বিজ্ঞাপন

‘বিশ্বমানের পাঁচটি দল বানানোর সামর্থ আছে ভারতের’

January 23, 2021 | 7:51 pm

স্পোর্টস ডেস্ক

গ্রেগ চ্যাপেলকে ভারতীয় ক্রিকেটের অনেকেই পছন্দ করেন না। ভারতের কোচের দায়িত্ব পালন করার সময় সৌরভ গাঙ্গুলির সঙ্গে তার তিক্ততার খবর অনেকেরই জানা। ভারতীয় ক্রিকেটকে কয়েক ধাপ পিছিয়ে দেওয়ার অভিযোগও আছে চ্যাপেলের বিরুদ্ধে। তবে ভারতীয় ক্রিকেটকে নিয়ে চ্যাপেল এবার যে কথাটা বললেন সেটা নিশ্চয় পছন্দ হবে ভারতীয়দের। সদ্য সমাপ্ত বোর্ডার-গাভাস্কার ট্রফি নিয়ে কথা বলতে গিয়ে চ্যাপেল বলেছেন, বিশ্বমানের পাঁচটা দল গড়ার মতো ক্রিকেটার আছে ভারতের।

বিজ্ঞাপন

বোর্ডার-গাভাস্কার ট্রফিতে বেঞ্চের গরম দেখিয়েছে ভারত। সিরিজের প্রথম ম্যাচ শেষে সন্তান সম্ভবা স্ত্রীর পাশে থাকতে ছুটি নিয়ে আসেন বিরাট কোহলি। ভারতকে সবচেয়ে বেশি ভুগিয়েছে ইনজুরি। ইশান্ত শর্মাকে দিয়ে শুরু। তারপর ইনজুরির মিছিলে একে একে যোগ হয়েছে মোহাম্মদ শামি, উমেশ যাদব, বরীন্দ্র জাদেজা, রবিচন্দ্রন অশ্বিন, জাসপ্রিত বুমরাহ, হানুমা বিহারীদের নাম।

সিরিজের শেষ টেস্টে দেখা গেল সিরিজে সব ম্যাচ খেলেছেন এমন ক্রিকেটার মাত্র দু'জন- আজিঙ্কা রাহানে ও চেতেশ্বর পূজারা। ওয়াসিংটন সুন্দর, শার্দুল ঠাকুরদের মতো 'শিক্ষাণবিস'দের মাঠে নামিয়ে দিতে হয়েছিল ভারতকে। সেই তারাই কিনা অস্ট্রেলিয়াকে তাদের মাটিতে হারিয়ে সিরিজ জিতে দেশে ফিরল! ভারতীয় তরুণদের এমন পারফরম্যান্সে মুগ্ধ ক্রিকেটবিশ্ব। চ্যাপেল অবশ্য আশ্চর্য নয়। ভারতীয় ঘরোয়া ক্রিকেট যতোটা প্রতিদ্বন্দ্বীতাপূর্ণ এবং তরুণরা সেখান থেকে যেভাবে তৈরি হয়ে আসে তাতে এমন পারফরম্যান্স মোটেও আশ্চর্যের নয় বলেছেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

অস্ট্রেলিয়ান দৈনিক সিডনি মর্নিং হেরাল্ডে লেখা কলামে ভারতের প্রসংশা করতে গিয়ে অস্ট্রেলিয়াকে ধুয়েও দিয়েছেন চ্যাপেল। লিখেছেন, 'ভারতের তরুণ ক্রিকেটারদের তুলনায় আমাদের তরুণ ক্রিকেটারদের দেখে মনে হয়, তাঁরা যেন অবসর সময়ের ক্রিকেটার। ভারতের তরুণ ক্রিকেটাররা অনূর্ধ্ব-১৬ বয়সভিত্তিক দল থেকেই চ্যালেঞ্জিং সব ম্যাচ খেলে বড় হচ্ছেন। ভারতের একজন ক্রিকেটার জাতীয় দলের একাদশে সুযোগ পেতে পেতে তাঁর ক্রিকেটের সবদিকই ভালোভাবে শেখা হয়ে যায়, যেটা ভারতীয় দলে তাঁর সাফল্যের সম্ভাবনা বাড়িয়ে দেয়। বলতে খারাপ লাগছে, তবে অভিজ্ঞতার দিক থেকে তুলনা করলে (ভারতীয় তরুণ ক্রিকেটারদের তুলনায়) উইল পুকোভস্কি আর ক্যামেরন গ্রিন এখনো প্রাইমারি স্কুলে পড়া ছাত্র।'

চ্যাপেল লিখেন, 'উঠতি ভারতীয় ক্রিকেটারদের পেছনে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড-বিসিসিআই মিলিয়ন মিলিয়ন ডলার খরচ করছে। সে তুলনায় ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া শেফিল্ড শিল্ডে খরচ করে মাত্র ৪৪ মিলিয়ন ডলার। খরচের তুলনামূলক এই পার্থক্য শুধু একটা সাগর নয়, বরং ভারত মহাসাগরের সমান। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া যদি না বোঝে যে টেস্ট ক্রিকেটে প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক দল গড়তে কী করতে হবে, প্রতিভার পেছনে কোথায় বিনিয়োগ করতে হবে, সে ব্যাপারে আমাদের পুরো ক্রিকেট প্রশাসন যদি তাদের মনোভাব না বদলায়, তাহলে আমরা টেস্টে শিগগিরই সাধারণ আরেকটি দলে পরিণত হব।'

বিজ্ঞাপন

বোর্ডার-গাভাস্কার ট্রফির উদাহরণ টেনে চ্যাপেল বলেন, 'এই সিরিজে তাদের দিকে আসা সব চ্যালেঞ্জ ভারত যেভাবে সামলেছে, যেভাবে স্নায়ুচাপ ঠিক রেখে সাহসের সঙ্গে ম্যাচ জিতে বের হয়েছে, সেটা দেখে আপনারা যাঁরা বিস্মিত হয়েছেন, তাঁদের বলছি, এটার সঙ্গে অভ্যস্ত হয়ে যান। ভারত বিশ্বের সেরা দল হয়ে গেল কি না, এ নিয়ে আর ভেবে লাভ নেই—ওদের এরই মধ্যে বিশ্ব ক্রিকেটে সেরা পাঁচটা দল গড়ার সামর্থ্য হয়ে গেছে।'

উল্লেখ্য, বোর্ডার-গাভাস্কার ট্রফিটা ২-১ ব্যবধানে জিতেছে ভারত। চার টেস্ট সিরিজের প্রথম ম্যাচে ভারতকে ৩৬ রানে গুটিয়ে দেওয়া লজ্জা দিয়ে জিতেছে অস্ট্রেলিয়া, দ্বিতীয় ম্যাচটা জিতে ভারত। তৃতীয় ম্যাচ ড্র হয়েছে। চতুর্থ ম্যাচে ভারতের তরুণ ক্রিকেটাররা অস্ট্রেলিয়ার ব্রিসবেন দূর্গ চুরমার করে সিরিজ জয় নিশ্চিত করেছে।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এসএইচএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন