বিজ্ঞাপন

‘আমারও মনটা পড়ে থাকল, হাওরের এই সড়কে কবে যাব’

October 8, 2020 | 1:49 pm

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: ‘আমারও মনটা পড়ে থাকল, কবে এই রাস্তা দিয়ে একটু গাড়িতে চড়ে যাব। ইনশাল্লাহ, করোনাভাইরাস গেলে আমি অবশ্যই আসবো, এতে কোনো সন্দেহ নেই’—কিশোরগঞ্জের মিঠামইন ও অষ্টগ্রামের অল ওয়েদার সড়কের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এসব কথা বলেন।

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার (৮ অক্টোবর) সকালে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে অল ওয়েদার সড়কের উদ্বোধন ঘোষণা শেষে তিনি এ ইচ্ছা পোষণ করেন।

এই সড়কের কারণে হাওর এলাকায় সড়ক পথে সারাবছর যাতায়াতসহ নানা সম্ভাবনার দ্বার খুলল হাওরবাসীর জীবনে।

বিজ্ঞাপন

অনুষ্ঠানে গণভবন প্রান্তে স্বাগত বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন প্রধানমন্ত্রীর মূখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস। শুরুতে উদ্বোধনকৃত প্রকল্পের ওপর ভিডিও চিত্র ও সংক্ষিপ্ত উপস্থাপনা করেন সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব নজরুল ইসলাম।

এছাড়া গণভবন প্রান্তে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। মিঠামইন প্রান্ত থেকে মোনাজত অনুষ্ঠিত হয়। মোনাজাত পরিচালনা করেন মাওলানা ইয়াকুব আলী।

বিজ্ঞাপন

ঢাকার গণভবন থেকে মিঠামইনে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ মিলনায়তনে যুক্ত হন প্রধানমন্ত্রী। মিঠামইন প্রান্তে জেলা প্রশাসক মো. সারওয়ার মুর্শেদ অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন। সেখানে স্থানীয় সংসদ সদস্য রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক, স্থানীয় নেতা ও কয়েকজন স্থানীয় উপকারভোগী মতবিনিময় করেন। এছাড়া প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও গণ্যমান্য ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।।

স্থানীয় নেতা ও বিভিন্ন উপকারভোগীর কথা শোনেন প্রধানমন্ত্রী। বিভিন্ন জনের কথা শুনে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আপনারা খুশী থাকেন, ভালো থাকেন সেটাই আমি চাই।’

বিজ্ঞাপন

সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমার মনটা পড়ে থাকল যে, এই রাস্তা দিয়ে কবে আমি একটু গাড়িতে চড়ে যাব। ইনশাল্লাহ, করোনাভাইরাস গেলে আমি আসব। অবশ্যই আমি আসবো, এতে কোন সন্দেহ নাই। কারণ আমারও ইচ্ছা ছিল, মহামান্য রাষ্ট্রপতিও চাচ্ছিলেন আমি যেন সশরীরে যাই। কিন্তু আসলে তো এই করোনার কারণে যাওয়া হল না। এই দুর্দিন না থাকলে যখনই সুযোগ পাব, সবার আগে আমি এই জায়গায় আসবো, এই রাস্তায় আসবো এবং ইটনা মিঠামইন অষ্টগ্রাম আমি যাবো।’

কিশোরগঞ্জের হাওর উপজেলা ইটনা, মিঠামইন ও অষ্টগ্রামে অল ওয়েদার সড়কের স্থানীয়ভাবে ‘আবুরা’ সড়ক নামে পরিচিত। হাওরের প্রকৃতি পরিবেশ, বিস্তৃত জলরাশি উপভোগ করতে প্রায় প্রতিদিন হাজারও পর্যটক সমাগম হচ্ছে।

বিজ্ঞাপন

হাওর অধ্যুষিত ইটনা, মিঠামইন ও অষ্টগ্রাম উপজেলা সদরের মধ্যে সংযোগ রক্ষাকারী ২৯ দশমিক ৭৩ কিলোমিটার দীর্ঘ সড়কটি উদ্বোধনের মাধ্যমে যুগের পর যুগ ধরে অবহেলিত হাওরবাসীর জন্য যোগাযোগের ক্ষেত্রে এক নবদিগন্তের উন্মোচন হবে। এর মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা বাস্তবায়নে যুক্ত হবে সফলতার আরও একটি নতুন মাত্রা যোগ হল। ৮৭৪ কোটি ৮ লাখ টাকা ব্যয়ে নির্মিত এই সড়কটি ভবিষ্যতে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের সঙ্গে যুক্ত করা হবে।

রাষ্ট্রপতি ২০১৬ সালের ৪ এপ্রিল আনুষ্ঠানিকভাবে ইটনা-মিঠামইন-অষ্টগ্রাম প্রকল্পের নির্মাণকাজের উদ্বোধন করেন। গত ২০ জুলাই গাড়িতে চড়ে তিনি কিশোরগঞ্জের ইটনা-মিঠামইন-অষ্টগ্রাম অলওয়েদার সড়ক পরিদর্শন করেন। একটা সময় হাওর ছিল শহর থেকে বিচ্ছিন্ন একটি জনপদ। যেখান থেকে একমাত্র যাতায়াতের বাহন ছিল নৌকা, লঞ্চ বা স্টিমার। কিন্তু এসব কিছু যেন এখন সোনালি অতীত। অল ওয়েদার সড়ক হাওর এলাকার বাসিন্দাদের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে। ফসল আনা নেওয়া, শিক্ষা, ব্যবসাসহ সব ক্ষেত্রে লেগেছে আধুনিকতার ছোঁয়া। আগামীতে সড়কটি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগর পর্যন্ত বৃদ্ধির মাধ্যমে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের সঙ্গে যুক্ত হবে কিশোরগঞ্জের হাওরাঞ্চল।

সারাবাংলা/এনআর/এমআই

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন