বিজ্ঞাপন

চাকরিচ্যুতির প্রতিবাদে শ্রম ভবনে অবস্থান কর্মসূচি জিপি কর্মীদের

October 29, 2020 | 6:12 pm

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: গ্রামীণফোন এমপ্লয়িজ ইউনিয়নের (জিপিইইউ) সাধারণ সম্পাদক মিয়া মোহাম্মদ শফিকুর রহমান মাসুদকে চাকরিচ্যুতির প্রতিবাদে কর্মসূচি অব্যাহত রেখেছেন গ্রামীণফোন এমপ্লয়িজ ইউনিয়ন ইউনয়ন নেতাকর্মীরা। গ্রামীণফোন হাউজে প্রতিবাদ কর্মসূচি পালনের পর এবার তারা জাতীয় শ্রম ভবনে মানববন্ধন ও অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছেন।

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার (২৯ অক্টোবর) রাজধানীর বিজয় নগরে জাতীয় শ্রম ভবনের সামনে গ্রামীণফোন এমপ্লয়িজ ইউনিয়নের নেতাকর্মীরা এই কর্মসূচি পালন করেন। সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত তারা সেখানে অবস্থান করেন।

প্রতিবাদ কর্মসূবিতে দাবি করা হয়, গ্রামীণফোন এমপ্লয়িজ ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদককে  অবিলম্বে স্বপদে পুনর্বহাল করতে হবে।

বিজ্ঞাপন

চাকরিচ্যুতির প্রতিবাদে শ্রম ভবনে অবস্থান কর্মসূচি জিপি কর্মীদের

জিপিইইউর ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ফজলুল হকের নেতৃত্বে এই সমাবেশ থেকে আন্দোলনকারীরা জানান, কলকারখানা অধিদফতর করোনার শুরুতে পরিপত্র জারি করেছিল। তাতে ডিসেম্বর মাস পর্যন্ত কোনো কর্মীকে চাকরিচ্যুত না করতে বলা হয়েছিল। এক্ষেত্রে গ্রামীণফোন সেই পরিপত্রের নির্দেশনাও মানেনি। বরং সম্পূর্ণ গায়ের জোরে বাংলাদেশ শ্রম আইন-২০০৬-এর ২৬ ধারা প্রয়োগ করে টার্মিনেট করা হয়েছে, যা সম্পূর্ণ উদ্দেশ্যপ্রণোদিত।

বিজ্ঞাপন

তারা বলেন, গ্রামীণফোন তার কর্মীদের হোম অফিসে পাঠিয়ে দিয়ে অনেককে কর্মহীন করে গণছাঁটাইয়ের অপতৎপরতা চালাচ্ছিল, যা মিয়া মাসুদ রুখে দেওয়ার জন্য কোম্পানির ভেতরে ও বাইরে কাজ করেছেন। তিনি বিভিন্ন সরকারি দফতরে চিঠি দিয়েছেন। শ্রম স্বার্থ রক্ষায় আন্তর্জাতিকভাবে যারা কাজ করেন, তাদের সহযোগিতা চেয়েছেন।

এসব কারণেই গ্রামীণফোন মিয়া মাসুদকে গণছাঁটাইয়ের পথে প্রধান বাধা হিসেবে চিহ্নিত করে বলে উল্লেখ করেন আন্দোলনকারীরা। তারা বলেন, ভবিষ্যতে সহজভাবে গণছাঁটাইয়ের সুবিধার্থে মাস্টারপ্ল্যান করে মাসুদকে টার্মিনেট করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

মিয়া মোহাম্মদ শফিকুর রহমান মাসুদ গ্রামীণফোনের বিজনেস ডিভিশনের বিজনেস গভর্ন্যান্স অ্যান্ড ইন্টার্নাল কমপ্লায়েন্স বিভাগের সিনিয়র স্পেশালিস্ট হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

গ্রামীণফোন এমপ্লয়িজ ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বলেন, জিপিইইউয়ের সাধারণ সম্পাদক মিয়া মাসুদকে চাকরিতে পুনর্বহাল না করা পর্যন্ত আমরা ধারাবাহিকভাবে আইনি ও  শান্তিপূর্ণভাবে আন্দোলন কর্মসূচি চালিয়ে যাব।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/ইউজে/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন