বিজ্ঞাপন

এমসি কলেজে দলবদ্ধ ধর্ষণ: দিরাই থেকে গ্রেফতার ২য় আসামি তারেক

September 29, 2020 | 7:58 pm

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: সিলেট মুরারীচাঁদ (এমসি) কলেজ ছাত্রাবাসে স্বামীকে বেঁধে রেখে স্ত্রীকে দলবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় দায়ের করা মামলার দুই নম্বর আসামি তারেককে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব।

বিজ্ঞাপন

মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে র‍্যাব-৯-এর একটি দল সুনামগঞ্জের দিরাই থেকে তাকে গ্রেফতার করে।

র‍্যাব-৯-এর অধিনায়ক লে. কর্নেল আবু মুছা মো. শরীফুল ইসলাম সারাবাংলাকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, তারেককে থানায় হস্তান্তর করার প্রক্রিয়া চলছে।

বিজ্ঞাপন

এর আগে এ ঘটনায় র‌্যাব ও পুলিশ পৃথক পৃথক অভিযান চালিয়ে মামলার এজাহারভুক্ত আসামি সাইফুর রহমান, অর্জুন লস্কর, মাহবুবুর রহমান রনি, রবিউল ইসলাম, আইনুদ্দীন, রাজন ও মাসুমকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতার হওয়া আসামিদের প্রত্যেককে জিজ্ঞাবাসাদের জন্য পাঁচ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

এর আগে, গত ২৫ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় এমসি কলেজে ঘুরতে আসা এক দম্পতিকে আটক করে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা জোর করে ছাত্রাবাসে তুলে নিয়ে যান বলে অভিযোগ পাওয়া যায়। জানা যায়, তারা স্বামীকে বেঁধে রেখে ওই তরুণীকে সংঘবদ্ধভাবে ধর্ষণ করেন।

বিজ্ঞাপন

এ ঘটনায় ধর্ষণের শিকার তরুণীর স্বামী ওই দিন (শুক্রবার) রাতেই বাদী হয়ে শাহপরাণ থানায় মামলা দায়ের করেন। ছয় জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা আরও দুই-তিন জনকে আসামি করা হয় মামলায়। তারা হলেন— এম সাইফুর রহমান, শাহ মাহবুবুর রহমান রনি, তারেক আহমদ, অর্জুন লস্কর, রবিউল ইসলাম ও মাহফুজুর রহমান মাসুম। তারা সবাই ছাত্রলীগের রাজনীতিতে যুক্ত। এর মধ্যে তারেক ও রবিউল বহিরাগত, বাকিরা এমসি কলেজের শিক্ষার্থী। আজ তারেক গ্রেফতার হওয়ার মাধ্যমে ধর্ষণ মামলাটির এজাহারভুক্ত সব আসামি গ্রেফতার হলেন।

আরও পড়ুন-

বিজ্ঞাপন

এমসি কলেজে গণধর্ষণ: সাইফুর-লস্কর গ্রেফতার

এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে স্বামীকে বেঁধে রেখে স্ত্রীকে ‘গণধর্ষণ’

বিজ্ঞাপন

এমসি কলেজে গণধর্ষণের প্রতিবাদে মেয়রের নেতৃত্বে পদযাত্রা

এমসি কলেজে গণধর্ষণ: রনি-রাজন-আইনুল ৫ দিনের রিমান্ডে

এমসি কলেজে গণধর্ষণ: মামলার ৬নং আসামি মাহফুজ গ্রেফতার

এমসি কলেজে গণধর্ষণ: তিন আসামি ৫ দিনের রিমান্ডে, চলছে প্রতিবাদ

এমসি কলেজে গণধর্ষণের ঘটনা তদন্তে কমিটি, মামলা হলেও গ্রেফতার নেই

সারাবাংলা/এসএইচ/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন