বিজ্ঞাপন

বাকলিয়ায় খুন: যুবলীগ নেতাসহ ৭ জন রিমান্ডে

October 17, 2020 | 9:25 pm

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

চট্টগ্রাম ব্যুরো: চট্টগ্রাম নগরীর বাকলিয়ায় শ্রমিক সরবরাহকারীকে খুনের ঘটনায় গ্রেফতার সাতজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তিনদিন করে রিমান্ডে নেওয়ার আদেশ দিয়েছেন আদালত।

বিজ্ঞাপন

শনিবার (১৭ অক্টোবর) সন্ধ্যায় চট্টগ্রাম মহানগর হাকিম আবু ছালেম মোহাম্মদ নোমান এ আদেশ দিয়েছেন। গ্রেফতার সাতজনকে বাকলিয়া থানা পুলিশ ওই আদালতে হাজির করেছিল।

বাকলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ নেজাম উদ্দিন সারাবাংলাকে বলেন, ‘সাতজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সাতদিনের রিমান্ডের আবেদন করা হয়েছিল। আদালত তিনদিন করে মঞ্জুর করেছেন।’

বিজ্ঞাপন

শুক্রবার (১৬ অক্টোবর) রাতে নগরীর নতুন ফিশারিঘাট এলাকায় বেড় মার্কেট বস্তিতে আবু তৈয়ব (৪২) নামে একজনকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। পুলিশ ঘটনায় জড়িত সাতজনকে গ্রেফতার করে। এরা হলেন- নগরীর বকশিরহাট ওয়ার্ড যুবলীগের সহ-সভাপতি দাবিদার আকতার হোসেন প্রকাশ কসাই আকতার (৪১), বেড় মার্কেটে তার নিয়ন্ত্রণে থাকা আকতার কলোনির ম্যানেজার মো. সাইফুদ্দিন (৪০), অনুসারী রায়হান উদ্দিন রানা (২৫), আশরাফুল ইসলাম (২৮), মো. সবুজ (৩৫), আবু তাহের কালু (২০) এবং আকতারের কলোনির ভাড়া সংগ্রহকারী হাসিনা (২৬)।

পুলিশের ভাষ্য অনুযায়ী, তৈয়ব ফিশিং ট্রলারে শ্রমিক সরবরাহ করতেন। এছাড়া নদীর তীরে নির্মিত কাঠের ট্রলার নদীতে ভাসানোর সময় যে শ্রমিক প্রয়োজন হয়, সেগুলো সরবরাহেও তার একক আধিপত্য ছিল। এই দুই সেক্টরে শ্রমিক সরবরাহের কাজ তার থেকে ভাগিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করছিল আকতার। কিন্তু তৈয়বের প্রভাবের কারণে না পেরে আয়ের ভাগ বা চাঁদা দাবি শুরু করে। তৈয়ব চাঁদা দিতেও অস্বীকৃতি জানায়। এছাড়া বেড়া মার্কেট এলাকায় তৈয়বের একটি দোকান আছে, সেখানে গিয়ে আকতারের ভাই মুন্না (পলাতক) প্রতিদিন এক হাজার টাকা করে চাঁদা দাবি করেছিল। সেটাও তৈয়ব দেননি।

বিজ্ঞাপন

এসব বিরোধের জেরে গত বৃহস্পতিবার আকতারের অনুসারীরা তৈয়বকে মারধর করে। তৈয়ব বিচার দেন আকতারকে। শুক্রবার রাতে মিমাংসার জন্য ডেকে নিয়ে আকতার তাকে হত্যার নির্দেশ দেন এবং অনুসারীরা কুপিয়ে তাকে ‍খুন করে।

সারাবাংলা/আরডি/এমআই

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন