বিজ্ঞাপন

নাভালনির ১ মাসের কারাদণ্ড

January 18, 2021 | 11:06 pm

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

নোভিচক নার্ভ এজেন্ট হামলায় অসুস্থ হওয়ার পাঁচ মাসের মাথায় জার্মানি থেকে রাশিয়ায় ফেরার পর বিরোধীদলীয় নেতা অ্যালেক্সি নাভালনি এক মাসের কারাদণ্ডে দণ্ডিত হয়েছেন। খবর বিবিসি।

বিজ্ঞাপন

এর আগে, রোববার (১৭ জানুয়ারি) মস্কো বিমানবন্দরে নামার সঙ্গে সঙ্গেই আটক হন প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের কট্টর সমালোচক হিসেবে পরিচিত নেতা নাভালনি।

এদিকে, ২০১৪ সালের একটি অর্থ আত্মসাৎ মামলায় স্থগিত দণ্ডের প্যারোল শর্ত লঙ্ঘনের অভিযোগে নাভালনিকে আটক করা হয়। রাজধানী মস্কোর একটি পুলিশ স্টেশনে তাকে আটকে রাখা হয়।

বিজ্ঞাপন

তার ২৪ ঘন্টা না পেরোতেই পুলিশ স্টেশনে একদিনের শুনানি আয়োজন করে বিচারকের নির্দেশে তাকে কারাদণ্ড দেওয়া হলো।

ওদিকে, নাভালনিকে তাৎক্ষণিকভাবে মুক্তি দেওয়ার আন্তর্জাতিক আহ্বান উপেক্ষা করেই সোমবার (১৮ জানুয়ারি) মস্কোর উপকণ্ঠে একটি পুলিশ স্টেশনে নাভালনির বিরুদ্ধে অভিযোগের শুনানি হয়।

বিজ্ঞাপন

রাষ্ট্রীয় কৌঁসুলিদের আবেদনের প্রেক্ষিতে, বিচারক প্যারোলের শর্ত ভঙ্গের অভিযোগে নাভালনিকে ১৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত আটক রাখার আদেশ দিয়েছে।

তবে, ২৯ জানুয়ারি আরেকটি শুনানিতে হাজির হতে হবে নাভালনিকে। তার সাড়ে তিন বছরের স্থগিত দণ্ডের বদলে আদতেই কারাদণ্ড দেওয়া হবে কিনা সে ব্যাপারে সিদ্ধান্ত হবে ওই শুনানিতে।

বিজ্ঞাপন

অন্যদিকে, নাভালনি তার বিচারকে 'উপহাস' এবং 'চরম অনাচার' হিসেবে আখ্যা দিয়েছেন। শুনানির পর প্রকাশ করা একটি ভিডিওতে নাভালনি তার সমর্থকদের এর প্রতিবাদ করারও আহ্বান জানিয়েছেন।

রয়টার্স জানিয়েছে, প্রচণ্ড ঠান্ডার উপেক্ষা করে নাভালনির প্রায় ২০০ সমর্থক পুলিশ স্টেশনের বাইরে জড়ো হয়ে তার মুক্তি দাবি করেছে। পাশাপাশি, যুক্তরাষ্ট্র এবং ইইউ’ও অবিলম্বে নাভালনির মুক্তি দাবি করেছে। তবে রাশিয়া এ দাবি প্রত্যাখ্যান করেছে।

বিজ্ঞাপন

প্রসঙ্গত, ৪৪ বছর বয়সী নাভলনি ২০২০ সালের একটি অভ্যন্তরীন ফ্লাইটে সার্বিয়া থেকে মস্কো ফেরার সময় চা পানের পরই অসুস্থ হয়ে কোমায় চলে গিয়েছিলেন। বিমানবন্দর থেকে তাকে স্থানীয় একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। অবস্থার পরিবর্তন না হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে জার্মানি নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেই পরীক্ষায় জানায় যায়, সোভিয়েত আমলে তৈরি বিষাক্ত নার্ভ এজেন্ট নোভিচক দিয়ে তাকে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছিল।

নাভালনি ও তার সমর্থকদের অভিযোগ, প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের নির্দেশেই তাকে রাসায়নিক বিষ প্রয়োগে হত্যার চেষ্টা করা হয়।

অবশ্য, ক্রেমলিন ওই অভিযোগ বরাবরই অস্বীকার করছে।

এ ব্যাপারে পুতিন বলেছেন, যদি রুশ এজেন্টরা যদি তাকে হত্যা করতেই চাইত, ‍তবে তারা অবশ্যই তাদের কাজ শেষ করত।

বার্লিনের একটি হাসপাতালে দীর্ঘদিনের চিকিৎসায় সম্পূর্ণ সুস্থ হয়ে উঠেছেন নাভালনি। তার স্বাস্থ্যও প্রায় আগের অবস্থায় ফিরে এসেছে। এরপরই গত বুধবার নিজের ইন্সটাগ্রামে এক পোস্টে রাশিয়ায় ফেরা এবং পুনরায় রাজনীতি শুরুর কথা জানানোর পর রোববার দেশে ফেরেন এই নেতা।

সারাবাংলা/একেএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন