বিজ্ঞাপন

বেরোবিতে আইন লঙ্ঘন করে ফলপ্রকাশ, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অবরুদ্ধ

January 14, 2021 | 8:05 pm

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট

রংপুর: বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে (বেরোবি) অনিয়ম করে একটি বিভাগের ফলপ্রকাশের ঘটনায় জড়িতদের শাস্তির দাবিতে পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক নাজমুল হককে অবরুদ্ধ করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১৪ জানুয়ারি) বিকেলে প্রশাসন ভবনের আইকিউএসি কক্ষে অবরুদ্ধ করে কর্মসূচি পালন করছে ভিসিবিরোধী শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সংগঠন অধিকার সুরক্ষা পরিষদ।

বিজ্ঞাপন

তাদের অভিযোগ, সম্প্রতি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থীরা ফলপ্রকাশের দাবিতে মধ্যরাতে আন্দোলন শুরু করলে প্রশাসন আন্দোলন দমাতে আইন লঙ্ঘন করে পরীক্ষা কমিটির সদস্য ও পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকের সই ছাড়াই দুই কর্মকর্তার যোগসাজশে ফলপ্রকাশ করেন। এ ঘটনায় বুধবার (১৩ জানুয়ারি) রাতে পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকের দায়িত্বে থাকা মোরশেদ হোসেনকে অব্যাহতি দিয়েছেন উপাচার্য। আজ বৃহস্পতিবার সকালে পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকের দায়িত্বে যোগ দিয়েছেন নাজমুল হক।

অধিকার সুরক্ষা পরিষদের আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. মতিউর রহমান বলেন, ‘ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থীদের আন্দোলন দমাতে আইন লঙ্ঘন করে পরীক্ষা কমিটির সদস্য ও পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকের সই ছাড়াই দুই কর্মকর্তার যোগসাজশে তড়িঘড়ি করে ফলপ্রকাশ করে প্রশাসন প্রমাণ করেছে, তারা শিক্ষার্থীদের সঙ্গে প্রতারণা করেছেন। এজন্য ফলপ্রকাশে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হওয়া জরুরি। নতুন পরীক্ষা নিয়ন্ত্রককে অব্যাহতি না দেওয়া পর্যন্ত আমরা আন্দোলন অব্যাহত রাখব।’

বিজ্ঞাপন

পরীক্ষা নিয়ন্ত্রককে অবরুদ্ধ করে রাখা শিক্ষকদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পরীক্ষা কমিটির সদস্য জিনাত শারমিন। তিনি বলেন, ‘আমি পরীক্ষা কমিটির সদস্য হলেও ফলাফল প্রকাশ করার বিষয়ে আমি কিছুই জানি না। কিভাবে যে ফলাফল প্রকাশ করা হলো, আমি পরীক্ষা কমিটির সদস্য হয়েও তা জানি না।’

অবরুদ্ধকারী আরেক শিক্ষক ও বেরোবি শিক্ষক সমিতির সাবেক সভাপতি অধ্যাপক ড. গাজী মাজহারুল আনোয়ার জড়িতদের দ্রুত শাস্তির আওতায় না আনলে ভবিষ্যতে এমন জালিয়াতি বারবার ঘটবে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের শিক্ষাজীবনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো ফলাফল। আর সেই ফলাফলও যদি প্রশ্নবিদ্ধ হয়, তাহলে তিন-চার বছর সেশন জটে থেকেও বিশ্ববিদ্যালয়ে কষ্ট করে পড়াশোনা করতে বিশ্ববিদ্যালয়ে আসা বৃথা।

বিজ্ঞাপন

আইন লঙ্ঘন করে ইংরেজি বিভাগের ফলাফল তৈরির বিষয়টি স্বীকার করে পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অধ্যাপক ড. নাজমুল হক বলেন, আমরা দ্রুত ফলাফল সংশোধনীর করার জন্য কাজ করব।

সারাবাংলা/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন