বিজ্ঞাপন

তাঁতপণ্য আরও বিস্তৃত পরিসরে পৌঁছে দিতে হবে: শিল্পমন্ত্রী

October 29, 2020 | 4:03 pm

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: অর্থনৈতিক উন্নয়নের পাশাপাশি দেশিয় ঐতিহ্য ও সংস্কৃতিকে ধরে রাখার আহ্বান জানিয়েছেন শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন। তিনি বলেছেন, দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে যে সমৃদ্ধ ও বৈচিত্র্যময় তাঁত, বস্ত্র ও কারুশিল্প বিকশিত হয়েছে, সেগুলো আরও বিস্তৃত পরিসরে পৌঁছে দিতে হবে।

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার (২৯ অক্টোবর) দুপুরে ভার্চুয়াল প্ল্যাটফর্মে এসএমই ফাউন্ডেশন এবং অ্যাসোসিয়েশন অব ফ্যাশন ডিজাইনার্স অব বাংলাদেশ (এএফডিবি) আয়োজিত হেরিটেজ হ্যান্ডলুম ফেস্টিভ্যাল ২০২০’র সমাপনী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। ‘আমার পণ্য আমার দেশ, ডিজিটাল বাংলাদেশ’ স্লোগানে অনলাইনে চলে মাসব্যাপী এই ফেস্টিভ্যাল।

সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিল্পমন্ত্রী বলেন, ‘ঐতিহ্যগতভাবে শিল্প মন্ত্রণালয় দেশের বৈচিত্র্যময় বস্ত্র ও কারুশিল্প পণ্য উন্নয়নে কাজ করছে। জনগণের ক্রয়ক্ষমতা বৃদ্ধির সঙ্গে রুচিশীল ও উন্নত মানসমপন্ন পণ্যের চাহিদা শহরের পাশাপাশি গ্রামাঞ্চলেও বেড়েছে। বৈচিত্র্যময় দেশীয় তাঁত ও বস্ত্রের বাজার সম্প্রসারণে আন্তর্জাতিক বাজারের পাশাপাশি দেশীয় বাজারের প্রতি আরও মনোযোগী হতে হবে। এসএমই ফাউন্ডেশন জেলায় জেলায় আঞ্চলিক এসএমই পণ্য মেলা করছে। একই ভাবে উপজেলা, ইউনিয়ন গ্রামে গ্রামে মেলার আয়োজন করতে হবে।’

বিজ্ঞাপন

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ বলেন, ‘ঐতিহ্যবাহী এসব পণ্য রক্ষায় দেশের বাজারই যথেষ্ট। মেলার বিস্তৃতি ঘটানো হলেই উদ্যোক্তারা তাদের পণ্যের বাজার খুঁজে পাবেন।’ ঢাকার পাশাপাশি অন্যান্য জেলাসমূহে বিস্তৃত আকারে তাঁত বস্ত্র মেলা আয়োজনের জন্য উদ্যোক্তাদের পরামর্শ দেন সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী।

এসএমই ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান ড. মো. মাসুদুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন- বস্ত্র ও পাট সচিব লোকমান হোসেন মিয়া, এসএমই ফাউন্ডেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. সফিকুল ইসলাম এবং অ্যাসোসিয়েশন অব ফ্যাশন ডিজাইনার্স বাংলাদেশ (এএফডিবি) সভাপতি মানতাশা আহমেদ।

বিজ্ঞাপন

উল্লেখ্য, গত বুধবার (২৮ অক্টোবর) শুরু হওয়া এই অনলাইন প্রদর্শনী চলবে ২৮ নভেম্বর পর্যন্ত। দেশের গৌরবময় ঐতিহ্য ও কৃষ্টির অংশ ঐতিহ্যবাহী তাঁতপণ্যের প্রস্তুতকারক ও শীর্ষস্থানীয় ডিজাইনারদের মধ্যে সংযোগ স্থাপন, বিলুপ্তি রোধকরণ এবং দেশে কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে তৃতীয়বারের মতো এই ফেস্টিভালের আয়োজন করা হয়। https://www.facebook.com/heritagehandloombangladesh ঠিকানায় মেলার সব তথ্য জানা যাবে।

সারাবাংলা/ইএইচটি/এমও

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন