বিজ্ঞাপন

১৫ জনের মৃত্যুর দিনে শনাক্ত ১৬০০

October 15, 2020 | 4:48 pm

সারাবাংলা ডেস্ক

শেষ ২৪ ঘণ্টায় সারাদেশে করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) সংক্রমণ নিয়ে ১৫ জন মারা গেছেন। একই সময়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন ১ হাজার ৬০০ জন। আর এ সময়ে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ থেকে সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৭৮০ জন।

বিজ্ঞাপন

শেষ ২৪ ঘণ্টার হিসাব মিলিয়ে দেশে করোনাভাইরাসে সংক্রমিত ৩ লাখ ৮৪ হাজার ৫৫৯ জন শনাক্ত হলেন। এর মধ্যে সংক্রমণ নিয়ে মারা গেলেন ৫ হাজার ৬০৮ জন। আর মোট সুস্থ হয়ে উঠেছেন ২ লাখ ৯৯ হাজার ২২৯ জন।

বৃহস্পতিবার (১৫ অক্টোবর) স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানার সই করা এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের করোনা পরিস্থিতির এ চিত্র তুলে ধরা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী, দেশে শেষ ২৪ ঘণ্টায় মোট ১০৯টি ল্যাবে করোনাভাইরাসের নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। এসব ল্যাবে মোট নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ১৪ হাজার ২৬১টি। এর মধ্যে আগের নমুনাসহ মোট নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ১৪ হাজার ১০৪টি। এ নিয়ে দেশে করোনাভাইরাসের নমুনা পরীক্ষা হলো মোট ২১ লাখ ২৬ হাজার ৫৫২টি।

গত ২৪ ঘণ্টায় যে নমুনা পরীক্ষা হয়েছে, তার বিপরীতে শনাক্ত হয়েছেন ১ হাজার ৬০০ জন। নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে এদিন শনাক্তের হার ১১ দশমিক ৩৪ শতাংশ। এ নিয়ে এ পর্যন্ত মোট করোনায় আক্রান্ত ব্যক্তি শনাক্ত হলেন ৩ লাখ ৮৪ হাজার ৫৫৯ জন। এখন পর্যন্ত মোট নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে মোট শনাক্তের হার ১৮ দশমিক ০৮ শতাংশ।

বিজ্ঞাপন

এদিকে, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসের সংক্রমণ থেকে সুস্থ হয়েছেন আরও ১ হাজার ৭৮০ জন। সব মিলিয়ে দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত মোট ২ লাখ ৯৯ হাজার ২২৯ জন সুস্থ হয়ে উঠলেন। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার এখন ৭৭ দশমিক ৮১ শতাংশ।

এদিকে, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা সংক্রমণ নিয়ে যে ১৫ জন মারা গেছেন, তাদের নিয়ে এখন পর্যন্ত মোট মারা গেলেন ৫ হাজার ৬০৮ জন। করোনা সংক্রমণ শনাক্তের বিপরীতে মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৪৬ শতাংশ।

বিজ্ঞাপন

গত ২৪ ঘণ্টায় যে ১৭ জন মারা গেছেন, তাদের মধ্যে পুরুষ ৯ জন, বাকি ছয় জন নারী। তাদের সবাই হাসপাতালে মারা গেছেন। এখন পর্যন্ত করোনায় মৃত্যুবরণ করা মোট মানুষের মধ্যে ৪ হাজার ৩১৪ জন পুরুষ, যা মোট মৃত ব্যক্তির ৭৬ দশমিক ৯৩ শতাংশ। মৃত্যুবরণকারী বাকি এক হাজার ২৯৪ জন নারী, যা মোট মৃত্যুর ২৩ দশমিক ০৭ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃতদের তথ্য বিশ্লেষণ করে আরও দেখা যায়, মৃতদের মধ্যে ষাটোর্ধ্বই ১০ জন। এছাড়া ৫১ থেকে ৬০ বছর বয়সী তিন জন, ৪১ থেকে ৫০ বছর বয়সী একজন ও ৩১ থেকে ৪০ বছর বয়সী একজন মারা গেছেন। এই ১৫ জনের মধ্যে ৯ জন ঢাকা বিভাগের। বাকিদের মধ্যে চার জন চট্টগ্রাম বিভাগের এবং একজন করে রয়েছেন সিলেট ও খুলনা বিভাগের।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন