বিজ্ঞাপন

গাজী গ্রুপ চট্টগ্রামের চারে চার

December 2, 2020 | 10:31 pm

স্পোর্টস ডেস্ক

লিটন দাস, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, সৌম্য সরকারদের দারুণ ব্যাটিংয়ে ১৭৬ রান তুলেছিল গাজী গ্রুপ চট্টগ্রাম। টুর্নামেন্টে এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ সংগ্রহের রেকর্ড এটি। মনে হচ্ছিল ম্যাচটা সেখানেই জিতে গেছে চট্টগ্রাম! টুর্নামেন্টের শুরু থেকে চট্টগ্রামের বোলিং আক্রমণ প্রতিপক্ষকে যেভাবে শাসন করে আসছে তাতে মনে হচ্ছিল না রাজশাহীর ব্যাটিং লাইনআপ রেকর্ড গড়ে জিততে পারবে। পারেওনি অবশ্য, কিন্তু হাড্ডাহাড্ডি লড়াই করেছে পদ্মাপাড়ের দলটি। চট্টগ্রাম-রাজশাহীর লড়াই শেষে আজ ১ রানে ম্যাচ জিতেছে চট্টগ্রাম।

বিজ্ঞাপন

১৮ ওভার শেষে রাজশাহীর স্কোর ছিল ১১৯/৩। জিততে তখন ওভারপ্রতি প্রায় ১২ রান করে লাগত রাজশাহীর। এদিকে চট্টগ্রামের সেরা দুই বোলার মোস্তাফিজুর রহমান ও শরিফুল ইসলাম দু'জন মিলিয়ে পাঁচ ওভার বাকি। টুর্নামেন্টের সেরা বোলার মোস্তাফিজের বাকি ছিল তিন ওভার। কে ভেবেছিল তবুও লড়াই জমাতে পারবে রাজশাহী!

কিন্তু মেহেদি হাসান, ফজলে রাব্বি, রনি তালুকদার, ফরহাদ রেজাদের ছোট ছোট কয়েকটা ইনিংস ম্যাচ জমিয়ে তুলেছিল। শেষ ওভারে দরকার ছিল ১৪ রান। মোস্তাফিজের করা ওভারের চতুর্থ ও পঞ্চম বল থেকে দশ রান তুলে নেওয়া রাজশাহী শেষ পর্যন্ত ১২ রান তুলতে পেরেছে। ১ রানে ম্যাচ জিতে নিয়েছে চট্টগ্রাম। টুর্নামেন্টে এ নিয়ে চার ম্যাচ খেলে সবকটিতেই জিতল বন্দরনগরির দলটি।

বিজ্ঞাপন

২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৭৫ রানে থেমেছে রাজশাহীর ইনিংস। ওপেনার আনিছুল ইসলাম ইমন ৪৪ বলে সর্বোচ্চ ৫৮ রান করেন। নাজমুল হোসেন শান্ত ১৪ বলে ২২, মোহাম্মদ আশরাফুল ১৯ বলে ২০, মেহেদি হাসান ১৭ বলে ২৫, ফরহাদ রেজা ও রনি তালুকদার ৫ বলে ১২ করে রান করেন।

মোস্তাফিজ তিন উইকেট পেয়েছেন ঠিকই, কিন্তু রান খরচ করেছেন ৩৭টি। ৪১ রানে দুই উইকেট পেয়েছেন শরিফুল ইসলাম।

বিজ্ঞাপন

গাজী গ্রুপ চট্টগ্রামের চারে চার

এর আগে চট্টগ্রামের ১৭৮ রানের রেকর্ড সংগ্রহে বড় অবদান লিটন কুমার দাসের। মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত ও সৌম্য সরকার দারুণ সঙ্গ দিয়েছেন তাকে। চট্টগ্রামের ওপেনিং জুটিই বলছিল, বড় সংগ্রহ আসছে।

বিজ্ঞাপন

ফর্মে থাকা দুই ওপেনার লিটন দাস ও সৌম্য সরকার প্রথম উইকেটেই তোলেন ৬২ রান। এ নিয়ে টুর্নামেন্টে চার ম্যাচের মধ্যে তিন ম্যাচেই ষাটোর্ধ্ব ওপেনিং জুটি গড়লেন লিটন-সৌম্য। ২৫ বলে ৪টি চার ২টি ছয়ে সৌম্য ৩৪ রান করে ফিরলে পরে মোহাম্মদ মিঠুন (১১) ও সামছুর রহমান (১) সুবিধা করতে পারেননি। তবে পাঁচে নেমে পাল্টা আক্রমণের পথ বেছে নেন মোসাদ্দেক হোসেন। লিটনও অবিচলই ছিলেন।

২৮ বলে ২টি করে চার ছয় হাঁকিয়ে ৪২ রান করেন মোসাদ্দেক। লিটন ৭৮ রান করে অপরাজিত ছিলেন শেষ অবধি। তার ৫৩ রানের ইনিংসটিতে চারের মার ৯টি, ছক্কা ১টি। ২০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ১৭৮ রান তোলে চট্টগ্রাম। রাজশাহীর হয়ে ৩০ রানে তিন উইকেট নিয়েছেন মুকিদুল ইসলাম।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এসএইচএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন