বিজ্ঞাপন

২৭ জানুয়ারি ভ্যাকসিন প্রয়োগ কর্মসূচি উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী

January 25, 2021 | 10:48 pm

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: নভেল করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) মহামারি মোকাবিলায় বুধবার (২৭ জানুয়ারি) দেশে ভ্যাকসিন প্রয়োগ কার্যক্রম শুরু হতে যাচ্ছে। এদিন বিকেল তিনটা ৩০ মিনিটে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভ্যাকসিন প্রয়োগ কার্যক্রম উদ্বোধন করবেন। কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে প্রথম পাঁচজনের ভ্যাকসিন দেওয়ার সময় প্রধানমন্ত্রী অনলাইন প্ল্যাটফরমের মাধ্যমে যুক্ত থাকবেন। প্রধানমন্ত্রী উদ্বোধন করার পরে ভ্যাকসিন গ্রহীতাদের অনলাইন নিবন্ধন শুরু হবে।

বিজ্ঞাপন

সোমবার (২৫ জানুয়ারি) প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে আয়োজিত ‘কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনেশন অবহিতকরণ’ অনুষ্ঠানে এসব তথ্য জানানো হয়।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, দেশে আগামী বুধবার করোনা ভ্যাকসিন প্রয়োগ কার্যক্রম উদ্ধোধন করা হবে। ওইদিন বেলা সাড়ে তিনটায় এ কর্মসূচি উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এতে মোট ২০ জনকে টিকা দেওয়া হবে।

বিজ্ঞাপন

অনুষ্ঠানে সরকারের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, আগামী ২৭ তারিখ বিকেল সাড়ে তিনটায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রথম ভ্যাকসিন প্রয়োগ কার্যক্রমের উদ্বোধন করবেন। ঠিক সেই সময়েই আমরা প্রস্তাব দিয়েছি যে আনুষ্ঠানিকভাবে রেজিস্ট্রেশনটাও প্রধানমন্ত্রী উদ্বোধন করবেন। তাহলে যেটা হবে তখন এটা উন্মুক্ত হবে। তার আগ পর্যন্ত কিন্তু এই www.surokkha.gov.bd সেটাও রেজিস্ট্রেশনের জন্য উন্মুক্ত নয়, অ্যানড্রয়েড অ্যাপও না।

তিনি বলেন, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অধিদফতরের প্রোগ্রামারদের নিজস্ব উদ্যোগ ও ব্যবস্থাপনায় কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম ‘সুরক্ষা’ সফটওয়্যারটি ব্যবহারের জন্য স্বাস্থ্য অধিদফতরের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। আমরা একইসঙ্গে মোবাইল অ্যাপ্লিকেশনও তৈরি করে রাখছি। যদি স্বাস্থ্য অধিদফতর কিংবা প্রধানমন্ত্রীর দফতর আমাদের নির্দেশ দেয় তাহলে আমরা এটা উন্মুক্ত করে দেব।

বিজ্ঞাপন

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. এবিএম খুরশীদ আলম বলেন, অনলাইন নিবন্ধন ছাড়া কেউ কোভিড-১৯ এর ভ্যাকসিন পাবেন না।

উল্লেখ্য, এর আগে জানানো হয় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অধিদফতরের প্রোগ্রামারদের একটি দল নিজস্ব উদ্যোগ ও ব্যবস্থাপনায় কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম ‘সুরক্ষা’ সফটওয়্যারটি তৈরি করেছে। সুরক্ষা সফটওয়্যারটি সরকারের কোনও অর্থ ব্যয় ছাড়া তৈরি করা হয়েছে এবং এটি ব্যবহারের জন্য স্বাস্থ্য অধিদফতরকে সরবরাহ করা হচ্ছে। নাগরিক নিবন্ধন ও ভ্যাকসিন প্রদানসহ ভ্যাকসিশন কার্যক্রমের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় সুরক্ষা সফটওয়্যারটি স্বাস্থ্য অধিদফতর ব্যবহার করতে পারবে। সিস্টেমটির উন্নয়ন এবং পরিচালনায় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ, তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তি অধিদফতর, বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল (বিসিসি), এটুআই এবং স্বাস্থ্য অধিদফতর একসঙ্গে কাজ করে যাচ্ছে।

বিজ্ঞাপন

কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনেশন অবহিতকরণ অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব আহমেদ কায়কাউস, আইসিটি বিভাগের সিনিয়র সচিব এন এম জিয়াউল আলম, স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশীদ আলমসহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।

সারাবাংলা/এসবি/এএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন