বিজ্ঞাপন

গভীর রাতে মামলা, একদিন পর প্রত্যাহারের আবেদন

January 18, 2021 | 11:59 pm

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট

রংপুর: বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) ভারপ্রাপ্ত পরীক্ষা নিয়ন্ত্রককে অবরুদ্ধ করে জোরপূর্বক বিভিন্ন কাগজে সই নেওয়ার অভিযোগে আট শিক্ষক-কর্মকর্তার নামে দায়ের করা মামলা প্রত্যাহার করা হয়েছে। মামলার বাদী ভারপ্রাপ্ত পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক নাজমুল হক ‘বাদী-বিবাদীর দুই পক্ষের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি থেকে মামলা দায়ের করা হয়েছে’ উল্লেখ করে বিচারকের কাছে মামলা প্রত্যাহারের আবেদন করেন। পরে আদালত আট শিক্ষক-কর্মকর্তার জামিন মঞ্জুর করেন।

বিজ্ঞাপন

গত বৃহস্পতিবার (১৪ জানুয়ারি) সকালের ওই ঘটনায় শনিবার (১৬ জানুয়ারি) দিবাগত রাত ১টায় রংপুর মেট্রোপলিটনের তাজহাট থানায় নাজমুল হক বাদী হয়ে নিজে উপস্থিত হয়ে মামলাটি করেন। একদিন পর সোমবার (১৮ জানুয়ারি) দুপুরে রংপুর আদালতে তিনি মামলা প্রত্যাহারের আবেদন করেন।

মামলার এজাহারে নাজমুল হক অভিযোগ করেছিলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসিবিরোধী শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের সংগঠন অধিকার সুরক্ষা পরিষদের নেতারা তাকে নিজ দফতরে অবরুদ্ধ করে পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকের পদ থেকে পদত্যাগের জন্য চাপ দেন। এছাড়া ইংরেজি বিভাগের প্রকাশিত ফল বাতিল এবং রসায়ন বিভাগের পুনঃগঠিত পরীক্ষা কমিটি বাতিল সংক্রান্ত একটি চিঠিতে জোর করে তার সই নেন।

বিজ্ঞাপন

মামলায় ভিসিবিরোধী শিক্ষক-কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের সংগঠন অধিকার সুরক্ষা পরিষদের আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. মতিউর রহমানকে প্রধান আসামি করা হয়। এছাড়াও শিক্ষক সমিতির সাবেক সভাপতি অধ্যাপক ড. গাজী মাজহারুল আনোয়ার, রসায়ন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক তারিকুল ইসলাম, সরকারদলীয় শিক্ষক সংগঠন নীল দলের সাধারণ সম্পাদক আসাদ মন্ডল, লোক প্রশাসন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সাব্বির আহমেদ চৌধুরী, ভূগোল ও পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সৈয়দ আনোয়ারুল আজিম, পরিকল্পনা ও উন্নয়ন দফতরের অতিরিক্ত পরিচালক এ টি জি এম গোলাম ফিরোজ এবং কলা অনুষদের সহকারী রেজিস্ট্রার মোহাম্মদ আলীকে আসামি করা হয়।

অধিকার সুরক্ষা পরিষদের আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. মতিউর রহমান বলেন, দুর্নীতি, অনিয়ম ও স্বেচ্ছাচারিতার বিরুদ্ধে আন্দোলন ঠেকিয়ে নিজেকে রক্ষায় মামলা করিয়েছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন