বিজ্ঞাপন

ক্রিকেটারদের পারফরম্যান্সে প্রধান নির্বাচক ‘সন্তুষ্ট’

October 17, 2020 | 8:05 pm

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) তত্বাবধানে আয়োজিত প্রেসিডেন্ট'স কাপে ব্যাটসম্যানদের পারফরম্যান্স এখন পর্যন্ত তৃপ্তিদায়ক নয়। বিশেষ করে টপ অর্ডারের ব্যাটসম্যানরা সুবিধা করতে পারছেন না। তবে মিডল অর্ডারের বেশ কয়েকজন বড় রান পেয়েছেন। এদিকে, পেসাররা খেলছেন স্বপ্নের ক্রিকেট। প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু বললেন, সব মিলিয়ে এখন পর্যন্ত ক্রিকেটারদের পারফরম্যান্সে তারা খুশি।

বিজ্ঞাপন

শনিবার (১৭ আগস্ট) সংবাদ মাধ্যমের সঙ্গে আলাপকালে নান্নু বলেন, 'বায়ো-বাবল এটা একটা কঠিন পরিস্থিতি, একটা জায়গায়া বন্দী থাকা। এখানে সবাই ধীরে ধীরে অভ্যস্ত হয়েছে এটা ইতিবাচক, এখন পর্যন্ত যথেষ্ট ভালো হয়েছে। আমি আশা করছি আগামী ম্যাচটা আরও বেটার হবে।'

নান্নু বলছিলেন, 'কিছু কিছু জায়গা তো আপনাকে দেখতে হবে, বোলার যদি ভালো বল করে তাহলে টপ অর্ডার ব্যর্থ হবে আবার ব্যাটসম্যানরাও যদি ভালো করে তবে বোলাররাও ব্যর্থ হবে। সবমিলিয়ে এই কয়দিন যেটা দেখেছি আমাদের পেসাররা বেশ ভালো ফিটনেসের ছাপ রেখেছে। তাদের যে স্কিলেও উন্নতি হয়েছে সেটা বোঝা যাচ্ছে। এবং ধারাবাহিকভাবে যথেষ্ট ভালো লাইনে বল করছে। এটা হল সবচেয়ে বড় পাওয়া। এই উন্নতিটা যদি ধারাবাহিকভাবে ধরে রাখে ভবিষ্যতে আমাদের জন্য ভালো কাজে দিবে সব ফরম্যাটে ক্রিকেটার বাছাইয়ে।'

বিজ্ঞাপন

ক্রিকেটারদের পারফরম্যান্সে প্রধান নির্বাচক ‘সন্তুষ্ট’

প্রথম কয়েকটা ম্যাচে রান না পেলেও টপ অর্ডার আগামীতে ঘুরে দাঁড়াবে বলে মনে করছেন প্রধান নির্বাচক, 'টপ অর্ডার যারা ব্যর্থ হচ্ছে, আগামীতে আরও কয়েকটা ম্যাচ আছে সেখানে সুযোগ আছে। কন্ডিশনও এখন ভালো। মাঝখানে বৃষ্টি ছিল, উইকেটে ময়েশ্চার ছিল, পেস বোলাররা বাড়তি সুবিধা পেয়েছে, টাইমিং করা একটু কঠিন ছিল ব্যাটসম্যানদের জন্য। এখন এটা কাটিয়ে উঠেছে, আজকেও দেখলাম ফ্ল্যাট উইকেট। আমার মনে হয় আগামী ম্যাচগুলোতে আরও ভালো করবে।'

বিজ্ঞাপন

প্রধান নির্বাচক জানালেন, এই টুর্নামেন্টে কে কেমন করছেন সেদিকে কড়া দৃষ্টি রাখছেন তারা। দল নির্বাচনে ভূমিকা রাখবে এসব, 'এই টুর্নামেন্টটা আমাদের জন্য খেলোয়াড়দের দেখার একটা মঞ্চ। কে কেমন পারফর্ম করছে, কাকে কোন পজিশনে খেলাতে পারবো দেখার জায়গা। সব প্লেয়ারের পারফরম্যান্সই দেখা হচ্ছে। টিম ম্যানেজম্যান্ট বসে যাকে যেখানে দরকার সেখানের জন্য বিবেচনা করা হবে।'

করোনার কারণে বাংলাদেশি ক্রিকেটাররা ক্রিকেটের বাইরে ছিলেন প্রায় ছয় মাস। ফলে এমন একটা প্রতিযোগিতামূলক টুর্নামেন্ট ভীষণ দরকার ছিল বলছেন নান্নু, 'যেভাবে টুর্নামেন্ট টা চলছে তা আয়োজনই অনেক বড় বিষয়। এই মহামারীর মধ্যে কঠিন, এতদিন বায়ো বাবলের মধ্যে রেখে মাঠে এনে খেলানো। এটা একটা বিরাট ব্যাপার। সবমিলিয়ে আমি বলবো বিসিবি দারুণ একটা উদ্যোগ নিয়েছে। কারণ এটা যদি আমরা স্টেপ বাই স্টেপ সাকসেস করি আন্তর্জাতিক ম্যাচ আয়োজনে বেশ সাহায্য করবে।'

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এমআরএফ/এসএইচএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন