বিজ্ঞাপন

করোনায়ও ৩ মাসে এডিপি বাস্তবায়ন ৮ দশমিক শূন্য ৬ শতাংশ

October 18, 2020 | 9:53 pm

জোসনা জামান, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: করোনার মধ্যেও চলতি অর্থবছরের প্রথম তিন মাসে (জুলাই-সেপ্টেম্বর) বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি (এডিপি) বাস্তবায়ন হয়েছে ৮ দশমিক শূন্য ৬ শতাংশ। এ সময় মন্ত্রণালয় ও বিভাগগুলো খরচ করতে পেরেছে ১৭ হাজার ৩০১ কোটি টাকা। এর মধ্যে সরকারি তহবিল থেকে খরচ হয়েছে ১১ হাজার ২৭৪ কোটি টাকা, বৈদেশিক সহায়তা থেকে ৫ হাজার ৪৫৮ কোটি টাকা এবং সংস্থার নিজস্ব অর্থায়ন থেকে ব্যয় হয়েছে ৫৭০ কোটি টাকা। তবে বৈদেশিক সহায়তা ব্যয়ের ক্ষেত্রে এই মাসে এক টাকাও খরচ করতে পারেনি আট মন্ত্রণালয় ও বিভাগ। এডিপি বাস্তবায়নের এ হার গত অর্থবছরের তিন মাসের সমান। পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের বাস্তবায়ন পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন বিভাগের (আইএমইডি) প্রতিবেদনে এসব তথ্য তুলে ধরা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

সূত্র জানায়, চলতি অর্থবছরে ২ লাখ ১৪ হাজার ৬১১ কোটি টাকা এডিপি বাস্তবায়ন করছে সরকার। এর মধ্যে সরকারি তহবিলের ১ লাখ ৩৪ হাজার ৬৪৩ কোটি টাকা, বৈদেশিক সহায়তা থেকে ৭০ হাজার ৫০২ কোটি টাকা এবং বাস্তবায়নকারী সংস্থাগুলোর নিজস্ব তহবিল থেকে ৯ হাজার ৪৬৬ কোটি টাকা ব্যয় করা হচ্ছে।

আইএমইডি সচিব প্রদীপ রঞ্জন চক্রবর্তী সারাবাংলাকে জানান, কোভিড-১৯ এর কারণে জুলাই এবং আগস্ট মাসে এডিপি বাস্তবায়ন কম হয়েছিল। এ প্রেক্ষাপটে পরিকল্পনামন্ত্রী প্রত্যেকটি মন্ত্রণালয় ও বিভাগকে ডিও লেটার দেন। কোন মন্ত্রণালয়ের অগ্রগতি কম হয়েছে সেসব বিষয় তুলে ধরে তিনি প্রকল্পের গতি বাড়ানোর তাগিদ দেন। সাধারণত অর্থবছরের দুই মাসে কখনও এমন ডিও লেটার দেওয়া হয় না। কিন্তু এবার সেটি করা হয়েছে। ফলে তিন মাসে গত অর্থবছরের তিন মাসের সমান এডিপি বাস্তবায়ন সম্ভব হয়েছে। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘বৈদেশিক সহায়তা অংশে কোনো টাকা কেন ব্যয় করা যায়নি সেটি পর্যালোচনা করে দেখতে হবে।’

বিজ্ঞাপন

এডিপি বাস্তবায়নে পিছিয়ে থাকা মন্ত্রণালয় ও বিভাগ

জুলাই-সেপ্টেম্বর পর্যন্ত গত তিন মাসে জাতীয় সংসদ সচিবালয় শূন্য শতাংশ, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় দশমিক শূন্য ৬ শতাংশ, বাংলাদেশ পাবলিক সার্ভিস কমিশন শূন্য দশমিক ১৩ শতাংশ, অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগ শূন্য দশমিক ২২ শতাংশ, জননিরাপত্তা বিভাগ শূন্য দশমিক ৪৩ শতাংশ এবং আইন ও বিচার বিভাগ শূন্য দশমিক ৪৯ শতাংশ এডিপি বাস্তবায়ন করেছে।

বিজ্ঞাপন

এগিয়ে থাকা মন্ত্রণালয় ও বিভাগ

গত তিন মাসে ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণায় ২৫ দশমিক ৭১ শতাংশ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয় ২২ দশমিক ৪৬ শতাংশ, নির্বাচন কমিশন সচিবালয় ২০ দশমিক ৮০ শতাংশ, অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগ (ইআরডি) ১৮ দশমিক ৮৪ শতাংশ, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ ১৪ দশমিক ৬০ শতাংশ এবং দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় ১১ দশমিক ৬৪ শতাংশ এডিপি বাস্তবায়ন করতে পেরেছে।

বিজ্ঞাপন

বৈদেশিক অর্থ এক টাকাও খরচ করতে পারেনি যারা

প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে দেখা গেছে, অর্থবছরের তিন মাস পেরিয়ে গেলেও আটটি মন্ত্রণালয়, বিভাগ ও সংস্থা বৈদেশিক সহায়তার এক টাকাও খরচ করতে পারেনি। সেগুলো হলো- নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয়, জাতীয় সংসদ সচিবালয়, যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়, সুরক্ষা ও সেবা বিভাগ, ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ, বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয় এবং ভূমি মন্ত্রণালয়।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/জেজে/পিটিএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন