে পড়ে জোটার পায়ে। আর বলটি হাঁটু দিয়ে নিয়ন্ত্রণে এনে বাঁ-প্রান্তের কোণা ঘেষে ভলিতে দুর্দান্ত গোল করেন জোটা। আর তাতেই ৩-১ গোলের জয় নিশ্চিত হয় প্রিমিয়ার লিগের বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের।

এই নিয়ে ২০২০/২১ মৌসুমের প্রিমিয়ার লিগের প্রথম তিন ম্যাচের তিনটিতে জয় পেল ইয়্যুর্গেন ক্লপের দল। আর প্রথম দুই ম্যাচ জেতা আর্সেনালের জয়রথ থামল অ্যানফিল্ডে এসে। এই জয়ে লিগ টেবিলের দুইয়ে উঠে এসেছে লিভারপুল। আর হেরে পয়েন্ট খুইয়ে পাঁচে নেমে গেছে আর্সেনাল।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এসএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন