বিজ্ঞাপন

কলেজ ক্যাম্পাসে বহিরাগত প্রবেশে নিষেধাজ্ঞাসহ ৯ নির্দেশনা

September 29, 2020 | 8:29 pm

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: দেশের সব সরকারি-বেসরকারি কলেজ ক্যাম্পাসে বহিরাগত প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। একইসঙ্গে কলেজের ছাত্রবাস বন্ধ করে ক্যাম্পাসে নিরাপত্তার জন্য পুলিশ টহলের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

মঙ্গলবার (২৯ সেপ্টেম্বর) মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতর (মাউশি) এ আদেশ জারি করেছে। মাউশি’র উপপরিচালক (কলেজ-১) অধ্যাপক ড. শাহ মো. আমির আলীর সই করা আদেশটি দেশের সব সরকারি-বেসরকারি কলেজের অধ্যক্ষের কাছে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।

কোভিড-১৯ প্রাদুর্ভাবের কারণে বন্ধ সরকারি ও বেসরকারি কলেজে নিরাপত্তা নিশ্চিত করাসহ সরকারি নির্দেশনা বাস্তবায়ন করতে বলা হয়েছে চিঠিতে। এতে দেওয়া হয়েছে ৯ দফা নির্দেশনা।

বিজ্ঞাপন

চিঠিতে বলা হয়েছে, চিঠিতে বলা হয়েছে, নভেল করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বিগত ১৮ মার্চ থেকে দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার ফলে কলেজ ক্যাম্পাসগুলোতে নিরাপত্তা বজায় রাখাসহ কলেজের সব সরকারি সম্পদ ও সরঞ্জামের সুরক্ষা নিশ্চিত করার বিষয়ে প্রতিষ্ঠান প্রধানকে সচেষ্ট থাকতে হবে।

এ ক্ষেত্রে ৯ দফা সরকারি নির্দেশনার আলোকে জরুরিভিত্তিতে পদক্ষেপ নিতে বলা হয়ৈছে প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রধানদের। নির্দেশনাগুলো হলো—

বিজ্ঞাপন

১. অনলাইন ক্লাস কার্যক্রম চালু রাখতে হবে এবং আঞ্চলিক পরিচালককে ক্লাস নেওয়ার তথ্য দিতে হবে;
২. প্রতিষ্ঠানে ভিজিল্যান্স টিম গঠন করতে হবে এবং প্রতিষ্ঠান প্রধানের কাছে নিয়মিত পরিদর্শন প্রতিবেদন দাখিল করতে হবে;
৩. শিক্ষার্থীদের অনলাইন ক্লাসে অংশগ্রহণ মনিটরিং ও অভিভাবকের সঙ্গে সংযোগ করতে হবে;
৪. শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার নির্দেশনা দিতে হবে;
৫. কলেজ ক্যাম্পাসে বিনা প্রয়োজনে জনসাধারণের প্রবেশ নিষিদ্ধ করতে হবে
৬. কলেজের বিজ্ঞানাগার ল্যাব, আইসিটি ল্যাব, লাইব্রেরীসহ সার্বিক সরকারি সম্পত্তি ও নথি রক্ষার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হবে;
৭. ছাত্রাবাসগুলো বন্ধ রাখতে হবে এবং ছাত্রাবাসের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে;
৮. প্রতিষ্ঠানে মূল ফটকসহ সব প্রবেশপথে সার্বক্ষণিক প্রহরী নিয়োজিত রাখতে হবে; এবং
৯. স্থানীয় প্রশাসনের সহযোগিতায় ক্যাম্পাসে পুলিশি টহল জোরদার করতে হবে।

গত শুক্রবার (২৫ সেপ্টেম্বর) সিলেটের মুরারীচাঁদ (এমসি) কলেজে স্বামীকে বেঁধে রেখে স্ত্রীকে দলবদ্ধভাবে ধর্ষণের ঘটনাটি দেশব্যাপী আলোড়ন ফেলে। মার্চ থেকে কলেজ ক্যাম্পাস বন্ধ থাকলেও ওই দিন কিভাবে ছাত্রাবাস খোলা ছিল এবং সেখানে শিক্ষার্থীরাই বা কী করছিলেন— তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। এই আলোচনা-সমালোচনার মধ্যেই মাউশি’র পক্ষ থেকে এই নির্দেশনা এলো।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/জেআর/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন