বিজ্ঞাপন

‘আওয়ামী দুঃশাসন’ অবসানে গণঅভ্যুত্থান গড়ে তোলার ডাক বাম জোটের

December 30, 2020 | 9:53 pm

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর ভোট ডাকাতির মাধ্যমে আওয়ামী লীগ ফের ক্ষমতায় এসেছে বলে অভিযোগ করেছেন বাম গণতান্ত্রিক জোটের নেতারা। ‘দিনের ভোট রাতে করে অবৈধভাবে পুনঃক্ষমতাসীন হয়েছে’ অভিযোগ করে আওয়ামী লীগ সরকারের পদত্যাগের দাবিতে দেশব্যাপী ‘কালো দিবস’ কর্মসূচি পালন করেছে। কর্মসূচি থেকে ‘আওয়ামী দুঃশাসনে’র অবসান ঘটাতে গণঅভ্যুত্থান গড়ে তোলার আহ্বান জানিয়েছেন জোট নেতারা।

বিজ্ঞাপন

বুধবার (৩০ ডিসেম্বর) ঢাকাসহ সারাদেশে ‘কালো দিবস’ কর্মসূচি পালন করেছে বাম গণতান্ত্রিক জোট। কর্মসূচিতে কালো পতাকা প্রদর্শন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করা হয়েছে।

‘কালো দিবস’ পালনে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে বুধবার সকালে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় অভিমুখে ‘কালো পতাকা’ মিছিল নিয়ে যাত্রা করেন জোটের কেন্দ্রীয় নেতারা। পল্টনে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে কালো পতাকা মিছিল শুরুর পর মৎস্য ভবনের সামনে পুলিশের বাধার মুখে পড়ে। সেই বাধা অতিক্রম করে বিক্ষোভ মিছিল এগিয়ে গেলে শাহবাগে দ্বিতীয় দফায় তাদের বাধা দেয় পুলিশ। সেখানে পুলিশের হামলায় কেন্দ্রীয় নেতা বাচ্চু ভূইয়া, ছাত্রনেতা বিল্লাল হোসেন ও রিপন আহত হন বলে জানিয়েছে বাম গণতান্ত্রিক জোট।

বিজ্ঞাপন

এর আগে, জোটের সমন্বয়ক ও সিপিবি’র প্রেসিডিয়াম সদস্য আবদুল্লাহ ক্বাফী রতনের সভাপতিত্বে পুরানা পল্টন মোড়ে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশ থেকে ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর ‘ভোট ডাকাতি’র নির্বাচনের আয়োজক ও ‘আর্থিক কেলেঙ্কারিতে জড়িত’ বর্তমান নির্বাচন কমিশনের পদত্যাগের দাবিতে আগামী ৬ জানুয়ারি আগারগাঁওয়ে নির্বাচন কমিশনের প্রধান কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ কর্মসূচি ঘোষণা করা  হয়।

সমাবেশে বক্তরা বলেন, দুই বছর আগে অনুষ্ঠিত জাতীয় নির্বাচনে ভোট ডাকাতি হয়েছে। সেই নির্বাচনের মধ্য দিয়ে গঠিত সরকার ভুয়া সরকার। আমরা ভোট ডাকাতির নির্বাচন বাতিল, ক্ষমতাসীন সরকারের পদত্যাগ এবং একইসঙ্গে পুনঃনির্বাচনের দাবি জানাই। দাবি আদায়ে কঠোর আন্দোলন গড়ে তুলে গণঅভ্যুত্থানের মাধ্যমে এ সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করতে নেতারা দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানান।

বিজ্ঞাপন

সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক, বাসদের কেন্দ্রীয় সদস্য রাজেকুজ্জামান রতন, গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়ক জোনায়েদ সাকী, বাসদ মার্কসবাদী’র কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য আ ক ম জহিরুল হক, ইউসিএলবি’র সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য নজরুল ইসলাম, গণতান্ত্রিক বিপ্লবী পার্টি’র কেন্দ্রীয় নেতা শহীদুল ইসলাম সবুজ, ওয়ার্কার্স পার্টির (মার্কসবাদী) কেন্দ্রীয় নেতা সিরাজুম মুনীর, সমাজতান্ত্রিক আন্দোলনের আহ্বায়ক হামিদুল হক।

বক্তরা ময়মনসিংহে বাম গণতান্ত্রিক জোটের সমাবেশে পুলিশের বাধা এবং ছাত্র ফ্রন্টের নেতা অজিত, আরিফ ও সঞ্জয়ের গ্রেফতারের নিন্দা জানান।

সারাবাংলা/এএইচএইচ/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন