বিজ্ঞাপন

কনটেন্ট ব্লক নিয়ে গুগলকে অস্ট্রেলিয়া সরকারের তিরস্কার

January 15, 2021 | 10:21 pm

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক

কনটেন্ট ব্লক করার দিকে মনোযোগ না দিয়ে গুগলকে কনটেন্টের ওপর নির্ভর করে টাকা দিতে আহ্বান জানিয়েছে অস্ট্রেলিয়া সরকার। অস্ট্রেলিয়ার বিভিন্ন গণমাধ্যমের খবর গুগল সার্চে আসছে না— এমন খবর প্রকাশের জের ধরে দেশটির সরকার গুগলের প্রতি এ আহ্বান জানিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

বিবিসি’র খবরে বলা হয়, অস্ট্রেলিয়ার সরকার দেশটির গণমাধ্যমগুলোর নিউজ কনটেন্টের জন্য গুগল-ফেসবুকের মতো টেক কোম্পানিগুলোকে টাকা দেওয়ার জন্য চাপ দিচ্ছে। এ নিয়ে গুগল-ফেসবুকের সঙ্গে অস্ট্রেলীয় সরকারের একধরনের দ্বন্দ্বও চলছে। এর মধ্যেই গুগলকে তিরস্কার করল দেশটির সরকার।

গুগল অবশ্য বলছে, অস্ট্রেলিয়ার গণমাধ্যমগুলোর জন্য তাদের বিভিন্ন পরিষেবার মূল্য নির্ধারণের জন্য পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালাচ্ছিল তারা। তারপরও খুব কম ব্যবহারকারীর জন্যই কনটেন্ট ব্লক করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

গুগল জানিয়েছে, তাদের পরীক্ষা-নিরীক্ষার কারণে অস্ট্রেলিয়ার মাত্র ১ শতাংশ ব্যবহারকারীর ওপর প্রভাব পড়েছে। তাদের এই পর্যবেক্ষণ ফেব্রুয়ারির মধ্যেই শেষ হবে।

এ বিষয়ে অস্ট্রেলিয়ান ট্রেজারার জোশ ফ্রাইডেনবার্গ বলেন, ডিজিটাল জায়ান্টদের মূল কনটেন্ট ব্লক না করে এগুলোর জন্য টাকা দেওয়ার বিষয়ে মনোযোগী হওয়া উচিত। ডিজিটাল জায়ান্টদের এই বার্তা স্পষ্ট ভাষায় জানিয়ে দিতে চাই।

বিজ্ঞাপন

এদিকে, অস্ট্রেলিয়ার সরকার একটি আইন প্রণয়ন করতে যাচ্ছে। এই আইনে বলা হচ্ছে, ফেসবুক-গুগলের মতো ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে দেশটির গণমাধ্যমগুলোর খবর বা কনটেন্ট শেয়ার করা হলে এর জন্য গুগল-ফেসবুককে টাকা দিতে হবে। আইনটি নিয়ে এখন সিনেটে আলোচনা চলছে। এ বছরের শুরুর দিকেই আইনটি পাসের জন্য ভোট নেওয়ার কথা রয়েছে।

এই আইনের অবশ্য বিরোধিতা করে আসছে ফেসবুক-গুগল। কারণ আইনটি পাস হলে তখন তাদের প্ল্যাটফর্মে অস্ট্রেলীয় গণমাধ্যমগুলোর খবর শেয়ার হলেই টাকা দিতে হবে। সেক্ষেত্রে গণমাধ্যমগুলোর সঙ্গে ফেসবুক-গুগল কোনো সমঝোতায় পৌঁছাতে না পারলে সরকার নির্ধারিত একটি সালিশি পক্ষ বিষয়টি নিয়ে সিদ্ধান্ত দেবে।

বিজ্ঞাপন

অস্ট্রেলিয়ার নতুন এই আইনের আওতায় দেশটির রাষ্ট্রায়ত্ত দুই গণমাধ্যম এবিসি ও এসবিএস-ও অন্তর্ভুক্ত আছে। আইনের আওতায় গুগল-ফেসবুককে তাদের প্ল্যাটফর্মের ইউজার ডাটা শেয়ার করতে বলা হয়েছে কনটেন্ট প্রকাশকদের সঙ্গে। ফ্রাইডেনবার্গ বলছেন, আমরা এমন একটি বিষয় আনতে যাচ্ছি, যা বিশ্বে নেতৃত্বস্থানীয়। কেবল নিয়ন্ত্রক কর্তৃপক্ষ নয়, বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সরকারের পক্ষ থেকেই স্বীকৃতি আছে।

তবে গুগল বলছে, নতুন এই আইনের আওতায় তাদের সার্চ সেবাটি আগের চেয়ে অনেক খারাপ হয়ে পড়বে। এই আইনটি ব্যাপকভাবে ক্ষতিকর হয়ে দাঁড়াবে— এমন প্রচারণাও কোম্পানিটি অস্ট্রেলিয়ায় ব্যাপকভাবে চালিয়ে যাচ্ছে।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এনএস/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন