বিজ্ঞাপন

কাজ চলাকালেই লাইনে কর্তৃপক্ষের বিদ্যুৎ সঞ্চালন, ২ শ্রমিক নিহত

October 18, 2020 | 8:40 pm

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট

শরীয়তপুর: জেলার সদর উপজেলার কোটাপাড়ায় পল্লী বিদ্যুৎ সঞ্চালন লাইন সংস্কারের সময় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হ‌য়ে ২ শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। এসময় আরও ৪ জন শ্রমিক আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে ২ জনকে উন্নত চি‌কিৎসার জন্য ঢাকায় রেফার্ড ও ২ জনকে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে চি‌কিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

বিজ্ঞাপন

রোববার‌ (১৮ অক্ট‌োবর) বেলা সাড়ে ১২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। পরে বিকাল ৩টার দিকে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে কর্তব্যরত চি‌কিৎসক দুই জনকে মৃত ঘোষণা করেন।

‌নিহতরা হলেন- টাঙ্গাইল জেলার নাটেরপুল গ্রামের মৃত আবুল কালামের ছেলে সোহেল (২৩) ও গাইবান্ধা জেলার বিশ্বনাথপুর গ্রামের মৃত দিদারের ছেলে আরিফ (২২)।

বিজ্ঞাপন

শ্রমিকদের অভিযোগ, সদর উপজেলা কোটাপাড়া-গাগরীজোড় এলাকায় রোববার বেলা সাড়ে ১২টার দিকে পল্লী বিদ্যুতের লাইন সম্প্রসারণ কাজের অংশ হিসেবে ঠিকাদারের চুক্তিভিত্তিক শ্রমিকরা কাজ করছিলেন। একপর্যায়ে সম্প্রসারণ লাইনে সংযোগ চালু করে দেয় শরীয়তপুর পল্লী বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ।

ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের পরিদর্শক র‌কিবুল ইসলাম বলেন, আমরা ২৩জন শ্রমিক‌‌ নি‌য়ে বিদ্যুৎ সঞ্চালন লাইন সংস্কারের কাজ কর‌ছিলাম। সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত পল্লী বিদ্যুতের সঞ্চালন লাইন বন্ধ রাখার কথা ছিল। কিন্তু বেলা ১২টার দিকে হঠাৎ সঞ্চালন লাইন চালু করে দেওয়া হয়। পরে হাসপাতালে নেওয়া হলে ২ জন শ্রমিকের মৃত্যু হয়। পল্লী বিদ্যুতের অবহেলায় তাদের মৃত্যু হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

পালং মডেল থানার উপ-প‌রিদর্শক (এসআই) কামাল বলেন, আমরা সংবাদ পেয়ে নিহ‌তদের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

তবে লাইন চালু করে দেওয়ার বিষয়টি অস্বীকার করেছেন শরীয়তপুর পল্লী বিদ্যুতের জেলারেল ম্যানেজার (জিএম) জুল‌ফিকার আলী। দায় এ‌ড়িয়ে তিনি বলেন, ‘সকাল ৮টা বিকাল ৫টা পর্যন্ত সঞ্চালন লাইন বন্ধ রাখা হয়েছে। কিভাবে এই শ্রমিকরা মারা গেছে তা আমার জানা নেই।’

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন