বিজ্ঞাপন

গার্মেন্টস কর্মী ধর্ষণ: শ্রমিকলীগের সাধারণ সম্পাদকসহ গ্রেফতার ৫

October 27, 2020 | 9:59 pm

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট

বাগেরহাট: বাগেরহাটে বিজয়া দশমীতে পূজা দেখে বাড়ি ফেরার সময় গার্মেন্টস শ্রমিক ধর্ষণের শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত সদর উপজেলার বারুইপাড়া ইউনিয়ন শ্রমিকলীগের সাধারণ সম্পাদক ও ইউপি সদস্য শেখ মিজানুর রহমানসহ ৫ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার (২৭ অক্টোবর) তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়।

বিজ্ঞাপন

গ্রেফতারকৃত শেখ মিজানুর রহমান (৩৫) বাগেরহাট সদর উপজেলার বারুইপাড়া ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডের সদস্য এবং বাকপুরা গ্রামের আব্দুল মজিদ শেখের ছেলে। গ্রেফতারকৃত অন্য চারজন হলেন- বাগেরহাট সদর উপজেলার চিন্তারখোড় গ্রামের অমল মৃধার ছেলে বিকাশ মৃধা (১৯), নারায়ণ চন্দ্র সরকারের ছেলে সুকান্ত সরকার (৩২), অসীম বিশ্বাসের ছেলে বিধান বিশ্বাস (২৮) ও মো. আনোয়ার ফকিরের ছেলে মো. সোহেল ফকির (২৩)। গ্রেফতারকৃতদের সন্ধ্যায় আদালতে পাঠালে বিচারক অতিরিক্ত চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আবীর পারভেজ তাদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

এর আগে সোমবার রাতে ধর্ষণের শিকার ওই গার্মেন্টস কর্মী বাদী হয়ে বাগেরহাট মডেল থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে বারুইপাড়া ইউনিয়ন শ্রমিকলীগের সাধারণ সম্পাদক ও ইউপি সদস্য শেখ মিজানুর রহমানসহ ৮ জনের নামে মামলা দায়ের করেছেন। মামলা দায়েরের কয়েক ঘন্টার মধ্যে মামলার প্রধান অভিযুক্ত আউইপাড়া ইউপি সদস্য ও ওই ইউনিয়নের শ্রমিকলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ মিজানুর রহমানসহ ৫ জনকে মঙ্গলবার বিকালে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বিজ্ঞাপন

নির্যাতনের শিকার মেয়েটির বাবা-মা জানান, এক বছর আগে আর্থিক কষ্টে মেয়েকে গার্মেন্টসে কাজ করতে ঢাকায় পাঠাই। পূজার ছুটিতে মেয়ে বাড়িতে আসছিল। আমাদের মেয়ের ওপর নির্যাতনের বিচার চাই।

বাগেরহাটের পুলিশ সুপার পঙ্কজ চন্দ্র রায় বলেন, মামলা দায়েরের পর আমরা তরুণীর শারীরিক পরীক্ষা করা হয়েছে। ধর্ষণের অভিযোগে ইউপি সদস্য মিজানুর রহমানকে এবং শ্লিলতাহানীর অভিযোগে আরও চারজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃতদের মঙ্গলবার বিকাল সাড়ে পাঁচটায় অতিরিক্ত চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আবীর পারভেজের আদালতে তোলা হলে তিনি তাদেরকে জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/টিসি

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন