বিজ্ঞাপন

এলোমেলো খাবার থেকে দূরে থাকার উপায়

January 26, 2021 | 1:18 pm

লাইফস্টাইল ডেস্ক

এলোমেলো খাবার (জাঙ্ক ফুড) ছেড়ে দেওয়ার পণ করেছেন। পার্টিতে বা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এসব খাবারের আকর্ষনীয় ছবি কিংবা কোথাও যাওয়ার সময় রেস্টুরেন্ট থেকে আসা সুস্বাদু খাবারের গন্ধ নাকে আসতেই সেই পণ ভাঙছেন। আর নিজের স্বাস্থ্যের জন্য বিপদ ডেকে আনছেন। তবে কিছু অভ্যাস আপনাকে এলোমেলো খাবার থেকে দূরে থাকতে সাহায্য করতে পারে। এ ধরনের খাবার ছেড়ে দিতে চাইলে আপনাকে অবশ্যই এই নিয়মগুলোকে প্রতিদিন মেনে চলতে হবে।

বিজ্ঞাপন

নিজেকে বুঝুন

আপনার খাবারের চাহিদা আপনি সবচেয়ে ভালো বুঝবেন। আপনি কি ‍চিনিযুক্ত ফাস্ট ফুড বেশি পছন্দ করেন? নাকি ফ্রাইড খাবার? আপনি যখন এ প্রশ্নের উত্তর পেয়ে যাবেন তখন খুব সহজেই সে খাবার এড়িয়ে যাওয়ার উপায় খুঁজে বের করতে পারবেন।

বিজ্ঞাপন

তবে সবার আগে যে অভ্যাসটি করা প্রয়োজন তা হলো আপনি যতটুকু খেতে পারবেন তার চেয়ে কম খাবার নিন প্লেটে। এরপর আপনি যদি চিনিজাতীয় ফাস্টফুড বেশি পছন্দ করেন তাহলে আপনার খাবারে ফল, বাদাম, গমজাতীয় খাবার রাখুন। তবে অবশ্যই পাঁচ ধরনের খাবারের বেশি না। আপনার প্রতিদিনের যাতায়াতে যদি পছন্দের রেস্টুরেন্ট থাকে তাহলে সে পথ এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করুন।

স্বাস্থ্যকর খাবার ও ব্যায়াম

বিজ্ঞাপন

স্বাস্থ্যকর খাবার নিজে থেকে আপনার কাছে আসবে না। এর পেছনে আপনাকে অবশ্যই কিছু সময় দিতে হবে। আপনার রান্নাঘর ও ফ্রিজ থেকে এলোমেলো সব ধরনের খাবার বাদ দিতে হবে। নিজেকে বার বার মনে করিয়ে দিন এই কাজটি আপনার সুস্বাস্থ্য ও সুখী থাকার জন্য জরুরী। খাবার কেনার আগে স্বাস্থ্যকর খাবারের লিস্ট তৈরি করুন। অবশ্যই প্রতিদিন ব্যায়াম করার অভ্যাস করুন। ব্যায়ামের অভ্যাস না থাকলে ফিটনেস গ্রুপের সঙ্গে যোগ দিতে পারেন। এটি অস্বাস্থ্যকর খাবার থেকে দূরে থাকতে চমৎকার কাজ করবে।

খাবার সময় নিয়ে চিবিয়ে খান

বিজ্ঞাপন

আপনি কি জানেন, খাবার অনেক সময় নিয়ে খেলে বেশি খাবার এড়িয়ে যাওয়া যায়। গবেষণা অনুযায়ী, খাওয়া শুরু করার ২০ মিনিট পর থেকে আপনার মস্তিষ্ক বুঝতে পারে যে আপনার পেট ভরে গেছে। তাই অল্প খাবার নিয়ে ২০ মিনিট ধরে তা চিবিয়ে খান।

রঙ ও প্রকৃতির দিকে মনোযোগ দিন

বিজ্ঞাপন

কখনো লক্ষ্য করেছেন কি, ম্যাক ডোনাল্ডস লাল ও হলুদ রঙ ব্যবহার করে। লাল, হলুদ এবং কমলা রঙ আপনার ক্ষুধাকে আরো বাড়িয়ে দিতে পারে। তাই আপনার খাবারের জায়গায় এসব রঙ এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করুন। রান্নাঘর ও খাবার টেবিলে যেসব তৈজসপত্র ব্যবহার করবেন সেসব জায়গা অলংকরন না করাই ভালো। কম খাওয়ার জন্য ছোট প্লেটও ব্যবহার করতে পারেন।

রঙিন ও বিচিত্র খাবার

এলোমেলো খাবারগুলো বেশ রঙিন ও বৈচিত্রময় হয়। সুস্বাস্থ্যের জন্য স্বাস্থ্যকর খাবারে বৈচিত্র আনতে পারেন। তিন বেলা খাবারের অভ্যাসের সঙ্গে খাবারে রঙ ও বৈচিত্র আনার চেষ্টা করুন। টক, মিষ্টিসহ সব ধরনের খাবার খান।

জানার চেষ্টা করুন

এলোমেলো খাবার কীভাবে তৈরি হয় ও এটি কীভাবে আপনার শরীরে রোগব্যাধির জন্ম দিচ্ছে তা জানুন। এ সম্পর্কিত অনেক ভিডিও আছে যা আপনাকে এসব তথ্য জানতে সহায়তা করতে পারে। এগুলো যত বেশি জানবেন এলোমেলো খাবারের প্রতি আপনার আগ্রহ ততই কমে আসবে।

সারাবাংলা/এসএসএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন