বিজ্ঞাপন

ফুটবল মাঠে ফিরছে, ফুটবলাররা নামছে, এটাই স্বস্তি: সালাউদ্দিন

October 27, 2020 | 7:32 pm

স্পোর্টস করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: দীর্ঘ সাত মাস থেকে মাঠের বাইরে দেশের ফুটবল। নভেম্বরে নেপালের বিপক্ষে আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচ দিয়ে দেশের ফুটবল মাঠে ফেরার স্বস্তিটাই বড় বিষয় মনে করছেন বাংলাদেশ ফেডারেশনের সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন। বাফুফ'র চতুর্থবারের সভাপতি মনে করেন, হার-জিত বড় কথা নয়, বড় কথা হলো মাঠে ফুটবল ফেরা।

বিজ্ঞাপন

আজ মঙ্গলবার (২৭ অক্টোবর) ফেডারেশন ভবনে সাংবাদিকদের সঙ্গে একথা বলেছেন কাজী সালাউদ্দিন।

১৩ ও ১৭ নভেম্বর নেপালের সঙ্গে দুটি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। দীর্ঘ ১১ মাস পর জাতীয় দলের কোনো ম্যাচ অনুষ্ঠিত হতে চলেছে। ম্যাচকে ঘিরে এরই মধ্যে শুরু হয়েছে হার-জিতের সমীকরণ।

বিজ্ঞাপন

হার-জিত ছাড়িয়ে মাঠে ফুটবল ফেরানোটাকেই মূখ্য মনে করছেন সালাউদ্দিন, ‘আমাদের প্রথম কাজ হলো খেলা মাঠে ফেরানো। জেতা-হারা এখনই যদি চিন্তা করি, ৬ মাস ধরে ফুটবল নাই মাঠে। কিন্তু আমাদের প্রথম উদ্দেশ হলো ফুটবলটা মাঠে নামানো ও খেলোয়াড়দের শর্টস পরে মাঠে নামানো। এটাই আমাদের কনসেপ্ট।’

এছাড়াও ন্যাশনাল টিমস কমিটির সঙ্গে আলোচনা করে জাতীয় দলের জন্য নিরপেক্ষ ম্যানেজার ও নির্বাচক কমিটি গঠনের ভাবনার কথা জানিয়েছেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

কাজী সালাউদ্দিন বলেন, ‘বিশ্বব্যাপী ম্যানেজার ও কোচ তারা খেলোয়াড় বাছাই করে। আমি আপনাদের রিকোয়ারম্যান্ট নিয়ে দ্বিমত প্রকাশ করছি না তাহলো কোচ সব খেলা দেখে না। কিছু কিছু হয়তো বাদ পড়ে যায়। আমার মনে হয় না পড়ে যায়। সো সেজন্য হয়তো আমরা এবার ইনিসিয়াল একটা কমিটি করতে পারি যা হবে স্ক্রিনিং কমিটি। যেটা নির্বাচক কমিটিও বলতে পারেন।’

অন্যদিকে জাতীয় দলের জন্য নিরপেক্ষ ম্যানেজার নিয়োগ নিয়ে বাফুফে সভাপতি বলেন, ‘ম্যানেজার নিয়ে সিদ্ধান্ত নিবে ন্যাশনাল টিমস কমিটি। ম্যানেজার নিয়ে অনেক রকম আলাপ হচ্ছে। এখনও কোনো চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি। আলোচনা চলছে দুয়েকটা জিনিসের। একটা হলো আমরা একজন পেশাদার ম্যানেজার চাই। কারণ আমাদের খুব একটা টেকনিক্যাল ম্যানেজার দরকার নাই।’

বিজ্ঞাপন

একজন বেতনভুক্ত পেশাদার ম্যানেজার নিয়োগ দিতে চায় ফেডারেশন। বাফুফে প্রধান বলেন, ‘আগেরবার সিলেকশন নিয়ে কিছু সমালোচনা হয়েছিল। ম্যানেজারকে দোষ দিয়েছিলাম। প্রকৃতপক্ষে ম্যানেজার না কোচ নিজেই সবকিছু চূড়ান্ত করে। সেজন্য আমরা চিন্তা করছি পেশাদার এক্সিকিউটিভ ম্যানেজার রাখবো।’

তবে এবার বাফুফের কার্যনির্বাহী কমিটির কাউকে দায়িত্ব দেয়া হবে না বলে মন্তব্য করেছেন সালাউদ্দিন, ‘আমার ব্যক্তিগত মতামত হলো, আমাদের বোর্ডের কাউকে দরকার বলে আমি মনে করি না। যদি বোর্ডের কাউকে করি তাহলে আগের ম্যানেজারের প্রবলেম কী? আগের ম্যানেজার (সত্যজিৎ দাস রুপু) যে ছিল সে এই লাইনে অনেক অভিজ্ঞ ছিল। তার থেকে তো অভিজ্ঞ কেউ নাই বোর্ডে। আমার মনে হয় না বোর্ড থেকে কেউ থাকবে।’

বিজ্ঞাপন

সপ্তাহখানেকের মধ্যে ন্যাশনাল টিমস কমিটির সঙ্গে বৈঠকে বসবে কাজী সালাউদ্দিন। আলোচনা করে জাতীয় দলের জন্য নিরপেক্ষ ম্যানেজার ও নির্বাচক কমিটির বিষয়টি চূড়ান্ত হতে পারে।

সারাবাংলা/জেএইচ/এসএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন