বিজ্ঞাপন

নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে আইনি যুদ্ধ রাশিয়ার

November 2, 2020 | 3:03 pm

স্পোর্টস ডেস্ক

ক্রীড়াবিদদের শরীরে নিষিদ্ধ মেলনাডিয়াম সাধারণ ঔষুধ হিসেবে ব্যবহারের অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় আন্তর্জাতিক সকল ক্রীড়া ইভেন্টে থেকে চার বছরের জন্য নিষিদ্ধ হয় রাশিয়া। সুইজারল্যান্ডে ওয়াডার কার্যনির্বাহী সভায় এই সিদ্ধান্ত জানায় গত বছর। এর ২১ দিনের ভেতরেই আপিল করে রাশিয়া। বর্তমানে সুইজারল্যান্ডের কোর্ট অব আরবিট্রেশন ফর স্পোর্টে অধীনে বিচারাধীন রয়েছে। আর সেখানেই ওয়াডার সঙ্গে আইনি যুদ্ধ চলছে রাশিয়ার অ্যান্টি ডোপিং এজেন্সির।

বিজ্ঞাপন

বিশ্ব অ্যান্টি ডোপিং এজেন্সি (ওয়াডা) ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে রাশিয়াকে আন্তর্জাতিক ক্রীড়া ইভেন্ট থেকে নিষিদ্ধ করে। নিষেধাজ্ঞার কবলে পড়ে ২০২০ সালের টোকিও অলিম্পিক, ২০২০ সালের কাতার ফুটবল বিশ্বকাপেও অংশগ্রহণ করতে পারবে না রাশিয়া। এই সপ্তাহের কোর্ট অফ আরবিট্রেশন ফর স্পোর্ট'র (সিএএস) শুনানি আগামী শুক্রবার পর্যন্ত চলবে বলে ধারণা করা হচ্ছে, যেখানে ইতোমধ্যেই দ্বন্দ্বে জড়িয়েছে দুই পক্ষ।

ওয়াডা সিএএস'কে অনুরোধ করেছিল যেন শুনানিটি জনসম্মুখে অনুষ্ঠিত হয়। তবে জনসম্মুখে শুনানি আয়োজনের জন্য দুই পক্ষকেই একমত হতে হয়, কিন্তু রাশিয়া এই ব্যাপারে একমত পোষণ করেনি। ফলে বদ্ধ আদালতেই অনুষ্ঠিত হচ্ছে শুনানি।

বিজ্ঞাপন

নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে আইনি যুদ্ধ রাশিয়ার

রাশিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী দিমত্রি মেদ্ভেদভ ইতোমধ্যেই জানিয়েছেন এটি রাশিয়ার বিরুদ্ধে একটি চক্রান্ত। এদিকে রাশিয়ার জন্য কোনো প্রকার সহমর্মিতা দেখালে আমেরিকা তাদের অনুদানের ২ দশমিক ৭ মিলিয়ন ইউরো প্রত্যাহার করে নেবে।

বিজ্ঞাপন

'এই শুনানির প্রস্তুতির ক্ষেত্রে ওয়াডা কোনো প্রকার ছাড় দেওয়া হয়নি। এবং আমরা আমাদের মামলাটি সুস্পষ্ট ও সুষ্ঠুভাবে প্যানেলের সামনে উপস্থাপনের সুযোগের অপেক্ষায় রয়েছি।'-জানিয়েছেন ওয়াডা সভাপতি উইটল্ড বাঁকা।

তিনি আরও বলেন, 'আমি নিশ্চিত যে ওয়াডা নির্বাহি কমিটি গত ডিসেম্বরে এই ব্যাপারে সঠিক সিদ্ধান্তই নিয়েছিল। প্রতিটি পর্যায়ে যেমন আমরা এই জটিল বিষয়টি কার্যকরভাবে মোকাবিলা চালিয়ে যাচ্ছি, তেমনি আমরা রাশিয়ার অ্যান্টি ডোপিং এজেন্সির সঙ্গেও এই বিষয়ে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছি।'

বিজ্ঞাপন

২০১৯ সালের জানুয়ারিতে ক্রীড়াবিদদের তথ্য ওয়াডার কাছে হস্তান্তর করে রাশিয়া, সেপ্টেম্বরেই রাশিয়াকে তলব করে ওয়াডা। যেখানে ওয়াডা রাশিয়ার কাছে জানতে চায় তাদের তথ্য অধারাবাহিক কেন? শেষ পর্যন্ত রাশিয়া সঠিক ব্যাখ্যা দিতে ব্যর্থ হলে ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে সব ধরনের আন্তর্জতিক টুর্নামেন্টে নিষিদ্ধ করা হয় দেশটিকে।

এদিকে বৈশ্বিক টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণ করতে না পারলেও আঞ্চলিক টুর্নামেন্টগুলোতে অংশগ্রহণ করতে পারবে রাশিয়া। বিশ্ব অ্যান্টি ডোপিং এজেন্সি (ওয়াডা) ৯ ডিসেম্বর রাশিয়াকে চার বছরের জন্য আন্তর্জাতিক সব ধরনের টুর্নামেন্ট থেকে নিষিদ্ধ করে রাশিয়াকে। যদি কোনো রাশিয়ান অ্যাথলেট ব্যাক্তিগতভাবে টুর্নামেন্টে অংশ নিতে চায় তাহলে তাদেরকে ডোপ টেস্টে উত্তীর্ণ হতে হবে, কিন্তু শর্ত হিসেবে রয়েছে দেশ হিসেবে রাশিয়ার নাম ব্যবহার করতে পারবেন না অ্যাথলেটরা।

বিজ্ঞাপন

এর আগে ২০১৪ সালে ডোপ পজিটিভ হবার কারণে তিন বছরের জন্য নিষিদ্ধ হয়েছিল রাশিয়া। যার ফলে ২০১৮ সালের শীতকালীন অলিম্পিকে রাশিয়ার ১৫০ এর বেশি অ্যাথলেট অংশগ্রহণ করেছিলেন রাশিয়ার পতাকা ব্যতীত।

সারাবাংলা/এসএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন