বিজ্ঞাপন

মধ্যবর্তী নির্বাচন ছাড়া প্রধানমন্ত্রীর সামনে পথ নেই: জাফরুল্লাহ

October 16, 2020 | 2:27 pm

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: ধর্ষণে, যৌন নিপীড়নে দেশ ভয়ানকভাবে অসুস্থ হয়ে পড়েছে বলে মন্তব্য করেছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী। এ পরিস্থিতি থেকে উত্তরণে মধ্যবর্তী নির্বাচন ছাড়া প্রধানমন্ত্রীর সামনে অন্য কোনো পথ দেখছেন না তিনি।

বিজ্ঞাপন

ডা. জাফরুল্লাহ বলেন, দেশ ভয়ানকভাবে অসুস্থ— রোগে, যৌন নীপিড়নে ও ধর্ষণে। তবে সুখের খবর— আমাদের প্রধানমন্ত্রী আর তার কন্যা সুস্থ আছেন। তবে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা ছাড়া এই রোগের কোনো চিকিৎসা নেই। এজন্য কমিশন করে, সবার সঙ্গে কথা বলে দেশকে গণতন্ত্র দিতে হবে। সেই সঙ্গে মধ্যবর্তী নির্বাচন ছাড়া প্রধানমন্ত্রীর আর কোনো পথ নেই।

শুক্রবার (১৬ অক্টোবর) সকালে রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী সংগ্রামী দল আয়োজিত এক মানববন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন। সাম্প্রতিক সময়ে অব্যাহত ধর্ষণ ও নারী নির্যাতনের প্রতিবাদে এই কর্মসূচির আয়োজন করা হয়।

বিজ্ঞাপন

মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ইমামদের ভূমিকা তুলে ধরে জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, সম্প্রতি আমাদের আলেম সমাজ একটা স্টেটমেন্ট দিয়েছেন। তারা সেখানে মূল ইস্যু হিসেবে উল্লেখ করেছেন মেয়েদের সমতা দিতে হবে, মসজিদে মসজিদে খুতবায় দেশের অনাচারের বিষয়টি তুলে ধরতে হবে। সেটি ভালো দিক। তবে এর একমাত্র চিকিৎসা হলো সুষ্ঠু গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা। গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা ছাড়া দেশের এই রোগের কোনো চিকিৎসা নেই। আর ইমাম সাহেবরাও যেন এক বক্তব্য দিয়েই খালাস না হন।

প্রধানমন্ত্রীর প্রতি আহ্বান জানিয়ে ডা. জাফরুল্লাহ বলেন, আমরা সবার বাড়িতে সুখ চাই। এজন্য কমিশন করেন, সবার সঙ্গে কথা বলেন। দেশকে গণতন্ত্র দেন। মধ্যবর্তী নির্বাচন ছাড়া আপনার কোনো পথ নাই।

বিজ্ঞাপন

এ বছর এইচএসসি পরীক্ষা না নিয়ে পরীক্ষার্থীদের সবাইকে ‘অটো পাস’ দেওয়ার সিদ্ধান্তকেও ভুল বলে মনে করেন ডা. জাফরুল্লাহ। তিনি বলেন, একটা কিছু ভুল পথে চললে সেটাকে কারেক্ট করা খুব কঠিন ব্যাপার হয়। ১৯৭২ সালে আমাদের পরীক্ষা নিয়ে যে সমস্যা হয়েছিল, নকলের যে সমারোহ হয়েছিল, সেটাকে বন্ধ করতে আমাদের একটা দীর্ঘ সময় লেগেছিল। আজ তারই উদাহরণ ধরে বলছি, সরকার একটা ভুল সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী সংগ্রামী দলের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর হোসেন হানিফের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে আরও উপস্থিত ছিলেন কবি আবদুল হাই শিকদার, এহসানুল হক মিলন, জাহাঙ্গীর আলম মিন্টু, সেলিম হোসেন ভূইয়া, রফিক শিকদার, রুমা আক্তারসহ অন্যরা।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/ইউজে/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন