বিজ্ঞাপন

মালিকের জন্য হাসপাতালের বাইরে প্রতিদিন কুকুরের অপেক্ষা

January 22, 2021 | 5:35 pm

ফিচার ডেস্ক

হাসপাতালের ভেতরে রোগীর চিকিৎসা চলছে। বাইরে মূল ফটকে তার ফেরার অপেক্ষায় পোষা কুকুর বনজুক। কখন সুস্থ হয়ে ফিরবে মালিক, আর কখনই বা প্রিয় মালিকের সঙ্গে বাড়ি ফেরা হবে! প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত হাসপাতালের বাইরে এসে দাঁড়িয়ে থাকে বনজুক। কারণ ভেতরে যেতে মানা, শুধু মূল ফটকের সামনেই অপেক্ষার প্রহর গোনার অনুমতি আছে। অবশেষে একদিন বিকেলের দিকে দেখা মিললো হুইলচেয়ারে চড়ে এগিয়ে আসছেন মালিক। অপেক্ষা ফুরোলো বলে, এবার আনন্দে লাফিয়ে লাফিয়ে মালিকের চারপাশে ঘুরে বাড়ি যাওয়ার পালা।

বিজ্ঞাপন

ঘটনাটি তুরস্কের কৃষ্ণসাগরের তীরবর্তী শহর ট্রাবজনে। গত ১৪ জানুয়ারি ওই শহরের বাসিন্দা সেমাল সেন্ট্রুককে অসুস্থ অবস্থায় একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেদিন অ্যাম্বুলেন্সে করে সেন্ট্রুকের প্রিয় কুকুর বনজুক হাসপাতাল পর্যন্ত এগিয়ে দেয় তাকে। হাসপাতালে সেন্ট্রুক ভর্তি হয়ে গেলে বাকি সবাই ফিরে যান বাড়িতে। সঙ্গে ফেরে বনজুকও।

তবে বাড়িতে মালিক ছাড়া একা ভালো লাগেনি তার। তাই পর দিন সকাল হতেই আবার হাসপাতালের দরজায় হাজির সে। কিন্তু মালিকের দেখা মেলেনি, সন্ধ্যায় মন খারাপ করে বাড়ি ফেরে বনজুক। এভাবে প্রায় এক সপ্তাহ প্রতিদিন সকালে হাসপাতালের দরজায় অপেক্ষা করত সে। তবে গত বুধবার অপেক্ষার পালা শেষ হয় বনজুকের। বিকেলের দিকে হঠাৎ সে দেখে হুইল চেয়ারে চড়ে বাইরে আসছেন মালিক। আর তাতে বনজুকের খুশি দেখে কে! বুদ্ধিমান বনজুক বুঝতে পারে, মালিক সুস্থ, এবার একসঙ্গে বাড়ি ফেরার পালা।

বিজ্ঞাপন

মালিকের জন্য হাসপাতালের বাইরে প্রতিদিন কুকুরের অপেক্ষা

এ ব্যাপারে সেমাল সেন্ট্রাকের মেয়ে আয়নুর এগেলি বলেন, “বনজুককে বাড়ি নিয়ে গিয়েছিলাম। কিন্তু সে প্রতিদিন হাসপাতালে ছুটে আসে”। আর হাসপাতালটির এক নিরাপত্তাকর্মী বলেন, “প্রতিদিন সকাল ৯টায় আসতো কুকুরটা। তবে সে কোনোদিন হাসপাতালের ভেতর ঢুকেনি”। খবর এপি।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/আইই

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন