বিজ্ঞাপন

ডেপুটি অ্যাটর্নি রুপার রিট খারিজ, হাজির হতেই হবে দুদকে

December 3, 2020 | 7:56 pm

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: দুর্নীতি দমন কমিশনে (দুদক) তলব করে দেওয়া নোটিশের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল জান্নাতুল ফেরদৌসী রুপার দায়ের করা রিট আবেদন সরাসরি খারিজ করে দিয়েছেন হাইকোর্ট। তাকে আগামী ২৭ জানুয়ারির মধ্যে দুদক কার্যালয়ে হাজির হতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার (৩ ডিসেম্বর) বিচারপতি মো. মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি এ কে এম জহিরুল হকের হাইকোর্ট বেঞ্চ রিটটি খারিজ করে দেন।

আদালতে রুপার পক্ষে শুনানি করেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী শফিক আহমেদ, জেড আই খান পান্না ও সালাউদ্দিন দোলন। দুদকের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী খুরশিদ আলম খান। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আসাদুজ্জামান মনির।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলাকে রুপার রিট খারিজের তথ্য নিশ্চিত করেছেন দুদকের আইনজীবী মো. খুরশীদ আলম খান। তিনি বলেন, ‘আদালত ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল রুপার রিট আবেদনটি সরাসরি খারিজ করে দিয়েছেন। রুপা অসুস্থ থাকায় আদালত তাকে সময় দিয়েছেন। আগামী ২৭ জানুয়ারি বা তার আগে তাকে দুদকে হাজির হতে হবে।’

ক্ষমতার অপব্যবহারের মাধ্যমে ঘুষ নিয়ে গোলাম কিবরিয়া শামীমসহ (জি কে শামীম) বিভিন্ন আসামির সঙ্গে আঁতাতের অভিযোগ ওঠে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল রুপার বিরুদ্ধে। অভিযোগে বলা হয়, জি কে শামীমসহ আসামিদের জামিন করিয়ে বিপুল পরিমাণ অর্থ লোপাটসহ অবৈধ সম্পদ অর্জন করেছেন তিনি। এ কারণে তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তলব করে দুদক। গত ২৮ অক্টোবর দুদকের ঢাকা সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের উপপরিচালক মোহাম্মদ ইব্রাহিমের সই করা নোটিশে তাকে তলব করা হয়। ৪ নভেম্বর সকাল ১০টায় তাকে দুদকে হাজির হতে বলা হয়েছিল।

বিজ্ঞাপন

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি থাকায় ৪ নভেম্বর দুদকে হাজির হতে পারছেন না জানিয়ে সময়ের আবেদন করেছিলেন রুপা। একইসঙ্গে দুদকের ওই নোটিশের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে গত ১ নভেম্বর রিট দায়ের করেন তিনি।

পরদিন ২ নভেম্বর বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি আহমেদ সোহেলের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ রিটটি শুনানি করতে অপারগতা প্রকাশ করেন। পরদিন ৩ নভেম্বর বিচারপতি মো. মঈনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি এ কে এম জহিরুল হকের হাইকোর্ট বেঞ্চ রিট শুনানি ৩ ডিসেম্বর পর্যন্ত মুলতবি করেন। একইসঙ্গে অসুস্থতার কারণে রুপাকে দুদকে হাজির হওয়ার জন্য একমাস সময় দেন আদালত। সেই একমাস সময় শেষে আজ একই আদালত রিটটি খারিজ করে দিলেন।

বিজ্ঞাপন

এর আগে, গত ২১ আগস্ট জি কে শামীমের জামিনের সঙ্গে রুপার সম্পৃক্ততা নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছিল সারাবাংলা। হাইকোর্টে ভুয়া নাম ব্যবহার ও জালিয়াতি করে ক্যাসিনো কেলেঙ্কারিতে জড়িত জি কে শামীমকে টাকা নিয়ে জামিন করিয়ে দেওয়ার পাশাপাশি অনিয়ম, দুর্নীতি ও ক্ষমতার অপব্যবহার করে বিপুল পরিমাণ অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ ওঠে তার বিরুদ্ধে। এ সংক্রান্ত অভিযোগ দুদকে জমা পড়লে দুদক সেটি তদন্ত শুরু করে।

সারাবাংলা/কেআইএফ/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন