বিজ্ঞাপন

প্রতিবেশীর ধর্ষণের শিকার মেয়েকে হত্যা করল বাবা ও ভাই

October 7, 2020 | 12:09 pm

রোকেয়া সরণি ডেস্ক

প্রতিবেশীর ধর্ষণের শিকার হয়ে অন্তঃসত্ত্বা এক কিশোরীকে বাবা ও ভাই মিলে হত্যা করেছে। পরিবারের ‘লজ্জা’ ঢাকতেই এমনটা করেছে বলে জানিয়েছে তারা। ভারতের উত্তরপ্রদেশের শাহজাহানপুর জেলায় এ ঘটনা ঘটেছে।

বিজ্ঞাপন

হিন্দুস্তান টাইমসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ১৬ বছর বয়েসি কিশোরীকে ধর্ষণ করে তার এক প্রতিবেশী। এতে কিশোরী মেয়েটি অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে। এ ঘটনা গ্রামে ছড়িয়ে পড়লে মেয়েটির পরিবারের সদস্যরা “লজ্জা বোধ” করছিল। শেষ পর্যন্ত মেয়েটিকে পরিবারের “সম্মান রক্ষায়” শ্বাসরোধ করে হত্যা করে তার বাবা ও ভাই। মৃত মেয়েটির দেহ নদীর তীরে মাটিতে পুতে রাখে তারা। এ ঘটনায় দুই জনকে গ্রেফতার করেছে স্থানীয় পুলিশ।

শাহজাহানপুরের পুলিশ কর্মকর্তা এস আনন্দ জানান, বর্বর এ ঘটনায় দুই জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের হয়েছে। পুলিশ দুই আসামীকে গ্রেফতার করেছে। পুলিশ পরিবারের অন্য সদস্যদের জেরা করে জানতে পারে, মেয়েটির বাবা ও ভাই ছাড়া আর কেউ এ কাজে জড়িত ছিল না।

বিজ্ঞাপন

ওই পুলিশ কর্মকর্তা জানান, মেয়েটি দলিত একটি পরিবারের— সে কোনোদিন স্কুল পর্যন্ত যায়নি। প্রতিবেশীদের কেউ তাকে ধর্ষণ করেছিল, ফলে সে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে। ধর্ষণের শিকার মেয়েটি মৃত্যুর আগ পর্যন্ত একটি কথাও আর উচ্চারণ করেনি। তিনি বলেন, ওই ধর্ষককে খুঁজে বের করে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

জানা গেছে, গত ২৩ সেপ্টেম্বর থেকে নিখোঁজ ছিল ওই কিশোরী। তবে পরিবারের পক্ষ থেকে কোনো সাধারণ ডায়েরি করা হয়নি। ৬ অক্টোবর তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

বিজ্ঞাপন

উল্লেখ্য, ভারত ও পাকিস্তানের প্রত্যন্ত অঞ্চলে, ধর্ষণ বা নিপীড়নের শিকার নারীদের পরিবারের কথিত সম্মানরক্ষার্থে বা অনার কিলিংয়ের নামে প্রায়ই হত্যা করে পরিবারের সদস্যরা।

সারাবাংলা/আইই

বিজ্ঞাপন

Tags: ,

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন