বিজ্ঞাপন

রমনা পার্কের সৌন্দর্যবর্ধন: ১১ মাসে অগ্রগতি ১১ শতাংশ!

September 29, 2020 | 9:12 pm

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: রাজধানী ঢাকার ফুসফুস রমনা পার্কের সৌন্দর্যবর্ধনে ১১ মাস আগে প্রকল্প শুরু করেছিল গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়। চলতি বছরের ডিসেম্বর পর্যন্ত প্রকল্পটির মেয়াদ। অথচ ১১ মাস পরে এসে জানা গেল, কাজ হয়েছে মাত্র ১১ শতাংশ!

বিজ্ঞাপন

মঙ্গলবার (২৯ সেপ্টেম্বর) জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে এমন ‘অগ্রগতি’র তথ্য উঠে এসেছে। এ নিয়ে ক্ষোভ জানিয়ে দ্রুত প্রকল্পের কাজ শেষ করার তাগিদ দিয়েছে সংসদীয় কমিটি।

বৈঠকে ‘ঢাকাস্থ রমনা পার্কের অবকাঠামোগত উন্নয়ন এবং রমনা লেকসহ সার্বিক সৌন্দর্য বৃদ্ধিকরণ’ শীর্ষক প্রকল্পটি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়। কমিটির সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেনের সভাপতিত্বে বৈঠকে গৃহায়ন ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদ, কমিটি সদস্য নারায়ণ চন্দ্র চন্দ, বজলুল হক হারুন, মো. জিল্লুল হাকিম, মো. মনোয়ার হোসেন চৌধুরী, সৈয়দা জোহরা আলাউদ্দিন ও বেগম ফরিদা খানম এবং সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বিজ্ঞাপন

কমিটি সূত্র জানায়, রমনা পার্কের সৌন্দর্যবর্ধনের জন্য প্রকল্পটির কাজ শুরু হয় গত বছরের নভেম্বরে। ৩৪ কোটি ৪৮ লাখ টাকার প্রকল্পটিতে পার্কের ভেতর ১৫ ধরনের কাজ করার কথা রয়েছে। এর মধ্যে লেক পুনঃখনন, সিরামিকে আবৃত ফুটপাত নির্মাণ ছাড়াও রয়েছে উন্মুক্ত কফি কর্নারসহ রেস্তোরাঁ নির্মাণ, শিশু কর্নারের আধুনিকায়ন, সেতু নির্মাণ ও শৌচাগারের আধুনিকায়ন। এর মধ্যে ১১ মাস পেরিয়ে গেলেও প্রকল্পের সড় প্রকল্পের সড়ক সংস্কারের কাজ শুরু হয়েছে মাত্র।

সংসদ সচিবালয় জানায়, বৈঠকে চট্টগ্রামের অন্যতম বিনোদন কেন্দ্র পাঁচলাইশ আবাসিক এলাকার জাতিসংঘ পার্ক আধুনিকায়নের লক্ষ্যে সিটি করপোরেশন থেকে অনাপত্তিপত্র দেওয়ায় নতুন করে কাজ শুরুর সুপারিশ করা হয়। এছাড়া তেজগাঁওয়ে গণপূর্ত অধিদফতরের যেসব জায়গা বেদখলে আছে, সেগুলো দখলমুক্ত করে সরকারি কর্মচারীদের জন্য আবাসিক ভবন নির্মাণে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এএইচএইচ/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন