বিজ্ঞাপন

পদ্মা সেতুতে দ্রুতগতিতে বসছে স্প্যান, ধীরগতি সড়কপথে

October 16, 2020 | 10:03 am

সাব্বির আহমেদ, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: পদ্মা নদীর দুই প্রান্তের ৬ কিলোমিটারের সেতু সংযোগ গড়ে উঠতে আর বাকি মাত্র ৯টি স্প্যান। সেগুলোর সব কয়টি বসাতে সময় লাগবে দুই মাস। চলতি মাসে পদ্মা সেতুতে আরও ৩টি স্প্যান উঠবে। তবে স্প্যান বসানোর কাজ দ্রুতগতিতে চললেও সেতুর ওপর সড়কপথের কাজ এগোতে পারেনি।

বিজ্ঞাপন

জানা গেছে, আগামী ২০ অক্টোবর সেতুর ৩৩তম স্প্যান ৩ এবং ৪ নম্বর খুঁটিতে বসানো হবে। এরপর ২৫ অক্টোরব ৩৪তম স্প্যান, ৩০ অক্টোবর ৩৫তম, ৪ নভেম্বর ৩৬তম, ১১ নভেম্বর ৩৭তম, ১৬ নভেম্বর ৩৮তম, ২৩ নভেম্বর ৩৯ তম, ২ ডিসেম্বর ৪০তম স্প্যান উঠানো হবে। এরপর পদ্মাসেতুর সবশেষ এবং ৪১তম স্প্যানটি বসবে ১০ ডিসেম্বর সেতুর ১২ এবং ১৩ নম্বর খুঁটিতে।

ওইদিনই একপ্রান্ত শরীয়তপুর এবং অন্যপ্রান্ত মুন্সিগঞ্জ জেলার মধ্যে স্প্যানের সংযোগ ঘটবে। আর এমনটা দেখা যাবে দুই মাস পর ডিসেম্বর মাসে। এর মধ্যেই ৯টি স্প্যান বসিয়ে দেবে চায়না মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি।

বিজ্ঞাপন

চীনের এই ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান জানায়, ১০ ডিসেম্বর সেতুর ১২ এবং ১৩ নম্বর খুঁটিতে স্প্যান বসিয়ে দিয়ে স্প্যানের সব কাজ শেষ করা হবে। এর আগেই কুমারভোগ কনস্ট্রাকশন ইয়াডে স্প্যানের সব কাজের ইতি টানা হবে। এখানে বিশাল আকারের কারখানার ভেতরে স্প্যানের জোড়া লাগানোর কাজ করা হতো। যা ডিসেম্বর শেষে আর প্রয়োজন হবে না।

পদ্মাসেতু কর্তৃপক্ষ জানায়, স্প্যান ৪১টি একসঙ্গে ডিসেম্বরে সেতুতে দৃশ্যমান হলেও তার ওপর সড়কপথ এগুতে পারেনি। এখন মাত্র ১৫টি স্প্যানের উপর সড়কপথ করা হয়েছে। বাকি ২৬টি স্প্যানের উপর সড়কপথ করতে হবে।

বিজ্ঞাপন

পদ্মা সেতুতে দ্রুতগতিতে বসছে স্প্যান, ধীরগতি সড়কপথে

করোনার কারণে কাজের গতি শ্লথ ছিল। যে কারণে স্প্যানের উপর নির্ধারিত গতিতে রোডস্লাব বসানো যায়নি। প্রকৌশলিরা জানান, দিনে অন্তত ৮ থেকে ১০টি করে রোড স্লাব বসাতে হবে আগামী বছর কাজ শেষ করতে হলে। কিন্তু এখন দিনে কখনও মাত্র ১টি কখনও ২ বা ৩টি করে রোড স্লাব উঠানো হচ্ছে।

বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষ জানায়, ৪১টি স্প্যানের উপর ২হাজার ৯১৭টি রোডস্লাব লাগবে। এখন পর্যন্ত বসানে হয়েছে একহাজার রোডস্লাব। অন্যদিকে, স্প্যানের ভেতরে রেললাইনের জন্য লাগবে ২ হাজার ৯৫৯টি রেলস্লাব। এখন পর্যন্ত বসানো হয়েছে ১৬০০ রেলস্লাব।

পদ্মাসেতুর প্রকল্প পরিচালক শফিকুল ইসলাম সারাবাংলাকে জানান, ২০২১ সালের শুরুতে দেখা যাবে পুরো পদ্মাসেতু। তখন সব স্প্যান বসানো শেষ হবে। এরপর ওপরে সড়কপথ ও নিচে রেলপথের স্লাব বসিয়ে এগুতো থাকবেন তারা।

বিজ্ঞাপন

২০২১ সালের ডিসেম্বরে খুলবে বাংলাদেশের স্বাধীনতার পর সবচেয়ে বড় কোনো নির্মাণ অবকাঠামো এবং সমসাময়িক বিশ্বের সবচেয়ে বড় সেতু পদ্মাসেতু। প্রমত্তা নদীর ওপর তখন গাড়ি চলতে দেখা যাবে।

সারাবাংলা/এসএ/এমও

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন