বিজ্ঞাপন

বিইআরসি চেয়ারম্যানকে ক্ষমা, ৩ মাসের মধ্যে এলপিজির দাম নির্ধারণ

January 25, 2021 | 10:27 pm

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: আগামী তিন মাসের মধ্যে তরলীকৃত পেট্রোলিয়াম গ্যাসের (এলপিজি) দাম নির্ধারণ করবে বলে হাইকোর্টকে জানিয়েছে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি)। একইসঙ্গে বিইআরসি চেয়ারম্যান মো. আব্দুল জলিলকে আদালত অবমাননার রুল থেকে অব্যাহতি দিয়ে রুলটি নিষ্পত্তি করে দিয়েছেন। আদালতে নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা ও এলপিজির দাম নির্ধারণে গণশুনানি করায় চেয়ারম্যানকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।

বিজ্ঞাপন

সোমবার (২৫ জানুয়ারি) বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি মো. কামরুল হোসেন মোল্লার হাইকোর্ট বেঞ্চে প্রতিবেদন দাখিল করা হয়। প্রতিবেদন দাখিলের সঙ্গে বিইআরসি চেয়ারম্যানের পক্ষে নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনার আবেদন জানানো হলে আদালত তাকে আদালত অবমাননার রুল থেকে অব্যাহতি দেন।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী গত ১৪ জানুয়ারি এলপিজির দাম নির্ধারণে দিনব্যাপী গণশুনানিও করে বিইআরসি।

বিজ্ঞাপন

বিইআরসির আইনজীবী সৈয়দ মাহসিব হোসেন ও এ. এম. মাসুম প্রতিবেদনটি আদালতে তুলে ধরেন। এ ছাড়া বিইআরসি চেয়ারম্যান মো. আব্দুল জলিলের পক্ষে আইনজীবী আব্দুল মতিন খসরু শুনানি করেন।

আদেশের বিষয়টি সারাবাংলাকে নিশ্চিত করে বিইআরসির আইনজীবী সৈয়দ মাহসিব হোসেন বলেন, ‘বেঁধে দেওয়া সময়ের মধ্যে এলপিজির দাম নির্ধারণ করতে না পারায় আমরা আদালতে নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা করি। একইসঙ্গে গত ১৪ জানুয়ারি বিইআরসি এর উদ্যোগে দিনব্যাপী গণশুনানিও করার বিষয়টিও আদালতকে অবহিত করি। আদালত আমাদের আবেদন গ্রহণ করে আদালত অবমাননার রুল থেকে বিইআরসির চেয়ারম্যানকে অব্যাহতি দিয়েছেন।’

বিজ্ঞাপন

তিনি আরও বলেন, ‘বিইআরসির আইন অনুযায়ী গণশুনানির তিন মাসের মধ্যে এলপিজির দাম নির্ধারণ করতে হয়। আমরা নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই এলপিজির দাম নির্ধারণ করতে পারবো বলে আদালতকে জানিয়েছি। এসব বিবেচনায় আদালত রুলটি নিস্পত্তি করে দিয়েছেন।’

এর আগে গত ২৯ নভেম্বর বেঁধে দেওয়া সময়ের মধ্যে তরলীকৃত পেট্রোলিয়াম গ্যাসের (এলপিজি) দাম নির্ধারণ করে আদালতে প্রতিবেদন না দেওয়ায় বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের (বিইআরসি) চেয়ারম্যান মো. আব্দুল জলিলের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার রুল জারি করেন হাইকোর্ট।

বিজ্ঞাপন

আদালতের আদেশ প্রতিপালন না করায় কেন তার বিরুদ্ধে অদালত অবমাননার অভিযোগ আনা হবে না, রুলে তা জানতে চাওয়া হয়। সে নির্দেশ অনুযায়ী গত বছরের ১৫ ডিসেম্বর আইনজীবীর মাধ্যমে রুলের জবাব দেন বিইআরসির চেয়ারম্যান। একইসঙ্গে নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা করে আদালত অবমাননার রুল থেকে অব্যাহতি চান মো. আব্দুল জলিল।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/কেআইএফ/এএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন