বিজ্ঞাপন

শরিফুলকে শেখাচ্ছেন মোস্তাফিজরা

October 18, 2020 | 7:40 pm

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

বাংলাদেশের অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ জয়ে বড় অবদান ছিল বলেই নয়, তরুণ শরিফুল ইসলামের ওপর নজর অনেক আগ থেকেই। পঞ্চগরের ১৯ বছর বয়সী তরুণের উচ্চতা ছয় ফুটেরও বেশি। উচ্চতা ও শরীর দেখলে মনে হবে 'পেসার হওয়ার জন্যই বুঝি জন্মেছিলেন!' পেস বোলিংয়ে মুগ্ধতা ছড়াচ্ছেনও এই তরুণ।

বিজ্ঞাপন

বয়সভিত্তিক ক্রিকেটে উচ্চতা, গতি ও বোলিংয়ে নজর কেড়েছেন। ঘরোয়া ক্রিকেটেও রেখেছেন সেই ছাপ। ৮টি প্রথম শ্রেণীর ম্যাচে শরিফুল উইকেট নিয়েছেন ২২টি। লিস্ট 'এ'তে ২৭ ম্যাচ খেলে নিয়েছেন ৪৭ উইকেট। করোনার কারণে অনেকদিন ক্রিকেটের বাইরে থাকা তরুণ পেসার এই মুহূর্তে খেলছেন বিসিবি প্রেসিডেন্ট'স কাপ।

তামিম একাদশের হয়ে সেখানেও নজর কেড়েছেন ১৯ বছর বয়সী তরুণ। গত বৃহস্পতিবার নাজমুল একাদশের বিপক্ষে ১০ ওভারে ৩৭ রান খরচায় নিয়েছিলেন ৪ উইকেট। অনেক আগ থেকেই আগামীর বড় তারকা ভাবা হয় শরিফুলকে। তরুণ পেসার ধাপে ধাপে সেদিকে এগুচ্ছেনও। বললেন, প্রেসিডেন্ট'স কাপ খেলতে পারা তার জন্য দারুণ এক সুযোগ।

বিজ্ঞাপন

শরিফুলের সঙ্গে তামিম একাদশের পেস ডিপার্টমেন্টের দায়িত্বে আছেন মোস্তাফিজুর রহমান ও মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। যাদের আন্তর্জাতিক অভিজ্ঞতা অনেক। মোস্তাফিজ তো বড় তারকাও। কাছ থেকে তাদের বোলিং দেখতে পারছেন, শিখতে পারছেন শরিফুল। কিছু জিজ্ঞেসা করলে ভালোভাবে বুঝিয়েও দিচ্ছেন মোস্তাফিজরা। অধিনায়ক তামিম ইকবালও তার বেড়ে উঠাতে তড়ান্বিত করছেন। শরিফুল বলছেন, বিষয়টি খুবই ভালো লাগছে তার।

রোববার (১৮ অক্টোবর) সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে তরুণ পেসার বলছিলেন, 'আমি তামিম ভাইয়ের দলে খেলছি। উনি বর্তমান জাতীয় দলের অধিনায়ক। উনি আমাকে অনেক কিছু বলে বোলিংয়ের সময় বা নেট বোলিংয়ের সময়। উনি অনেক কিছু শেয়ার করে, ব্যাটসম্যানের দুর্বল দিক নিয়ে। মোস্তাফিজ ভাই আছে আমাদের দলে। সবসময় উনাকে প্রশ্ন করি। উনি সুন্দর করে শিখায়, বোঝায়। সাইফউদ্দিন ভাই আছে। উনাকেও বলি যে ভাই বিপিএল বা জাতীয় দলে ব্যাটসম্যানরা কোথায় দুর্বল? এসব জানার ইচ্ছে, উনাদের কাছ থেকে শুনি। তারাও বলে শেয়ার করে। খুব ভালো লাগছে যে তাদের কাছে কিছু জানতে চাইলে সাথে সাথে বলে, সুন্দর করে বুঝিয়ে বলে। এসব শেয়ার করতে পারা ভালো লাগে।'

বিজ্ঞাপন

করোনার কারণে দেশে ক্রিকেট বন্ধ হয়েছিল গত মার্চে। ভাইরাসটির কারণে প্রায় ছয় মাস ক্রিকেটের বাইরে থাকতে হয়েছে ক্রিকেটারদের। শরিফুল বললেন, সময়টা একদমই ভালো কাটেনি, 'অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ এরপর প্রিমিয়ার লিগে একটা ম্যাচ খেলে দীর্ঘ ৬-৭ মাস পর এখানে এসেছি। অনুশীলনের পর ম্যাচ খেললাম। প্রথম দিকে একটু অস্বস্তি লাগছিল। অনেকদিন পর ম্যাচ খেলছি। ফিটনেসে কিছুটা সমস্যা মনে হচ্ছিল কিন্তু দ্বিতীয় ম্যাচে মোটামুটি ভালো খেলেছি। এখন আবার সবকিছু ভালো লাগছে, এতদিন পর মাঠে ফিরেছি। মাঠ ছাড়া আসলে ভালো লাগে না।'

সারাবাংলা/এমআরএফ/এসএইচএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন