বিজ্ঞাপন

জাতীয় ধ্বনি ‘জয় বাংলা’ করার প্রস্তাব শাজাহান খানের

October 29, 2020 | 8:57 pm

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

চট্টগ্রাম ব্যুরো: মুক্তিযুদ্ধের ঐতিহাসিক স্লোগান ‘জয় বাংলাকে’ জাতীয় ধ্বনি করার প্রস্তাব রেখেছেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি শাজাহান খান। একইসঙ্গে ২৫ মার্চকে গণহত্যা দিবস ঘোষণার দাবিও করেছেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার (২৯ অক্টোবর) চট্টগ্রাম সার্কিট হাউসে বিভাগীয় পর্যায়ের মুক্তিযোদ্ধাদের মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। সম্মিলিত মুক্তিযোদ্ধা সংসদ চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিটি এ সভার আয়োজন করে।

আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য শাজাহান খান বলেন, ‘তৃণমূল পর্যায় থেকে একাত্তরের রাজাকার, আলবদর, আলশামস্, শান্তি কমিটি ও পাকিস্তানি মুজাহিদ বাহিনীর সদস্যদের চিহ্নিত করতে হবে। মুক্তিযোদ্ধা সংসদের স্থানীয় ইউনিটকে তাদের নামের তালিকা তৈরি করে মন্ত্রণালয়ে জমা দিতে হবে। এছাড়া এলাকাভিত্তিক প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধার তালিকা করে মন্ত্রণালয়ে জমা দিলে তা পর্যায়ক্রমে প্রকাশ করা হবে। কোনো অমুক্তিযোদ্ধা এ তালিকায় থাকতে পারবে না। এ বিষয়ে স্ট্যান্ডিং কমিটির সভায় সিদ্ধান্ত নিয়ে ছয় সদস্যের কমিটি করা হয়েছে।’

বিজ্ঞাপন

আগামী জানুয়ারিতে মুক্তিযোদ্ধা সংসদের নির্বাচন অনুষ্ঠানের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে তিনি জানিয়েছেন। এছাড়া মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতা ২০ হাজার টাকা করার একটি প্রস্তাব সরকারের কাছে পাঠানো হয়েছে বলেও জানান তিনি।

সাবেক মন্ত্রী শাজাহান খান আরও বলেন, ‘এদেশে কিছু যুদ্ধাপরাধীদের বিচার হয়েছে। অনেকের বিচার এখনও চলমান আছে। শেখ হাসিনার সরকারের উন্নয়ন সহ্য করতে না পেরে বিএনপি-জামাতচক্র ২০১৫ সালে হরতাল-অবরোধের নামে দেশে আগুন দিয়ে মানুষ ও গাড়ি পুড়িয়েছে। যারা পুড়িয়ে মানুষ হত্যা করেছে তারা কখনো মুসলমান জাতি হিসেবে পরিচয় দিতে পারে না। তাদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে।’

বিজ্ঞাপন

মুক্তিযোদ্ধা সংসদ চট্টগ্রাম মহানগর ইউনিটের কমান্ডার মোজাফফর আহমদের সভাপতিত্বে এবং জেলা ইউনিটের ডেপুটি কমান্ডার একেএম সরোয়ার কামাল দুলুর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় আরও বক্তব্য রাখেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য মোছলেম উদ্দিন আহমেদ, সম্মিলিত মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সচিব ওসমান আলী ও যুগ্ম সদস্য সচিব এবিএম সুলতান আহমেদ।

সভায় চট্টগ্রাম বিভাগের বিভিন্ন জেলা থেকে আসা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার-ডেপুটি কমান্ডাররা বক্তব্য রাখেন।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/আরডি/এমও

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন