বিজ্ঞাপন

নওয়াজউদ্দিনকে গ্রেফতারে হাইকোর্টের ‘না’

October 28, 2020 | 6:11 pm

এন্টারটেইনমেন্ট ডেস্ক

বলিউড অভিনেতা নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকীকে গ্রেফতারের ওপর স্থগিতাদেশ দিয়েছে এলাহাবাদ হাইকোর্ট। নওয়াজউদ্দিন ও তার দুই ভাই ও মায়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছিলেন স্ত্রী আলিয়া সিদ্দিকী। সেই অভিযোগের ভিত্তিতেই গ্রেফতার হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু ভারতের এলাহাবাদ হাইকোর্ট সেই গ্রেফতারের উপর স্থগিতাদেশ দায়ের করেছেন।

বিজ্ঞাপন

প্রসঙ্গত, নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকীর বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগ এনেছিলেন তার স্ত্রী আলিয়া সিদ্দিকি। সেই সাথে তার দুই ভাই ও মায়ের বিরুদ্ধেও অভিযোগ দায়ের করেছিলেন আলিয়া। সেই অভিযোগের ভিত্তিতেই গ্রেফতার হওয়ার কথা ছিল। তবে তাদেরকে এখনই গ্রেফতার না করার নির্দেশ দিয়েছেন এলাহাবাদ হাইকোর্ট।

নওয়াজউদ্দিনকে গ্রেফতারে হাইকোর্টের ‘না’

বিজ্ঞাপন

নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকীর আইনজীবী নাদিম জাফার জাইদি জানিয়েছেন, অভিনেতা এবং তার পরিবারের চার সদস্যের বিরুদ্ধে গ্রেফতারিতে স্থগিতাদেশ দিয়েছে এলাহাবাদ হাইকোর্ট। এই চার অভিযুক্তদের মধ্যে রয়েছেন নওয়াজউদ্দিনের দুই ভাই ফাইজুদ্দিন ও আয়াজুদ্দিন, মা মেহেরুন্নিসা এবং আরেক ভাই মুনাজউদ্দিন।

এর আগে মুম্বাইয়ের ভারসোভা থানায় অভিযোগ দায়ের করেছিলেন নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকী’র স্ত্রী আলিয়া সিদ্দিকী। আলিয়ার আইনজীবী জানিয়েছিলেন, নওয়াজের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৫, ৩৭৬(কে), ৩৭৬(এন), ৪২০ এবং ৪৯৩ ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। অভিনেতার বিরুদ্ধে ধর্ষণ, প্ররোচনা দিয়ে সহবাস এবং প্রতারণা করে বিয়ের অভিযোগ আনা হয়েছে। খুব তাড়াতাড়ি তার বিরুদ্ধে এফআইআর হবে বলেও জানিয়েছেন আলিয়ার আইনজীবী।

বিজ্ঞাপন

এছাড়াও শারীরিক এবং মানসিক অত্যাচারের অভিযোগে নওয়াজের সঙ্গে বিবাহবিচ্ছেদ চেয়েছেন আলিয়া। যা এখনো আদালতে বিচারাধীন। আলিয়া অভিযোগ করেন, অভিনেতা নওয়াজউদ্দিন ও তার পরিবার আলিয়াকে দিনের পর দিন শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করেছে। বিয়ের পর থেকেই নওয়াজের বড় ভাই সামাস তার সঙ্গে অভদ্র ব্যবহার করেছেন বলে অভিযোগ করেন আলিয়া সিদ্দিকী। যদিও এ বিষয়ে এখনো কোন মন্তব্য করেননি নওয়াজ।

নওয়াজউদ্দিনকে গ্রেফতারে হাইকোর্টের ‘না’

বিজ্ঞাপন

আলিয়া-নওয়াজের দাম্পত্য ১১ বছরের। সম্পর্ক ১৭ বছরেরও বেশি। ভারতীয় গণমাধ্যমে দেয়া একটি সাক্ষাৎকারে আলিয়া জানিয়েছিলেন, ‘বিয়ের একবছর পর, ২০১০ সাল থেকেই আমার আর নওয়াজের মধ্যে সমস্যা শুরু হয়। এতদিন আমি সব সামলে নিচ্ছিলাম। তবে এখন সবকিছু হাতের বাইরে চলে গেছে।’ আলিয়ার অভিযোগ, নওয়াজের পরিবার তার উপর মানসিক ও শারীরিক অত্যাচার করতে শুরু করে। এমন কি নওয়াজের বড় ভাইও তাকে মারধর করেছেন। আলিয়াকে বিয়ের আগে মায়ের ইচ্ছাতেই শাহিবাকে বিয়ে করেছিলেন নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকী। কিন্তু সেই বিয়ে ৬ মাসও টেকেনি।

সারাবাংলা/এএসজি

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন