বিজ্ঞাপন

মাসুদকে চাকরিতে পুনর্বহালের দাবি গ্রামীণফোন এমপ্লয়িজ ইউনিয়নের

October 31, 2020 | 6:20 pm

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: গ্রামীণফোন এমপ্লয়িজ ইউনিয়নের জেনারেল সেক্রেটারি মিয়া মাসুদকে চাকুরিচ্যুত করার প্রতিবাদে ও স্বপদে পুনর্বহালের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন ও মানববন্ধন করেছে জিপিইইউ ও গ্রামীণফোনের সাধারণ কর্মীরা। সংবাদ সম্মেলনে মাসুদকে আগামী রোববারের (১ নভেম্বর) মধ্যে চাকরিতে পুনর্বহালের দাবি জানানো হয়েছে। না হলে আন্দোলন আরও তীব্র হবে বলে হুঁশিয়ারি দেন নেতারা।

বিজ্ঞাপন

এর আগে চাকুরিচ্যুত করার পরের দিন (২৯ অক্টোবর) গ্রামীণফোনের সাধারণ কর্মীরা তাদের হেড অফিসের সামনে মানববন্ধন ও অবস্থান কর্মসূচি পালন করে। দ্বিতীয় দিনে (৩০ অক্টোবর) শ্রম ভবনের সামনে মানব বন্ধন ও অবস্থান কর্মসূচি পালন করে।

শনিবার (৩১ অক্টোবর) তৃতীয় দিনের প্রতিবাদ কর্মসূচির অংশ হিসেবে জাতীয় প্রেস ক্লাবে মানববন্ধন করেছে জিপিইইউ ও গ্রামীণফোনের সাধারণ কর্মীরা। জিপিইইউয়ের সাধারণ সম্পাদককে অনতিবিলম্বে স্বপদে পুনর্বহালের দাবিতে জাতীয় প্রেসক্লাবের জহুর হোসেন চৌধুরী হল প্রাঙ্গনে সকাল ১০ টায়, ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ফজলুল হকের সভাপতিত্বে এক গুরুত্বপূর্ণ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

বিজ্ঞাপন

উক্ত সংবাদ সম্মেলনে গ্রামীনফোন এমপ্লয়িজ ইউনিয়নের সাথে একত্মতা প্রকাশ করে সমাজের অনেক সংগঠনের নেতা কর্মীরা যোগদান করেন। তাদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য এ কে এম মোস্তফা কামাল, জেনারেল সেক্রেটারি, UNIBLC; মোহা. আমজাদ আলী খান, প্রেসিডেন্ট, ইউনিবিএলসি; গোলাম মাহমুদ সোহাগ, সভাপতি বাংলা লিংক এমপ্লয়ি ইউনিয়ন; মো. কামরুজ্জামান, সভাপতি, গ্রামীণ টেলিকম; জিনাত রেহানা নাসরিন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, জাতীয় মহিলা শ্রমিক লিগ ও উপদেষ্টা জিপিইইউ। এ ছাড়াও জিপিইইউর সাংগঠনিক সম্পাদক মাতুজ আলী কাদেরী সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন।

UNIBLC জেনারেল সেক্রেটারি এ কে এম মোস্তফা কামাল গ্রামীনফোন ম্যানেজমেন্টকে অনুরোধ করে বলেন, ‘রোববারের (১ নভেম্বর) মধ্যে মিয়া মাসুদকে তার চাকরিতে পুনর্বহাল করার জন্য। যদি তা না করা হয় তাহলে যে দুর্বার আন্দোলন গড়ে উঠবে সেই আন্দোলন বাংলাদেশ ছাড়িয়ে সারাবিশ্বে ছড়িয়ে পড়বে, কারণ মিয়া মাসুদ শুধু জিপিইইউ এর জেনারেল সেক্রেটারিই নয়, অনেক ইন্টারন্যাশনাল লেবার অর্গানিজশনের সঙ্গে তিনি সম্পৃক্ত। সম্মেলনে অন্য সকল বক্তাগণ ও মিয়া মাসুদকে তার চাকরিতে অতিসত্বর পুনর্বহালের দাবি জানান।

বিজ্ঞাপন

সংবাদ সম্মেলনের মূল পর্যায়ে জিপিইইউর ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ফজলুল একটি প্রেস ব্রিফিং করেন এবং কিভাবে গ্রামীনফোন অন্যায়ভাবে শ্রমিক স্বার্থের বিরুদ্ধে গিয়ে মিয়া মাসুদকে টার্মিনেট করে তার পূর্ণাঙ্গ চিত্র তুলে ধরেন। উক্ত সম্মেলনে মিয়া মাসুদ তার বক্তব্যে তুলে ধরেন কেন তাকে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে। বিগত কয়েক মাস ধরে গ্রামীনফোন কর্তৃপক্ষ প্রায় ২০০ জন এম্পপ্লয়িকে কাজ করা থেকে বিরত রেখেছে চাকরিচ্যুত করার হীন উদ্দেশে। সে উদ্দেশ্য মিয়া মাসুদের নেতৃত্বে জিপিইইউ রুখে দেয় এবং এটাই কাল হলে গেলো গ্রামীনফোন এর জন্য। গ্রামীণফোন কর্তৃপক্ষ এবং এর মূল মালিকানা টেলিনর একসঙ্গে মিলে মিয়া মাসুদকে চাকরিচ্যুত করে। কারণ কর্তৃপক্ষের ধারণা মিয়া মাসুদ না থাকলে শত শত কর্মী ছাটাইয়ের প্ল্যান বাস্তবায়ন করতে আর কোনো অসুবিধা হবে না।

সম্মেলন থেকে আন্দোলনকারীরা আবার ও গ্রামীনফোন ম্যানেজমেন্টকে অনুরোধ করেছে রোববারের মধ্যে মিয়া মাসুদকে তার চাকরিতে পুনর্বহাল করার জন্য। যদি তা না করা হয় তাহলে জিপিইইউ গ্রামীনফোনের সকল এমপ্লয়ীদের সাথে নিয়ে আরো দুর্বার আন্দোলনের ডাক দিবে। গ্রামীণফোন এমপ্লয়িজ ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বলেন জিপিইইউয়ের সাধারণ সম্পাদক মিয়া মাসুদকে চাকুরিতে পুনর্বহাল না করা পর্যন্ত আমরা ধারাবাহিকভাবে আইনানুগ ও শান্তিপূর্ণ উপায়ে আন্দোলন কর্মসূচি চালিয়ে যাবো। প্রয়োজনে বাংলাদেশের সকল শ্রমজীবী মানুষকে সাথে নিয়ে কঠিন থেকে কঠিনতর কর্মসূচি পালন করবে জিপিইইউ।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/ইউজে/একে

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন