বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ কখনোই জঙ্গিবাদকে প্রশ্রয় দেয়নি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

October 1, 2020 | 3:31 am

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: বাংলাদেশ কখনোই জঙ্গিবাদকে আশ্রয়-প্রশ্রয় দেয়নি, দেবেও না বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। বর্তমান সরকার জঙ্গিবাদ ও উগ্রবাদের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি ঘোষণা করেছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

মন্ত্রী বলেন, এটা শুধু মুখের কথা নয়। সরকারের বিভিন্ন কমিটমেন্ট ও গৃহীত কার্যক্রমের ফলে এটা এখন দৃশ্যমান বাস্তবতা। জঙ্গিবাদ দমনে প্রধানমন্ত্রী আপসহীন ও আন্তরিক। তিনি পুলিশ বাহিনীর আধুনিকায়নে সব ধরনের পদক্ষেপ নিয়েছেন।

বুধবার (৩০ সেপ্টেম্বর) পুলিশের অ্যান্টি টেরোরিজম ইউনিট (এটিইউ) পরিদর্শন শেষে আয়োজিত এক মতবিনিময় সভায় তিনি এ কথা বলেন।

বিজ্ঞাপন

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, হলি আর্টিজান হামলার পর দ্রুততম সময়ে সামগ্রিক প্রয়োজনের ভিত্তিতে আমরা অ্যান্টি টেরোরিজম ইউনিট গঠন করেছি, আইনগত শক্তিশালী ভিত্তিভূমির ওপর দাঁড় করিয়েছি। অত্যন্ত স্বল্প সময়ের মধ্যে বিশেষায়িত এ সংস্থাটি প্রতিষ্ঠাকালীন প্রতিকূলতা সত্ত্বেও জনমানুষের আস্থা অর্জন করতে পেরেছে। বেশকিছু উল্লেখযোগ্য সাফল্যও পেয়েছে।

পুলিশের অ্যান্টি টেরোরিজম ইউনিটের সক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য প্রয়োজনীয় সব ধরনের পদক্ষেপ নেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

বিজ্ঞাপন

সভায় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিব মোস্তাফা কামাল উদ্দীন বলেন, বর্তমান সরকার পুলিশের সার্বিক উন্নয়নে অত্যন্ত আন্তরিক। সরকার বাংলাদেশ পুলিশকে তথ্যপ্রযুক্তিনির্ভর আধুনিক বাহিনী হিসেবে গড়ে তুলতে সব ধরনের কর্মপরিকল্পনা নিয়েছে। জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদ দমনের লক্ষ্যে গঠিত এটিইউ’র সক্ষমতা বৃদ্ধির বিষয়টি বর্তমানে সরকার গুরুত্ব দিয়ে বিবেচনা করছে।

পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ বলেন, সরকারের একটি অগ্রাধিকারমূলক ইস্যু হচ্ছে উগ্রবাদ ও সন্ত্রাসবাদ দমন। বিগত এক দশকে বাংলাদেশ পুলিশ জঙ্গিবাদকে একটি সহনীয় মাত্রায় নিয়ে আসতে পেরেছে। জঙ্গিবাদ মোকাবিলায় এটিইউ’র সক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য প্রয়োজনীয় সরঞ্জামাদি ও প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা আমরা সর্বোচ্চ আন্তরিকতা ও গুরুত্বের সঙ্গে দেখছি।

বিজ্ঞাপন

মতবিনিময় সভায় অ্যান্টি টেররিজম ইউনিটের প্রধান অতিরিক্ত আইজিপি মো. কামরুল আহসানের সভাপতিত্ব ডিএমপি কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম, ডিআইজি মো. দিদার আহাম্মদসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

ফাইল ছবি

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/ইউজে/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন