বিজ্ঞাপন

স্মিথ, ম্যাক্সওয়েল তাণ্ডবে লণ্ডভণ্ড ভারত

November 29, 2020 | 2:13 pm

স্পোর্টস ডেস্ক

সিডনিতে প্রথম একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচটা যেখানে শেষ করেছিলেন দ্বিতীয় ম্যাচটা ঠিক সেখান থেকেই শুরু করেছে অস্ট্রেলিয়া। প্রথম ম্যাচের নেয় দ্বিতীয় ম্যাচেও ভারতীয় বোলিং লাইন আপকে লণ্ডভণ্ড করে দিয়েছে অজি ব্যাটসম্যানরা। ভারতের বিপক্ষে নিজেদের দলীয় সর্বোচ্চ রানও সংগ্রহ করেছে এদিন। আর স্টিভ স্মিথের আরও এক শতকের পাশে গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের টর্নেডোতে শেষ পর্যন্ত অজিরা থেমেছে ৩৮৯ রানে।

বিজ্ঞাপন

টস জিতে আগে ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই ভারতীয় বোলারদের ওপর চড়াও হয়েছেন দুই অজি ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার এবং অ্যারন ফিঞ্চ। উদ্বোধনী জুটিতে এই দুই ব্যাটসম্যান তোলেন ১৪২ রান। ইনিংসের ২৩তম ওভারে ৬৯ বলে ৬০ রান করে ফিঞ্চ ফিরলে ভাঙে উদ্বোধনী জুটি এরপর দলীয় ১৫৬ রানে ২৬তম ওভারে ওয়ার্নার ৭৭ বলে ৮৩ রানের ইনিংস খেলে রান আউট হয়ে ফিরলে কিছুটা চাপে পড়ে অজিরা।

তবে উইকেটে আসা নতুন দুই ব্যাটসম্যান স্টিভ স্মিথ ও মার্নাস লাবুশেন মিলে চাপকে শক্তিতে রূপান্তর করেন। তৃতীয় উইকেটে এই দুইজন মিলে গড়েন ১৩৬ রানের জুটি। এই জুটি ভয়ংকর হয়ে ওঠার এক পর্যায়ে অস্ট্রেলিয়া ৪০০ রানের স্বপ্ন দেখছিল। কিন্তু ৬২ বলে শতক হাঁকানো স্মিথ ৬৪ বলে ১০৪ রানে ফিরলে কিছুটা পিছিয়ে পড়ে অজিরা। স্মিথ এদিন ১৪টি চার ও দুটি ছক্কায় ইনিংস সাজান।

বিজ্ঞাপন

স্মিথ, ম্যাক্সওয়েল তাণ্ডবে লণ্ডভণ্ড ভারত

এই নিয়ে ভারতের বিপক্ষে টানা তিন ইনিংসে শতক হাঁকালেন স্মিথ। আর শেষ পাঁচ ইনিংসের রান যথাক্রমে আজকের ম্যাচ থেকে ৬৪ বলে ১০৪; ৬৬ বলে ১০৫; ব্যাঙ্গালুরুতে ১৩২ বলে ১৩১; রাজকোটে ১০২ বলে ৯৮ আর দ্য ওভালে ৭০ বলে ৬৯ রান।

বিজ্ঞাপন

স্মিথ ফিরলে ক্রিজে আসেন গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। এসেই প্রথম ম্যাচের ন্যয় তাণ্ডব চালাতে শুরু করেন ভারতীয় বোলিং লাইন আপের ওপর। একের পর এক বাউন্ডারি ওভার বাউন্ডারিতে নাস্তানাবুদ করতে থাকে ভারতীয় বোলারদের। এর ভেতরেই মার্নাস লানুশেন নিজের অর্ধশতক তুলে নেন। যদিও ইনিংসের শেষ দিকে এসে লাবুশেন ৬১ বলে ৭০ রান করে ফেরেন।

কিন্তু তখনও শেষ হয়নি ম্যাক্সওয়েল তাণ্ডব, ২৯ বলে ৪টি চার ও ৪টি ছক্কার মারে ৬৩ রানে অপরাজিত থেকে দলকে ভারতের বিপক্ষে নিজেদের রেকর্ড সর্বোচ্চ ৩৮৯ রান এনে দেন এই হার্ড হিটার। গত ম্যাচেই ভারতের বিপক্ষে নিজেদের ইতিহাসের সর্বোচ্চ ৩৭৪ রান তুলেছিল অস্ট্রেলিয়া। আর এক দিন বিরতির পরেই নতুন করে রেকর্ড বইয়ে নাম লেখালো অস্ট্রেলিয়া।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এসএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন