বিজ্ঞাপন

‘পাগলের সুখ মনে মনে, পাতা টোকায় আর টেকা গোনে’

January 18, 2021 | 5:02 pm

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: ‘পাগলের সুখ মনে মনে, পাতা টোকায় আর টেকা গোনে’— বহুল প্রচলিত এই প্রবাদটি আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরকে ‘রাজনৈতিক খোঁচা’ দেওয়ার জন্য উচ্চারণ করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্মমহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

বিজ্ঞাপন

সোমবার (১৮ জানুয়ারি) দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে ওবায়দুল কাদেরকে নিয়ে দীর্ঘ বক্তব্য দেন রিজভী।

এর আগে, রোববার (১৭ জানুয়ারি) ওবায়দুল কাদের সাংবাদিকদের বলেন, ‘বসুরহাটে যে নির্বাচন হয়েছে, সেটা স্বচ্ছতার মডেল। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ‘বসুর হাট' মডেল নির্বাচন চান।’

বিজ্ঞাপন

এ বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় রিজভী বলেন, ‘‘আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বসুরহাট পৌরসভায় আপন ছোট ভাই বহুলালোচিত আব্দুল কাদের মির্জার বিজয়ে অতি আনন্দিত হয়েছেন। প্রধান নির্বাচন কমিশনার নুরুল হুদার ‘বেহুদা’ নির্বাচনে ছোট ভাই আব্দুল কাদের মির্জার জয় দেখে ওবায়দুল কাদেরের এই মন্তব্যে একটি প্রবাদের কথা মনে পড়ে গেলো, ’পাগলের সুখ মনে মনে, পাতা টোকায় আর টেকা গোনে’।’’

তিনি বলেন, 'রকিবুল হুদা কিংবা নুরুল হুদা' চক্র গত এক দশক ধরেই ‘বেহুদা’ নির্বাচনের মাধ্যমে যে নানা রকম নির্বাচনি মডেল জন্ম দিয়েছেন, তা জনগণের স্মৃতি থেকে এখনো বাসী হয়ে যায়নি। কখনো ‘নির্বাচন ছাড়াই ১৫৪ এমপি’ আবার কখনো ‘ভোট ছাড়াই এমপি’ এইসব মডেলের পর ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের চাহিদা পূরণে এবার বেহুদা কমিশনের লেটেস্ট আবিষ্কার ‘বসুরহাট মডেল’।

বিজ্ঞাপন

‘বসুরহাট পৌর নির্বাচন আওয়ামী ভণ্ডামীর নতুন মডেল। ওবায়দুল কাদের এবং প্রধানমন্ত্রীর 'বসুরহাট মডেল'-এর মর্মার্থ হলো 'সবই আমরা আমরা'। এই মডেলে তারা নিজেরাই নিজেদের প্রশংসায় ভাসিয়ে দেবে আবার নিজেরাই নিজেদের বিরোধিতায় মেতে উঠবে। এমন বিরোধিতা যাতে, একদিকে গণমাধমকে ব্যস্ত রাখা যায়। আবার অপরদিকে নির্বাচন নামের প্রহসনকে আলোচনায় রাখা যায়। এটাই হলো 'বসুর হাট' মডেল’— বলেন রুহুল কবির রিজভী।

তিনি বলেন, ‘এই মডেলের সব প্রশংসা প্রধানমন্ত্রীর জন্য আর সমালোচনা আওয়ামী লীগের অন্য সব নেতার। আওয়ামী লীগের সব কাজই প্রকৃতপক্ষে এক ছলনা ছাড়া কিছুই নয়।’

বিজ্ঞাপন

রিজভী বলেন, ‘দেশের জনগণ জানে- আওয়ামী লীগের আমলে জাতীয় কিংবা স্থানীয় নির্বাচনে জনগণের ভোটে হারজিত নির্ধারিত হয় না। হারজিত নির্ধারিত হয় গণভবনে। নির্বাচন কমিশন স্রেফ আওয়ামী লীগের নির্বাচনি পোস্ট বক্স। নির্বাচন কমিশনের কাজ, আওয়ামী লীগের হাই কমান্ড থেকে পাঠানো তালিকা প্রকাশ করা। এ খেলার মাস্টার মাইন্ড শেখ হাসিনা আর খেলোয়াড় হিসাবে আছে পুলিশ প্রশাসন। নির্লজ্জ রেফারি নির্বাচন কমিশন এখানে হাতের পুতুল।’

তিনি বলেন, ‘পূর্ব নির্ধারিত একতরফা নির্বাচনকে একটু রমরমা করতেই এবারের ‘মডেল’ ছিলেন আব্দুল কাদের মির্জা। আওয়ামী লীগের এই নাটক মানুষ আগেই টের পেয়েছিল।’

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এজেড/এমআই

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন