বিজ্ঞাপন

সবুজবাগে বাসার বাথরুমে ওড়নায় ঝুলন্ত কিশোরীর লাশ

October 1, 2020 | 5:57 am

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: রাজধানীর সবুজবাগের একটি বাসার বাথরুমের ঝর্ণার সঙ্গে ওড়নায় ঝুলন্ত অবস্থায় আনিকা আক্তার (১৪) নামে এক কিশোরীকে উদ্ধার করা হয়। অচেতন অবস্থায় হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। স্বজনরা বলছেন, মেয়েটি আত্মহত্যা করেছে। তবে এর পেছনে কী কারণ থাকতে পারে, সে সম্পর্কে কিছু বলতে পারেননি তারা।

বিজ্ঞাপন

বুধবার (৩০ সেপ্টেম্বর) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে সবুজবাগ মায়াকানন এলাকার বাসা থেকে আনিকাকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। পরে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক দুপুর ১টার দিকে তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

আনিকা শরিয়তপুর জেলার নড়িয়া উপজেলার আটপাড়া গ্রামের মো. আলমের মেয়ে। দুই ভাই-বোনের মধ্যে আনিকা বড়। পরিবারের সঙ্গে মায়াকাননের পাঁচ তলা ওই বাসার পঞ্চম তলায় থাকত কমলাপুর স্কুল অ্যান্ড কলেজের অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী আনিকা।

বিজ্ঞাপন

ঢামেক হাসপাতালে আনিকার চাচা মো. শাহিন জানান, দুপুর ১২টার দিকে বাথরুমে গোসল করতে ঢোকে আনিকা। অনেকক্ষণ ধরে বাথরুম থেকে তার কোনো সাড়াশব্দ না পেলে পরিবারের সদস্যরা তাকে ডাকাডাকি করেন। জবাব না পাওয়া গেলে একপর্যায়ে বাথরুমের দরজা ভেঙে ফেলেন তারা। ভেতরে ঝর্ণার সঙ্গে ওড়না পেচিয়ে গলায় ফাঁস দেওয়া অবস্থায় আনিকাকে পাওয়া যায়। পরে তারা হাসপাতালে নিয়ে যান তাকে।

ঢামেক হাসপাতালের পুলিশ বক্সের ইনচার্জ (পরিদর্শক) মো. বাচ্চু মিয়া বলেন, অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে মেয়েটিকে ঢামেক হাসপাতালে আনা হয়েছিল। তবে হাসপাতালে আনার আগেই তার মৃত্যু হয়েছিল। এখানে আনার পরই চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ময়নাতদন্তের জন্য মেয়েটির মরদেহ মর্গে পাঠানো হয়েছে। স্বজনরা আত্মহত্যা ধারণা করলেও এর কোনো কারণ জানাতে পারেনি।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এসএসআর/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন