বিজ্ঞাপন

‘অপ্রত্যাশিত’ ফল নিয়ে হতাশ মানিক

October 3, 2020 | 11:38 pm

স্পোর্টস করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: বাফুফে নির্বাচনে কাজী সালাউদ্দিনের বিপরীতে শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বী ধরা হয়েছিল শফিকুল ইসলাম মানিককে। কিন্তু অনেকটা অপ্রত্যাশিত ফল দেখা গেল ব্যালট বাক্সের গণনায়। ১৩৬টি ভোটের মধ্যে মানিকের খাতায় ভোট পড়েছে মাত্র একটি! এই ফলকে অপ্রত্যাশিত বলছেন শেখ জামালের এই কোচ। সঙ্গে নির্বাচনের এই ফলে নিজের ক্যারিয়ারে কোনো নেতিবাচক প্রভাব পড়বে না বলেও মনে করেন মানিক। সারাবাংলা ডটনেটের সঙ্গে একান্ত সাক্ষাৎকারে বাফুফে নির্বাচন নিয়ে নিজের প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা: নির্বাচনের ফল নিয়ে আপনার প্রতিক্রিয়া কী?

শফিকুল ইসলাম মানিক: প্রত্যাশা অনুযায়ী হয়নি। সবার কাছ থেকে যে আশ্বাস পেয়েছিলাম, সে অনুযায়ী ফল হয়নি অবশ্যই। আমি মনে করি, এর পেছনে অনেক কারণ রয়েছে। সেগুলোর মধ্যে অন্যতম গতকাল রাতে ঘটে যাওয়া ঘটনাগুলো। যেমন— বাদল রায়ের প্রত্যাবর্তন। তাছাড়া কাউন্সিলরদের বিভিন্নভাবে প্রভাবিত করা হয়েছে। আমি তাদের সঙ্গে কথা বলেছি। কিন্তু এই ভোটগুলো গেল কোথায়? তারা নিশ্চিত করেছিলেন আমাকে। কিন্তু আমি পয়সা দেইনি বলে (ভোট দেয়নি আমাকে)? তাই আমার মতে এই ফল প্রত্যাশিত না।

বিজ্ঞাপন

আরও পড়ুন- চতুর্থবারের মতো বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন

সারাবাংলা: আশ্বাস দিয়ে ভোটাররা কেন ভোট দিলো না বলে মনে করেন?

বিজ্ঞাপন

মানিক: জনগণের রায় কিন্তু সালাউদ্দিন ভাইয়ের বিপক্ষে। তাই বলব, নিবার্চনে আশার বিপক্ষে একটি রায় হয়েছে। জনগণ চাচ্ছে পরিবর্তন। কাউন্সিলররা ওপর থেকে বলেছেন যে তারাও পরিবর্তনে বিশ্বাসী। কিন্তু তারা যে প্রকৃত অর্থে পরিবর্তনে বিশ্বাসী নন, তারই বহিঃপ্রকাশ এই ফল। তবে ফুটবলের উন্নয়নে কী কাজ করতে হবে, সেটি করা কাউন্সিলরদের দায়িত্ব। আগামী চার বছর ফুটবলের জন্য তাদের দায়বদ্ধতা সবচেয়ে বেশি থাকবে। ফেডারেশনের চেয়েও কাউন্সিলরদের দায়বদ্ধতা বেশি।

আরও পড়ুন- সালাউদ্দিন-মুর্শেদী প্যানেলের নিরুঙ্কুশ জয়

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা: নির্বাচনে কাউন্সিলরদের দায়বদ্ধতা দেখেন?

মানিক: এই ফল অনাকাঙ্ক্ষিত। সম্মানিত কাউন্সিলররা ভোটিংয়ের মাধ্যমে যে ফল দিয়েছেন, আমি মনে করি তাতে দায়বদ্ধতার প্রতিফলন নেই। তাদের দায়বদ্ধতা আগেও ছিল না। ফুটবলের প্রতি তাদের কোনো দায়বদ্ধতাই নেই। জনগণের প্রত্যাশার সঙ্গে প্রতারণা করেছেন কাউন্সিলররা।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা: কোচিং ক্যারিয়ারে ফলের প্রভাব পড়বে?

মানিক: আমি ফুটবলের লোক। পরাজয় হলে, ফাইনালে হেরে গেলে পরের দিনই আমাকে খেলা নিয়ে ভাবতে হয়। পরের টুর্নামেন্ট নিয়ে ভাবি। এটাই আমাকে করতে হবে।

সারাবাংলা/জেএইচ

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন