বিজ্ঞাপন

ফখরুল সাহেবরা সরকারের উন্নয়ন-সমৃদ্ধি চোখে দেখে না: নানক

January 11, 2021 | 10:13 pm

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ‘উন্নয়ন-সমৃদ্ধির মহানায়ক’ হিসেবে আখ্যা দিয়েছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক। তবে বিএনপি নেতারা এই উন্নয়ন-সমৃদ্ধি দেখতে পান না বলে মন্তব্য করেছেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

নানক বলেন, বাংলাদেশের উন্নয়ন-সমৃদ্ধির মহানায়ক হলেন আমাদের সফল রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনা। কিন্তু তারপরও মির্জা ফখরুলরা কিছু দেখেন না। তাদের ‘ম্যাডাম’ (বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া) বলেন— পদ্মাসেতু জোড়াতালি দিয়ে হয়, পদ্মাসেতু কোনোদিনই করতে পারবে না সরকার। কিন্তু সেই পদ্মাসেতুকে পূর্ণতা দিয়েছেন শেখ হাসিনা। কানা মির্জা ফখরুল সাহেবরা সরকারের উন্নয়ন দেখে না।

সোমবার (১১ জানুয়ারি) রাজধানীর রমনার ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে ঐতিহাসিক ১০ জানুয়ারি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ কেন্দ্রীয় কমিটি আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

বিজ্ঞাপন

সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আব্দুর রহমান এবং যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও স্বেচ্ছাসেবক লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি কৃষিবিদ আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম এবং তথ্য প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসান। সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি নির্মল রঞ্জন গুহের সভাপতিত্বে সভা পরিচালনা করেন সাধারণ সম্পাদক আফজালুর রহমান বাবু। এছাড়া সভায় কেন্দ্রীয় কমিটি ও ঢাকা মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগ উত্তর ও দক্ষিণের নেতারা বক্তব্য রাখেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের ঐতিহাসিক প্রেক্ষাপট এবং বঙ্গবন্ধুকন্যা আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন-অগ্রযাত্রার কথা তুলে ধরেন নানক। তিনি বলেন, আজ থেকে ৫০ বছর আগে জাতির পিতা যে স্বপ্ন দেখেছিলেন, সে স্বপ্ন একের পর এক বাস্তবায়ন করে চলছেন শেখ হাসিনা। তিনি একজন আন্তর্জাতিক স্বীকৃতিপ্রাপ্ত সফল রাষ্ট্রনায়ক। দুঃখী মানুষের আশ্রয়স্থল। তাই দেশের মানুষ মনে করে তার হাতে দেশ, দেশের সার্বভৌমত্ব ও জাতি সবচেয়ে নিরাপদ। তিনি জেগে আছেন বলে জাতি নিশ্চিন্তে ঘুমাতে পারে। সেই আস্থা থেকেই জনতার রায়ে তিনি চতুর্থবারের মতো রাষ্ট্রক্ষমতায় আছেন।

বিজ্ঞাপন

নানক বলেন, যারা একসময় বাংলাদেশকে তলাবিহীন ঝুড়ি বলেছে, সেই মার্কিন মুল্লুক বলছে— অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে বাংলাদেশের অগ্রগতি বিস্ময়কর। শেখ হাসিরার দূরদর্শী চিন্তা, রাজনৈতিক দৃঢ়তা এবং প্রশাসনিক সফলতার মাধ্যমে বাংলাদেশ সামাজিক অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে সবচেয়ে স্থিতিশীল দেশ হিসেবে বিরাজ করছে। আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে বাংলাদেশকে সম্মানজনক ও মর্যাদাপূর্ণ অবস্থানে আজ নিয়ে গেছেন শেখ হাসিনা। তিনি বৈশ্বিক মহামারি কোভিড-১৯ মোকাবিলায় দক্ষিণ এশিয়ায় সফলতার শীর্ষে।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের উদ্দেশে জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেন, ‘কানা’য় বলে— নির্বাচন হলেই নাকি ভোট ডাকাতির নির্বাচন হয়, এই নির্বাচনে অংশগ্রহণ অর্থহীন। আজকেও কানা ফখরুল সাহেব বলেছেন সে কথা। ফখরুল সাহেব ভুলে গেছেন, এই দেশের নির্বাচন ব্যবস্থাকে ধ্বংস করেছিল আপনার প্রতিষ্ঠাতা, আপনার আব্বা হুজুর জিয়াউর রহমান। এই দেশের গণতন্ত্রকে হত্যা করেছিল জেনারেল জিয়া। এই দেশে সেনাবাহিনীর সকল শৃঙ্খলাকে ভঙ্গ করেছিল জেনারেল জিয়াউর রহমান।

বিজ্ঞাপন

স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতাকর্মীদের উদ্দেশে নানক বলেন, এই সংগঠনটি বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা সময়ের প্রয়োজনে প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। আর সেই প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ছিলেন বাহাউদ্দিন নাছিম। আমি আশা করি, আপনারা একটি রাজনৈতিক সচেতন সমৃদ্ধ একটি সংগঠনে পরিণত হবেন।

সাম্প্রদায়িক অপশক্তির  বিষদাঁত ভেঙে দিতে প্রস্তুত থাকতে হবে

বিজ্ঞাপন

আব্দুর রহমান নেতাকর্মীদের নতুন করে শপথ নিয়ে বঙ্গবন্ধুর সোনার ছেলে হিসেবে নিজেদের গড়ে তোলার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, শেখ হাসিনাকে আমরা সেটাই উপহার দিতে চাই। তা যদি দিতে পারি, আজকে যে মোল্লাতন্ত্র, যে সাম্প্রদায়িক শক্তি, আজকের যে জঙ্গিবাদ, তাদের সবাইকে জবাব দেওয়া সম্ভব হবে। যারা বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নিয়ে কথা বলে দেশে নৈরাজ্য তৈরি করতে চায়, তাদের লক্ষ্য কিন্তু বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য না, তাদের লক্ষ্য ছিল ভাস্কর্য ইস্যু নিয়ে মাঠে নেমে শেখ হাসিনা সরকারের পতন ঘটানো!

আব্দুর রহমান আরও বলেন, লন্ডন থেকে অর্থ এসেছে। কারা অর্থ দিয়েছে, তারেক জিয়া লন্ডনে বসে কী ষড়যন্ত্র করে— এই জাতি তা জানে ও বোঝে। তাই আমাদের সাংগঠনিকভাবে শক্তিশালী হয়ে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সাম্প্রদায়িক অপশক্তির বিষদাঁত ভেঙে দেওয়ার জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে।

ঐক্যবদ্ধ থাকলে সাম্প্রদায়িক ধর্মব্যবসায়ীরা পরাস্ত করতে পারবে না

আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন, আমরা জাতির পিতার সুযোগ্য কন্যার নেতৃত্বে এগিয়ে চলছি। আজকে আমরা সমৃদ্ধ বাংলাদেশ হিসাবে বিশ্ববাসীর কাছে একটি উন্নয়নশীল গণমুখী এবং সমৃদ্ধ দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠা পেয়েছি। জাতির পিতা আমাদের মাঝে আছেন। সবসময় সব মুহূর্তে তিনি আমাদের মাঝে আছেন। তিনি আমাদের মাঝে থাকবেন। তার আদর্শ তার চেতনা তার লক্ষ্য বাস্তবায়নের জন্য আমরা সবাই শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ থাকলে কোনো পরাজিত শক্তি, কোনো সাম্প্রদায়িক শক্তি, কোনো ধর্মব্যবসায়ী আমাদেরকে পরাস্ত করতে পারবে না। আমরা এগিয়ে যাব। আমরাই সফল হবো। আমরাই বিজয়ী হব।

সারাবাংলা/এনআর/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন